২৪ আগস্ট ২০১৯, ৯ ভাদ্র ১৪২৬

ফেইসবুকে ভর দিয়ে ভুয়া রিভিউ অ্যামাজনে

  • প্রযুক্তি ডেস্ক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2019-08-06 17:44:12 BdST

bdnews24
ছবি- রয়টার্স

অনলাইন শপ থেকে কোনো পণ্য কিনলেন কারণ ওই পণ্যের গ্রাহক রিভিউ অসম্ভব ভালো ছিল। পণ্য হাতে পাওয়ার পর আপনার মাথায় হাত!

রিভিউতে মান যেমনটা বলা হয়ছিল, আসলে মান তার ধারেকাছেও না- এমন অভিজ্ঞতা কি হয়েছে আপনার? কেবল বাংলাদেশ নয়, এই সমস্যার মুখোমুখি মার্কিন প্রতিষ্ঠান অ্যামাজনও- যাকে বলা হয় অনলাইন মার্কটপ্লেস হিসেবে বিশ্বে সর্ববৃহৎ।

গ্রাহক এবং অ্যামাজন দুই পক্ষকেই প্রতারণার মুখে ঠেলে দেওয়া এইসব ভুয়া রিভিউ নানাভাবেই পোস্ট করা হয়। আর এই ভুয়া রিভিউয়ের অন্যতম বড় উৎস হচ্ছে বিশ্বের আরেক বড় প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান ফেইসবুক।

মার্কিন সংগঠন ’হুইচ?’ কাজ করে ক্রেতা স্বার্থ নিয়ে। হুইচ?-এর সাম্প্রতিক এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে ফেইসবুকে এখনও কিছু সংঘবদ্ধ গ্রুপ ক্রমাগত অ্যামাজনে পণ্যের ভুয়া ‍রিভিউ পোস্ট করার কাজটি করে যাচ্ছে।

ফেইসবুক অবশ্য আগেই বলেছে তারা ভুয়া রিভিউ/লাইক দেওয়ার এইসব চক্রকে ঝেঁটিয়ে বিদায় করেছে।

ফেইসবুক নিজেদের পক্ষে সাফাই গাইলেও বাস্তবতা আসলে ভিন্ন।

হুইচ? বলছে তারা বিষয়টি খতিয়ে দেখতে বেনামে ফেইসবুকে ১০টি গ্রুপে যোগ দেয়। দেখা যায়, ৩০ দিনে ওইসব গ্রুপ থেকে ৫৫ হাজারেরও বেশি পোস্ট করা হয়েছে এমন সব গ্রুপে যেখানে অ্যামাজনে ভালো রিভিউয়ের পুরস্কার হিসেবে বিভিন্ন পণ্য বিনাপয়সায় দেওয়া হয়। 

হুইচ?-এর পণ্য বিভিাগের প্রধান নাটালি হিচিনস এজন্য দায়ী করেছেন ফেইসবুককে। তিনি বলছেন- ”ফেইসবুক ভোক্তাদেরকে ভুয়া রিভিউয়ের শিকার বানিয়ে মানহীন ও বিপদজনক পণ্য তাদের হাতে তুলে দিচ্ছে।”

”ফেইসবুকের উচিৎ ছিল অভিযোগ পাওয়ামাত্রই এইসব গ্রুপের বিরুদ্ধে দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়া এবং এই ধরনের আরো গ্রুপ খুঁজে বের করা।” এ কাজে তিনি কনজিউমার অ্যান্ড মার্কেট অথরিটির (সিএমএ) হস্তক্ষেপও কামনা করেছেন তিনি।

ব্রিটেনের কনজিউমার অ্যান্ড মার্কেট অথরিটির ক্রেতা অধিকার বিভাগের জ্যেষ্ঠ পরিচালক জর্জ লাস্টি বলেন, ফেইসবুক বিভিন্ন গ্রুপ বন্ধ করে দেওয়ার পরও এইসব ভিভিউ ফিরে ফিরে আসার বিষয়টি ”অগ্রহনযোগ্য”।

তবে, এই অগ্রহনযোগ্য বলেই কাজ সমাধা হয়ে গেল এমনটা মানতে নারাজ হুইচ?। তাদের বক্তব্য হলো, প্রয়োজনে ফেইসবুককে এইসব ভুয়া ‍রিভিউ বন্ধে “বাধ্য করা উচিৎ”।

জর্জ লাস্টি অবশ্য সমর্থনই করেছেন হুইচ?-এর দাবি। তিনি বলেন, ”ফেইসবুকের অবশ্যই এইসব ভুয়া রিভিউ বন্ধে দরকারি পদক্ষেপ নিতে হবে এবং এগুলো যেন আবার না গজায় সেই ব্যবস্থাটিও নিশ্চিৎ করতে হবে।”

”এটা কেবল শুরু। ভুয়া রিভিউ বন্ধে আমরা আরও ব্যবস্থা নেব”- বলেন তিনি।