২৬ মে ২০১৯, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬

পুঁজিবাজারে উল্লম্ফন:১১ দিন ধরে বাড়ছে সূচক

  • নিজস্ব প্রতিবেদক বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2019-01-06 19:35:20 BdST

bdnews24

বাংলাদেশের পুঁজিবাজারে চাঙ্গাভাব অব্যাহত রয়েছে। মূল্যসূচকের পাশপাশি বাড়ছে লেনদেন।

টানা ১১ দিন ধরে বাড়ছে দুই বাজারের সূচক।

সপ্তাহের প্রথম দিন রোববার প্রধান বাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) প্রধান সূচক ডিএসইএক্স  ৯৬ দশমিক ৫৩ পয়েন্ট বেড়েছে।লেনদেন হয়েছে এক হাজার ২৬ প্রায় ৭৬ লাখ টাকা।

লেনদেনের এই অংক গত চার মাসের মধ্যে সর্বোচ্চ। এর আগে গত বছরের ১৩ সেপ্টেম্বর এই বাজারে ১ হাজার ৬৫ কোটি টাকার শেয়ার হাতবদল হয়েছিল।

লেনদেনে অংশ নেয়া কোম্পানিগুলোর মধ্যে ২৬৫টির দর বেড়েছে। কমেছে ৬২টির। আর অপরিবর্তি আছে ১৯টির দর।২০১০ সালের ধসের পর যে বিনিয়োগকারীরা বাজার থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছিলেন তারা আবার ফিরছেন।

বাজার বিশ্লেষকরা বলছেন, ৩০ ডিসেম্বরের জাতীয় নির্বাচনের পর বাজারে আস্থা ফিরতে শুরু করেছে। বিনিয়োগকারীরা বাজারমুখী হয়েছেন। সে কারণেই চাঙ্গাভাব দেখা যাচ্ছে বাজারে।

এ পরিস্থিতিতে যতো দ্রুত সম্ভব ভালো ভালো শেয়ার বাজারে আনার পরামর্শ দিয়েছেন তারা।

জাতীয় নির্বাচনের কয়েক দিন আগে থেকেই বাজারে অল্প অল্প সূচক বাড়তে শুরু করে।ভোটের পর সূচক বাড়ছে বেশ গতিতে।

ভোটের আগে ১৭ ডিসেম্বর থেকে পুঁজিবাজারে সূচক বাড়তে শুরু করে। ঐ দিন ডিএসইতে ডিএসইএক্স ছিল ৫ হাজার ২১৮ পয়েন্ট।

এরপর টানা ১০ কার্য দিবসে ডিএসইএক্স ৩৭২ পয়েন্ট বেড়ে গত সপ্তাহের শেষ দিন বৃহস্পতিবার ৫ হাজার ৫৯০ পয়েন্টে দাঁড়ায়।

চলতি সপ্তাহের প্রথম দিন রোববার ঊর্ধ্বমুখি প্রবণতা নিয়ে শুরু হয় লেনদেন। সময় বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে বাড়তে থাকে সূচক।শেষ পর‌্যন্ত  ৯৬ দশমিক ৫৩ পয়েন্ট বেড়ে সূচক দাঁড়িয়েছে ৫ হাজার ৬৮৭ পয়েন্টে।

এই ১১ দিনে ডিএসইএক্স বেড়েছে প্রায় ৪৭০ পয়েন্ট।

একই ভাব লক্ষ্য করা যায় চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই)। সিএসইর সার্বিক সূচক সিএএসপিআই বেড়েছে ২৯৩ পয়েন্ট।

ডিএসইর সাবেক সভাপতি রকিবুর রহমান বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, ভোটের পর সবার মধ্যে আশার সঞ্চার হয়েছে যে, বাজার ভালো হবে। নতুন সরকার বাজারের দিকে নজর দেবেন। শিল্প স্থাপনের জন্য ব্যাংক থেকে ঋণ না নিয়ে পুঁজিবাজার থেকে অর্থ সংগ্রহের বিষয়টি নিশ্চিত করা হবে।

“এ সব কারণে ২০১০ সালের ধসের পর যে সব বিনিয়োগকারী বাজার থেকে চলে গিয়েছিল তারা আবার ফিরে আসছে। একইসঙ্গে নতুন বিনিয়োগকারীরাও বাজারে ঢুকছে। তাই শেয়ার ক্রয় বেড়ে গেছে এবং সূচক বাড়ছে।”

এ পরিস্থিতিতে বিনিয়োগকারীদের গুজবে কান না দিয়ে দেখেশুনে বিনিয়োগ করার আহ্বান জানিয়ে রকিবুর রহমান বলেন, “বাজারে এখন প্রচুর ভালো শেয়ার প্রয়োজন। সরকার বা বিএসইসি দ্রুত পদক্ষেপ নিতে হবে।”

অন্যদিকে বাজারে যাতে কোন মহল কোন ধরনের কারসাজি করার সুযোগ না পায় সে ব্যাপারেও সবাইকে সতর্ক থাকার পরামর্শ দিয়েছেন ডিএসইর সাবেক সভাপতি রকিবুর রহমান।

ডিএসই ব্রোকারস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (ডিবিএ) সভাপতি শাকিল রিজভী বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “ভোটকে কেন্দ্র করে নানা ধরনের আতঙ্ক-শঙ্কা ছিল। সবকিছু কাটিয়ে আওয়ামীলীগের নেতৃত্বাধীন মহাজোট সরকার ফের ক্ষমতায় আসায় বাজারে চাঙ্গাভাব দেখা দিয়েছে।

 প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আবার প্রধানমন্ত্রী হচ্ছেন। দেশের আরও উন্নয়ন হবে। পদ্মা সেতুসহ যে সব বড় বড় প্রকল্পের কাজ শুরু হয়েছে সেগুলো শেষ হবে।”

“বিনিয়োগকারীদের মধ্যে আস্থা ফিরে এসেছে। এ আস্থা উন্নয়নের প্রতি; শেখ হাসিনার প্রতি। আর এ আস্থার কারণেই ভোটের পর প্রথম লেনদেনেই তেজিভাব দেখা দেয় বাজারে। বুধবারও তা অব্যাহত ছিল।”

‘আগামী দিনগুলোতে বাজার আরও ভালো হবে’ জানিয়ে তিনি বলেন, “অনেক শেয়ারের দর একেবারে তলানীতে…। সেগুলোর দাম বাড়তে শুরু করলে বাজার গতি পাবে।”

বাজার বিশ্লেষণে দেখা যায়, ডিএসইএস বা শরীয়াহ সূচক ২৩ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ১ হাজার ২৯৫ পয়েন্টে এবং ডিএস৩০ সূচক ৩২ পয়েন্ট বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১ হাজার ৯৭৪ পয়েন্টে।

অপরদিকে সিএসইতে লেনদেনে অংশ নিয়েছে ২৭৩টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ড। এর মধ্যে দর বেড়েছে ১৯৮টির, কমেছে ৫৯টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ১৬টির।