পছন্দের খবর জেনে নিন সঙ্গে সঙ্গে

পিএসজির বড় জয়ে রামোসের প্রথম গোল

  • স্পোর্টস ডেস্ক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2022-01-24 03:42:57 BdST

অপেক্ষার পালা ফুরাল দুই তারকার। নতুন বছরে পিএসজির হয়ে প্রথমবার খেলতে নামলেন লিওনেল মেসি। দলটির জার্সিতে প্রথম গোলের দেখা পেলেন সের্হিও রামোস। আক্রমণাত্মক ফুটবলের পসরা মেলে রাঁসকে উড়িয়ে লিগ টেবিলে শীর্ষস্থান সুসংহত করল মাওরিসিও পচেত্তিনোর দল।

প্যারিসে নিজেদের মাঠে রোববার রাতে লিগ ওয়ানের ম্যাচটি ৪-০ গোলে জিতেছে পিএসজি। রামোস ছাড়াও তাদের হয়ে একটি করে গোল করেন মার্কো ভেরাত্তি ও দানিলো পেরেইরা। অন্যটি প্রতিপক্ষের আত্মঘাতী।

ম্যাচে ৬৮ শতাংশ সময় বল দখলে রেখে পিএসজি গোলের জন্য মোট শট নেয় ২২টি, যার আটটি ছিল লক্ষ্যে। আর সফরকারীদের সাত শটের তিনটি লক্ষ্যে ছিল।

শুরু থেকে বল দখলে আধিপত্য করা পিএসজি পঞ্চদশ মিনিটে প্রথম সুযোগ পায়। ক্রসবারের ওপর দিয়ে উড়িয়ে মারেন আনহেল দি মারিয়া। ২৪তম মিনিটে একইভাবে শট করেন দানিলোও।

মাঝে কয়েক মিনিটের মধ্যে ভালো দুটি সুযোগ তৈরি করে রাঁস। ফরাসি ডিফেন্ডার ব্রাডলি লোকোর নিচু শট ঠেকিয়ে জাল অক্ষত রাখেন গোলরক্ষক কেইলর নাভাস। ফরোয়ার্ড একিতিকের শট পোস্টের বাইরে দিয়ে যায়।

বিরতির আগে ‘ডেডলক’ ভাঙেন ভেরাত্তি। ডি-বক্সে শুরুতে মাউরো ইকার্দির শট ঠেকান এক ডিফেন্ডার, বল পেয়ে বাঁ পায়ের জোরাল শটে ঠিকানা খুঁজে নেন ইতালিয়ান মিডফিল্ডার। ২০১৭ সালের পর লিগে ভেরাত্তির এটি প্রথম গোল।

দ্বিতীয়ার্ধের প্রথম ১০ মিনিটে দুটি সুযোগ পায় রাঁস। এমবুকুর শট ঠেকান নাভাস। ক্রসবারের ওপর দিয়ে উড়িয়ে মারেন দিওন লপি।

৬২তম মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন রামোস। কর্নার ঠিকমতো ক্লিয়ার করতে পারেনি সফরকারীরা। রামোসের শট প্রথমে গোলরক্ষক ঠেকালেও ফিরতি বল জালে পাঠান সাবেক রিয়াল মাদ্রিদ ডিফেন্ডার।

পিএসজির হয়ে পঞ্চম ম্যাচে প্রথম জালের দেখা পেলেন এই স্প্যানিশ তারকা।

এরপরই দি মারিয়ার জায়গায় মেসিকে নামান পিএসজি কোচ পচেত্তিনো। গত ২২ ডিসেম্বরের পর প্রথমবার ক্লাবের হয়ে মাঠে নামলেন তিনি। মাঝে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ায় বাইরে ছিলেন রেকর্ড সাতবারের ব্যালন ডি’অর জয়ী তারকা।

বদলি নেমেই আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ড রাখেন প্রভাব। কর্নারে ছোট করে তিনি বল বাড়ান ভেরাত্তিকে। তার শট প্রতিপক্ষের ফায়েসের গায়ে লেগে জালে জড়ায়।

৭৫তম মিনিটে স্কোরলাইন ৪-০ করেন দানিলো। কিলিয়ান এমবাপের পাস থেকে পর্তুগিজ মিডফিল্ডারের শট প্রতিপক্ষের একজনের গায়ে লেগে জালে আশ্রয় নেয়, কিছুই করার ছিল না গোলরক্ষকের।

শেষ দিকে জালে বল পাঠান ইকার্দি, কিন্তু এর আগ মুহূর্তে এই আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ডের হাতে বল লাগায় গোল মেলেনি।

২২ ম্যাচে ১৬ জয় ও পাঁচ ড্রয়ে পিএসজির পয়েন্ট হলো ৫৩। সমান ম্যাচে ৪২ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে আছে নিস। তিন নম্বরে মার্সেইয়ের ২১ ম্যাচে ৪০ পয়েন্ট।