পছন্দের খবর জেনে নিন সঙ্গে সঙ্গে

পঞ্চম দিনে গড়াল পতন

  • নিজস্ব প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2022-05-17 18:29:25 BdST

bdnews24

লেনদেনের মাঝামাঝি সময়ে সূচকের পতন একশ পয়েন্ট ছাড়ালেও শেষ দিকে শেয়ার কেনার পরিমাণ কিছুটা বাড়লে আগের দিনের মত বড় পতন এড়িয়েছে প্রধান পুঁজিবাজার ডিএসই।

দিন শেষে মঙ্গলবার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) প্রধান সূচক ডিএসইএক্স কমেছে ২৭ দশমিক ৪৩ পয়েন্ট। যদিও লেনদেনের আড়াই ঘণ্টার মাথায় ১২টা ৩৩ মিনিটে তা আগের দিনের চেয়ে ১১১ পয়েন্টের মত কমে ৬৩১৯ পয়েন্টে নেমেছিল।

শেষ দিকে অনেক শেয়ারের ক্রেতা ফেরায় আগের দিনের চেয়ে ডিএসইএক্স সূচক দশমিক ৪৩ শতাংশ কমে নেমেছে ৬ হাজার ৪০৩ দশমিক ৫১ পয়েন্টে।

এ নিয়ে গত পাঁচ দিনে ২৯৫ পয়েন্ট বা ৪ দশমিক ৪০ শতাংশ সূচক হারাল দেশের প্রধান এ পুঁজিবাজার।

মঙ্গলবার দিন শেষে ডিএসই সূচকের এ অবস্থান গত ৯ মাস ২১ দিনের মধ্যে কম। এর আগে এরচেয়ে সূচক কম ছিল গত বছরের ২৭ জুলাই। সেদিন সূচকের অবস্থান ছিল ৬৩৭৯ দশমিক ৬৭ পয়েন্ট।

আন্তর্জাতিক বাজারে পণ্যের দাম বেড়ে যাওয়া এবং দেশে সংকটে ডলারের দাম বাড়াসহ বিভিন্ন খবরে গত দুদিন ধরে একধরনের আতঙ্কে শেয়ার বিক্রি বাড়লে বড় দরপতন হয় দুই বাজারেই।

এ বিষয়ে পুঁজিবাজার বিশ্লেষক ইউনাইটেড ইন্টারন্যাশনাল বিশ্ববিদ্যালয়ের ফাইন্যান্স বিভাগের অধ্যাপক মোহাম্মদ মুসা বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “বাজারে কিছুটা আতঙ্ক কাজ করছে। রাশিয়া ও ইউক্রেনের যুদ্ধের প্রভাবে দেশে দ্রব্যমূল্য বেড়ে যাচ্ছে। তেলের দামও বাড়ছে। ডলারের দাম বেড়ে যাচ্ছে। শ্রীলঙ্কার অর্থনৈতিক অবস্থা… সব মিলিয়ে বিনিয়োগকারীরা ভয় পেয়ে গেছে।”

ঢাকার বাজারে এদিন ৭৭৯ কোটি ৭৬ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে যা আগের দিনের চেয়ে ২৩ দশমিক ৮৬ শতাংশ কম। সোমবার এ বাজারে ১ হাজার ২৪ কোটি ১৫ লাখ টাকার শেয়ার হাতবদল হয়েছিল।

এদিন ডিএসইতে মোট ৩৭৯টি কোম্পানির শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট হাতবদল হয়। এর মধ্যে ৮৯টির দর বেড়েছে, ২৪৫টির কমেছে এবং ৪৫টির দর অপরিবর্তিত রয়েছে।

ঢাকার অন্য দুই সূচকের মধ্যে ডিএসইএস বা শরীয়াহ সূচক ১ দশমিক ৫৩ পয়েন্ট কমে ১ হাজার ৪০৮ দশমিক ৭৭ পয়েন্ট হয়েছে।

আর ডিএস৩০ সূচক ২ দশমিক ২৬ পয়েন্ট কমে হয়েছে ২ হাজার ৩৬৩ দশমিক ৬৭ পয়েন্ট।

লেনদেনের শীর্ষ ১০

বেক্সিমকো লিঃ, শাইনপুকুর সিরামিকস, জেএমআই হসপিটাল, সালভো কেমিক্যাল, ফু-ওয়াং সিরামিক, লাফার্জ হোলসিম, ওরিয়ন ফার্মা, ফরচুন সুজ, এসিআই ফরমুলেশন ও ইউনিক হোটেল।

দাম বাড়ার শীর্ষ ১০

ইন্টারন্যাশনাল লিজিং, ফু-ওয়াং সিরামিক, বঙ্গজ লিঃ, ড্যাফোডিল কম্পিউটার, সালভো কেমিক্যাল, লাফার্জহোলসিম, ফার্মা এইড, এফএএস ফাইন্যান্স, তিতাস গ্যাস ও নিউ লাইন ক্লথিং।

সবচেয়ে বেশি দর হারানো ১০

আর ডি ফুড, সোনারবাংলা ইন্স্যুরেন্স, আইপিডিসি, রেনউইক যজ্ঞেশ্বর, জুট স্পিনার্স, মেঘনা কন্ডেন্সেড মিল্ক, বিএনআইসিএল, সাভার রিফ্রেক্টরিজ, পিপলস ইন্স্যুরেন্স ও মাইডান ফাইন্যান্স।

চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জেও (সিএসই) এদিন সূচক ও লেনদেন কমেছে।

এ বাজারে ২৯৩টি কোম্পানির শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ড কেনাবেচা হয়েছে। এর মধ্যে ৬৬টির দর বেড়েছে, ১৯৫টির কমেছে এবং ৩২টির দর অপরিবর্তিত রয়েছে।

বেশিরভাগ শেয়ারের দাম কমায় প্রধান সূচক সিএএসপিআই ১২১ দশমিক ৩৯ পয়েন্ট কমে হয়েছে ১৮ হাজার ৭৪৫ দশমিক ১৭ পয়েন্ট। সূচক কমার হার ছিল দশমিক ৬৪ শতাংশ।

এ নিয়ে গত পাঁচ দিনে ৮৯৪ পয়েন্ট বা ৪ দশমিক ৫৫ শতাংশ সূচক হারাল দেশের দ্বিতীয় পুঁজিবাজার।

মঙ্গলবার এ বাজারে লেনদেন আগের দিনের তুলনায় ১৫ কোটি ৩৪ লাখ টাকা কমে ২৭ কোটি ৯৪ লাখ টাকা হয়েছে। আগের দিন লেনদেন হয়েছিল ৪৩ কোটি ২৮ লাখ টাকার শেয়ার।