২৫ মার্চ ২০১৯, ১১ চৈত্র ১৪২৫

সামহোয়্যারইনব্লগে ঢুকতে সমস্যা হচ্ছে, অভিযোগ কর্তৃপক্ষের

  • নিউজ ডেস্ক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2019-02-22 19:04:35 BdST

bdnews24

দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে জনপ্রিয় ব্লগ সাইট ‘সামহোয়্যারইনব্লগ’ দেখতে সমস্যা হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন এর সঙ্গে যুক্ত অনলাইন অ্যাকটিভিস্টরা।

এই ব্লগে প্রকাশিত এক নোটিসে বলা হয়েছে, বিভিন্ন আইএসপি থেকে সামহোয়্যারইন ব্লগে প্রবেশ করতে সমস্যা হচ্ছে। বিটিআরসির কোনো পদক্ষেপেই এটা ঘটছে বলে সেখানে ইংগিত দেওয়া হয়েছে।   

তবে বিটিআরসি বলছে, সামহোয়্যারইনব্লগ বন্ধের কোনো নির্দেশনা তাদের পক্ষ থেকে দেওয়া হয়নি।

ব্লগটির প্রতিষ্ঠাতা সৈয়দা গুলশান ফেরদৌস জানা বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, ‘বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যম থেকে’ তারা জানতে পেরেছেন, পর্ন ও জুয়ার সাইট বন্ধ করার জন্য সরকারের তরফ থেকে ‘একটি তালিকা’ আইএসপিগুলোকে পাঠানো হয়েছে, সেখানে সামহোয়্যারইনব্লগের নামও রয়েছে। 

তিনি ক্ষোভের সঙ্গে বলেন, “প্রযুক্তির সবচেয়ে বড় মাথার জায়গাটায় যদি এত অপেশাদারিত্ব থাকে, এটা খুব দুঃখজনক ব্যাপার। আমরা আরেকটু সহনশীলতা চাই। আরেকটুখানি বোধশক্তি সম্পন্ন লোকজন ওই জায়গাটাতে চাই, যারা বুঝতে পারবেন, অন্ততপক্ষে ডিফার করতে পারবেন যে কী পর্ন আর কী পর্ন নয়।”  

জানা বলেন, তাদের সাইটে ঢুকতে সমস্যা হওয়ার বিষয়টি তিনি জানতে পারেন গত ১৭ ফেব্রুয়ারি। ব্লগারদের অনেকেই মেইল করে তাকে সমস্যার কথা বলেন। বিদেশ থেকে সামহোয়্যারইনব্লগ দেখা গেলেও দেশে অনেকেই সাইটে ঢুকতে পারছিলেন না।

সাইটের সার্ভার সিসটেম ও গুগল অ্যানালিটিকসের ভিজিটর পরিসংখ্যানেও এ সমস্যার বিষয়টি স্পষ্ট বলে দাবি করেন সামহোয়্যারইনব্লগের প্রতিষ্ঠাতা।

“আমি চেক করে দেখেছি বড় একটা ধস নেমেছে কয়েকটি আইএসপি থেকে। যেমন একটি মোবাইল অপারেটর থেকে ইউজার ফল করেছে মোর দ্যান ৭৮ পারসেন্ট। আরেকটি মোবাইল অপারেটরে ৩২ পারসেন্ট ফল করেছে।” 

এ বিষয়ে বিটিআরসিকে লিখিতভাবে জানানো হলেও তাদের তরফ থেকে জবাব পাওয়া যায়নি বলে অভিযোগ সৈয়দা গুলশান ফেরদৌস জানার।

এ বিষয়ে জানতে বিটিআরসির জ্যেষ্ঠ সহকারী পরিচালক (গণমাধ্যম) জাকির হোসেন খানের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে তিনি বলেন, সামহোয়্যারইন ব্লগের অভিযোগ সঠিক নয়।

“বিটিআরসির এমনিতেই লোকবল কম। এগুলো নিয়ে ছুটোছুটি করে দেখি যে আদৌ কিছু হয়নি। ব্লগ বন্ধ করার বিষয়ে আমরা কোনো নির্দেশনা দিইনি।”