পছন্দের খবর জেনে নিন সঙ্গে সঙ্গে

ফাইনালের আগে আবারও রিয়ালের হোঁচট

  • স্পোর্টস ডেস্ক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2022-05-21 03:00:43 BdST

অনেকটাই যেন চ্যাম্পিয়ন্স লিগ ফাইনালের মহড়া! নিয়মিতদের প্রায় সবাইকে রিয়াল বেতিসের বিপক্ষে শুরুর একাদশে রাখলেন কোচ কার্লো আনচেলত্তি। প্রথমার্ধে খুব বেশি সুযোগ যদিও তৈরি করতে পারল না রিয়াল মাদ্রিদ। বিরতির পর একের পর এক আক্রমণে প্রতিপক্ষকে কাঁপিয়ে দিলেও মিলল না কাঙ্ক্ষিত গোলের দেখা। লিগে চ্যাম্পিয়নদের শেষটা তাই জয়ে রাঙানো হলো না। 

সান্তিয়াগো বের্নাবেউয়ে শুক্রবার রাতে চলতি মৌসুমে লা লিগায় রিয়াল মাদ্রিদের শেষ ম্যাচটি গোলশূন্য ড্র হয়েছে।

স্পেনের সফলতম দলটি লিগ শিরোপা নিশ্চিত করে চার ম্যাচ বাকি থাকতেই। কিন্তু এই চার ম্যাচে তাদের জয় কেবল একটি। শেষ দুটিই হলো ড্র, মাঝে হার একটি। আগামী ২৮ মে প্যারিসে লিভারপুলের বিপক্ষে ইউরোপ সেরার শিরোপা লড়াইয়ের আগে যা রিয়াল মাদ্রিদ কোচের জন্য দুর্ভাবনারও।

বিস্ময়কর হলেও সত্যি, বের্নাবেউয়ে রিয়াল বেতিসের বিপক্ষে লিগে এই নিয়ে টানা পাঁচ ম্যাচে গোল করতে ব্যর্থ হলো রিয়াল মাদ্রিদ। সবশেষ তিনটিই শেষ হলো গোলশূন্য ড্রয়ে। তার আগের দুটিতে মাদ্রিদের দলটি হেরেছিল যথাক্রমে ২-০ ও ১-০ গোলে।

আগের রাউন্ডে কাদিসের বিপক্ষে ১-১ ড্র ম্যাচ থেকে একাদশে ছয়টি পরিবর্তন আনেন আনচেলত্তি। পোস্টের নিচে ফেরেন থিবো কোর্তোয়া, সঙ্গে দানি কারভাহাল, ফেরলঁদ মঁদি, লুকা মদ্রিচ, করিম বেনজেমা ও ভিনিসিউস জুনিয়র।

মৌসুম শেষে রিয়ালের সঙ্গে চুক্তির মেয়াদ শেষ হতে যাওয়া গ্যারেথ বেলের বের্নাবেউয়ে এটিই হয়ে রইল শেষ ম্যাচ। তবে স্কোয়াডে থাকলেও একাদশে তো নয়ই, তাকে বেঞ্চেও রাখা হয়নি। গ্যালারিতে বসে খেলা দেখেন ওয়েলস ফরোয়ার্ড। 

শুরুতে প্রতিপক্ষকে চেপে ধরে রিয়াল মাদ্রিদ। চতুর্থ মিনিটে বেনজেমার উদ্দেশ্যে দারুণ থ্রু বল বাড়ান ভিনিসিউস। তবে প্রস্তুত ছিলেন রিয়াল বেতিস গোলরক্ষক রুই সিলভা, এগিয়ে এসে বল ধরে ফেলেন তিনি।

অষ্টম মিনিটে বাঁ দিকের বাইলাইনের কাছ থেকে মঁদির পাস পেয়ে শট নেন বেনজেমা, ঠেকিয়ে দেন প্রতিপক্ষের এক ডিফেন্ডার। ফিরতি বলে টনি ক্রুসের শট বাইরে দিয়ে যায়।

