গ্রামীণফোনের ‘ভার্চুয়াল’ এজিএমে ১৩০% লভ্যাংশ অনুমোদন

  • জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2020-04-21 19:53:02 BdST

কোভিড-১৯ সঙ্কটের কারণে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের নির্দেশনা অনুযায়ী ও উপস্থিত শোয়ারহোল্ডার, কর্মী ও অন্যান্য সদস্যদের স্বাস্থ্য সুরক্ষার বিষয়টি নিশ্চিত করে এ বছর গ্রামীণফোন ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে বার্ষিক সাধারণ সভা করেছে।

মঙ্গলবার গ্রামীণফোনের এই বার্ষিক সাধারণ সভায় (এজিএম) ১৩০ শতাংশ লভ্যাংশ অনুমোদিত হয় বলে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে।

এতে বলা হয়,গ্রামীণফোন লিমিটেডের পরিচালনা পর্ষদ পরিশোধিত মূলধনের ৪০ শতাংশ হারে (প্রতি ১০ টাকার শেয়ারে ৪ টাকা) ২০১৯-এর চূড়ান্ত আর্থিক লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে। এর মধ্য দিয়ে পরিশোধিত মূলধনের মোট চূড়ান্ত লভ্যাংশের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ১৩০ শতাংশ (৯০ শতাংশ অন্তর্বর্তী নগদ লভ্যাংশ অন্তর্ভুক্ত), কর বাদ দিলে ২০১৯ সালে লভ্যাংশের পরিমাণ ৫০ দশমিক ৮৬ শতাংশ।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, “ভার্চুয়াল এজিএমের ধারণাটি বাংলাদেশে সম্পূর্ণ নতুন, আর গ্রামীণফোনও প্রথমবারের মতো ভার্চুয়ালি অনুষ্ঠিত ২৩তম বার্ষিক সাধারণ সভায় শেয়ারহোল্ডারের উপস্থিতি নিশ্চিত করার পাশাপাশি এ সভাকে অর্থবহ ও অংশগ্রহণমূলক করার লক্ষ্যে এজিএমটিকে বিশেষভাবে ডিজাইন করে।”

গ্রামীণফোনের কোম্পানি সেক্রেটারি এস এম ইমদাদুল হকের পরিচালনায় ভার্চুয়াল এজিএমে অংশ নেন গ্রামীণফোনের বোর্ড চেয়ারম্যান পিটার বি ফারবার্গ, প্রধান নির্বাহী ইয়াসির আজমানসহ বোর্ডের সদস্যরা এবং প্রতিষ্ঠানটির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

ফারবার্গ বলেন, “বিশ্ব আজ কোভিড ১৯ মহামারী মোকাবিলা করছে, এ সময় যারা প্রিয়জন হারিয়েছেন, তাদের জন্য আমার সমবেদনা। এই পরিস্থিতিতে সবাইকে আমরা সতর্ক থাকার আহ্বান জানাই এবং মানুষের সুরক্ষা নিশ্চিত করার পাশাপাশি সামনে এগিয়ে যাওয়ার জন্য জন্য সবার সহযোগিতা কামনা করি।”

গ্রামীণফোন জানায়, বাংলাদেশে কোভিড-১৯ এর বিস্তার ঠেকাতে গ্রামীণফোন কর্মী, অংশীদার, গ্রাহক ও শেয়ারহোল্ডারদের সুরক্ষার বিষয়ে অগ্রাধিকার দিচ্ছে।

এ প্রচেষ্টার অংশ হিসেবে গ্রামীণফোন চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যসেবাকর্মীদের সহায়তা করার লক্ষ্যে ৫০ হাজার মেডিকেল গ্রেড ব্যক্তিগত সুরক্ষা সরঞ্জাম (পিপিই) এবং ১০ হাজার টেস্টিং কিট দেওয়ার দিচ্ছে বলে বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়।