পছন্দের খবর জেনে নিন সঙ্গে সঙ্গে

সাত দিন পর ঘুরে দাঁড়াল সূচক

  • নিজস্ব প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2021-10-21 17:45:27 BdST

সাত দিনের দরপতনের পর ঘুরে দাঁড়িয়েছে বাংলাদেশের পুঁজিবাজারে শেয়ারের মূল্যসূচক।

টানা পতনে প্রায় সাড়ে তিনশ পয়েন্ট হারানোর পর বৃহস্পতিবার দিন শেষে ঢাকায় দেশের প্রধান পুঁজিবাজারের সূচকে ৫৫ পয়েন্ট বা প্রায় দশমিক ৮ শতাংশ যোগ হয়েছে।

ধারাবাহিক পতনে মূল্য সংশোধন হওয়ার পর পুঁজিবাজার ঘুরে দাঁড়াচ্ছে বলে সংশ্লিষ্টরা মনে করে করছেন।

এর মধ্যে মঙ্গলবার নিয়ন্ত্রিক সংস্থা বিএসইসির সঙ্গে মার্চেন্ট ব্যাংক ও ব্রোকারেজ হাউসসহ বাজার সংশ্লিষ্ট শীর্ষ প্রতিনিধিদের যে বৈঠক হয়, তার সুপ্রভাবও বাজারে পড়ে থাকতে পারে।

মার্চেন্ট ব্যাংকের বন্ড ছাড়ার প্রস্তাবে বিএসইসির সায়  

আগের দিন বন্ধ থাকার পর বৃহস্পতিবার লেনদেন শুরুর হলে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) মন্দা পরিস্থিতি ছিল। তবে শেষ এক ঘণ্টায় বেড়ে যায়।

দিন শেষে প্রধান সূচক ডিএসইএক্স আগের দিন থেকে ৫৫ দশমিক ৬২ পয়েন্ট বা দশমিক ৭৯ শতাংশ বেড়ে ৭ হাজার ৭৬ দশমিক ২৩ পয়েন্টে ঠেকে। এর আগে সাত কার্যদিবসে ৩৪৭ পয়েন্ট সূচক হারায় ডিএসই।

পুঁজিবাজার বিশেষজ্ঞ অর্থনীতির অধ্যাপক আবু আহমেদ বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “শেয়ারের দাম অনেক কমে গিয়েছিল। বড় পতনে বেশি কিছু শেয়ারের দাম খুব সস্তা হয়ে গিয়েছিল। বিনিয়োগকারীরা সেগুলো কিনতে শুরু করায় পুঁজিবাজারে সূচক আবার বেড়ে গেছে।”

সূচক বাড়লেও বৃহস্পতিবার পুঁজিবাজারে লেনদেনের পরিমাণ আগের কার্যদিবসের চেয়ে কমেছে। ডিএসইতে লেনদেন ৩৭১ কোটি ৮৮ লাখ টাকা বা ২২ দশমিক ১০ শতাংশ কমেছে।

ঢাকায় এদিন ১ হাজার ৩১০ কোটি ৯৭ লাখ টাকার শেয়ার হাতবদল হয়, যা আগের কর্মদিবসে ছিল একহাজার ৬৮২ কোটি ৮৫ লাখ টাকা।

বৃহস্পতিবার ডিএসইতে হাতবদল হওয়া ৪৮ শতাংশ কোম্পানির দাম কমেছে। এর বিপরীতে ৪১ শতাংশের দাম বেড়েছে এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ১১ শতাংশ কোম্পানির শেয়ারের দাম।

ঢাকায় লেনদেনে হয়েছে ৩৭৪টি কোম্পানির শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট। এর মধ্যে দর বেড়েছে ১৫৩টির এবং কমেছে ১৭৯টির। অপরিবর্তিত রয়েছে ৪২টির দর।

ঢাকার অন্য দুই সূচকের মধ্যে ডিএসইএস বা শরীয়াহ সূচক ১৩ দশমিক ২৪ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ১ হাজার ৫১৮ দশমিক ১৬ পয়েন্টে।

ডিএস৩০ সূচক ৪৩ দশমিক ২৯ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ২ হাজার ৬৯৯ দশমিক ৩৪ পয়েন্টে।

লেনদেনে শীর্ষ ১০

বেক্সিমকো, আইএফআইসি, এনআরবিসি ব্যাংক, ডেল্টা লাইফ, ওরিয়ন ফার্মা, লাফার্জহোলসিম, বিএটিবিসি, বেক্সিমকো ফার্মা, জেনেক্স ইনফোসিস ও ফরচূন সুজ।

দরবৃদ্ধিতে শীর্ষ ১০

এনআরবিসি ব্যাংক, বেক্সিমকো, এডভেন্ট ফার্মা, গোল্ডেন সন, এসবিএসি ব্যাংক, এসপিসিএল, এসপি সিরামিকস, ম্যাকসন স্পিনিং, আমরা নেট ও সোনারগাঁও টেক্সটাইল।

দরপতনে শীর্ষ ১০

মিথুন নিটিং, উসমানিয়া গ্লাস, ওয়াটা কেমিক্যাল, এফএএস ফাইন্যান্স, ইসকয়ার নিটিং, শ্যামপুর সুগার, আরএন স্পিনিং, আল হাজ্বটেক্স, বিআইএফসি ও কাট্টালি টেক্সটাইল।

এদিন চট্টগ্রামের পুঁজিবাজারের প্রধান সূচক সিএএসপিআই ১৭২ দশমিক ২৮ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ২০ হাজার ৬৯৩ দশমিক ৩৫ পয়েন্টে।

তবে বৃহস্পতিবার এই বাজারে লেনদেন আগের দিনের তুলনায় ১৪ দশমিক ৩০ শতাংশ বা ৬ কোটি ৯৮ লাখ টাকা কমেছে।

এদিন মোট ৪১ কোটি ৮১ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়, যা আগের দিন ছিল ৪৮ কোটি ৭৯ লাখ টাকা।

সিএসইতে ২৭৩টি কোম্পানির শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ড কেনাবেচা হয়েছে। এর মধ্যে দর বেড়েছে ১১৪টির, কমেছে ১৩২টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ২৭টির দর।