২০তম মিনিটে কাসেমিরো নিজেদের ডি-বক্সের সামনে বলের নিয়ন্ত্রণ হারালে পেয়ে যান নাবিল ফেকির। তিনি বাড়ান উইলিয়ান জোসেকে। এই ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ডের শট পোস্টের সামান্য বাইরে দিয়ে যায়।

মাঝে রিয়াল মাদ্রিদ পারছিল না তেমন সুযোগ তৈরি করতে। ৪০তম মিনিটে বাঁ দিক থেকে ভিনিসিউস ক্রস বাড়ান ডি-বক্সে। লাফিয়ে বলের নাগাল পাননি বেনজেমা। বিরতির আগে বল ধরে অনেকটা এগিয়ে ডি-বক্সের সামনে থেকে নিচু শট নেন কাসেমিরো। তবে পোস্টের বাইরে দিয়ে যায় বল।

প্রথমার্ধে বল দখলে দুই দল ছিল সমানে-সমান। রিয়াল মাদ্রিদের পাঁচ শটের কেবল একটি ছিল লক্ষ্যে। ডি-বক্সের বাইরে থেকে মদ্রিচের সেই শটে সহজেই বল ধরে ফেলেন সিলভা। এই সময়ে সফরকারীদের সাত শটের একটি লক্ষ্যে ছিল।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে কাসেমিরোকে তুলে এদুয়ার্দো কামাভিঙ্গা ও ক্রুসের জায়গায় ফেদেরিকো ভালভেরদেকে নামান আনচেলত্তি।

৫১তম মিনিটে তখনও পর্যন্ত ম্যাচের সেরা সুযোগটি পায় স্বাগতিকরা। ডান দিক থেকে কারভাহালের ক্রসে ডি-বক্সে বেনজেমার নেওয়া শট ঠেকান গোলরক্ষক। ফিরতি বলে রদ্রিগোর প্রচেষ্টা বাইরে দিয়ে যায়। এক মিনিট পর বক্সের বাইরে থেকে বেনজেমার শট লক্ষ্যে থাকেনি।

৫৮তম মিনিটে তার আরেকটি শট একইভাবে বাইরে দিয়ে যায়। দুই মিনিট পর বক্সের বাইরে থেকে কামাভিঙ্গার জোরাল শট ঠেকান সিলভা।

মৌসুম শেষে রিয়াল মাদ্রিদের সঙ্গে চুক্তি শেষ হতে যাওয়া আরেক খেলোয়াড় মার্সেলো ৭০তম মিনিটে বদলি নামেন মঁদির জায়গায়।

৮২তম মিনিটে বেনজেমার শট উড়ে যায় ক্রসবারের ওপর দিয়ে। এক মিনিট পর আরেকটি সুযোগ পান তিনি। ভিনিসিউসের ক্রস ডি-বক্সে বুক দিয়ে নামিয়ে দুরূহ কোণ থেকে তার এই প্রচেষ্টাও উড়ে যায় ওপর দিয়ে।

নির্ধারিত সময়ের তিন মিনিট বাকি থাকতে সুবর্ণ সুযোগ হাতছাড়া করেন রিয়াল বেতিসের হোয়াকিন। কাছ থেকে উড়িয়ে মারেন অরক্ষিত এই স্প্যানিশ উইঙ্গার।

যোগ করা সময়ে আরেকটি সুযোগ আসে বেনজেমার সামনে। মার্সেলোর ক্রসে ডি-বক্সে হেড লক্ষ্যে রাখতে পারেননি আসরের সর্বোচ্চ গোলদাতা (২৭ গোল)।

৩৮ ম্যাচে ২৬ জয় ও ৮ ড্রয়ে ৮৬ পয়েন্ট নিয়ে লিগ শেষ করল রিয়াল মাদ্রিদ।

এই মৌসুমের কোপা দেল রে চ্যাম্পিয়ন রিয়াল বেতিস ৩৮ ম্যাচে ৬৫ পয়েন্ট নিয়ে পাঁচে থেকে লিগ শেষ করল।