২০ নভেম্বর ২০১৯, ৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

সাশ্রয়ী ‘ব্লকচেইন ফোন’ আনলো এইচটিসি

  • আজরাফ আল মূতী, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2019-10-20 16:13:06 BdST

bdnews24
ছবি: এইচটিসি

সাশ্রয়ী সংস্করণের নতুন ব্লকচেইন-বান্ধব স্মার্টফোন বাজারে এনেছে তাইওয়ানিজ প্রযুক্তিপণ্য নির্মাতা এইচটিসি। মূলত এইচটিসি’র তৈরি এক্সোডাস ১ স্মার্টফোনের সস্তা সংস্করণ নতুন এ ফোনটি। ক্রেতাদের ব্লকচেইন-বান্ধব ফোনের দিকে আকৃষ্ট করা এবং দামী স্মার্টফোন কেনার রেওয়াজ থেকে বের করে নিয়ে আসার লক্ষ্যেই এই স্বল্পমূল্যের ফোন তৈরির উদ্যোগটি নিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি।

শনিবার এক্সোডাস ১এস উন্মুক্ত করেছে এইচটিসি। ফোনটি দেখতে এইচটিসি’র এক্সোডাস ১-এর তুলনায়  খানিকটা ছোট। গত বছর প্রথম বাজারে আসে এক্সোডাস ১ । সে সময় বিটকয়েন মূল্যে ফোনটির দাম ধরা হয়েছিল ০.১৫ বিটকয়েন, বর্তমানের হিসেবে ফোনটির মূল্য এসে দাঁড়ায় ১ হাজার ১৮৯ ডলারেরও বেশি। পরবর্তীতে অবশ্য প্রচলিত মুদ্রায় কেনার ক্ষেত্রে ফোনটির দাম রাখা হয়েছে ৬৯৯ ডলার।

এইচটিসি বলছে, নতুন এক্সোডাস ১এস নামের ওই ফোনটিতে ক্রিপ্টোকারেন্সি সম্পর্কিত বেশ কিছু ফিচার থাকছে, যেগুলোর সহায়তায় ব্যবহারকারীরা খুব সহজেই নিজের ডিজিটাল সম্পদের লেনদেন, ধার দেওয়া এবং নেওয়ার কাজগুলো করতে পারবেন। এক্সোডাস ১এস এর মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ২৪৪ ডলার --- খবর সিএনবিসি’র।

এক্সোডাস ১এস ক্রেতাদেরকে ‘সম্পূর্ণ বিটকয়েন নোড’ সেবা দিতে পারবে বলেই জানিয়েছে নির্মাতা প্রতিষ্ঠান এইচটিসি। বিটকয়েন ব্লকচেইন সংরক্ষণের জন্য স্মার্টফোনটিতে চারশ’ গিগাবাইটের মেমোরি কার্ড-ও থাকছে। পুরো বিষয়টি সহজ ভাষায় বললে, ফিচারটির মাধ্যমে বিটকয়েন নেটওয়ার্কে হওয়া প্রতিটি লেনদেন সম্পর্কে নিশ্চিত হতে পারবেন ব্যবহারকারী। 

উল্লেখ্য, বিটকয়েন নোড মূলত ব্লকচেইনের কপি তৈরি করে সাপোর্ট নেটওয়ার্ক হিসেবে কাজ করে, ক্ষেত্রবিশেষে লেনদেন সম্পন্ন করতে-ও সাহায্য করে। প্রতিটি ক্রিপ্টোকারেন্সির নিজস্ব কিছু নোড থাকে, ওই নোড গুলোর সাহায্যে নির্দিষ্ট টোকেনে হওয়া লেনদেনের রেকর্ড সংরক্ষিত হয়। নোডের কাজ অনেকটাই ডিজিটাল খতিয়ান বইয়ের মতো।

ফিচারটি প্রসঙ্গে এইচটিসি’র কর্মকর্তা ফিল চেন বলেছেন, “এই ফিচারের কারণে ফোনে থাকা ক্রিপ্টোকারেন্সি ওয়ালেট খুব সহজেই ব্যবহারকারীর অ্যাকাউন্টের হিসেব রাখতে পারবে এবং ভবিষ্যত লেনদেনে সহায়তা করতে পারবে।” চেন আরও বলেন, “প্রাথমিকভাবে অনেকের কাছে এই বিষয়গুলোকে বিজ্ঞাপনের কৌশল মনে হতে পারে, আদতে স্মার্টফোনের ভবিষ্যত কিন্তু ক্রিপ্টো প্রযুক্তি। এজন্যই আমরা এই প্রযুক্তি নিয়ে কাজ করছি।”

সিএনবিসি জানিয়েছে, এইচটিসি বাদেও ব্লকচেইন প্রযুক্তির ফোন নিয়ে কাজ করছে দক্ষিণ কোরিয়ান ইলেকট্রনিক্স জায়ান্ট স্যামসাং এবং সুইস স্টার্ট-আপ সিরিন ল্যাবস। এইচটিসি’র নতুন এই ফোনটি প্রথমে ইউরোপ, তাইওয়ান, সৌদি আরব এবং সংযুক্ত আরব আমিরাতের বাজারে এবং পরবর্তীতে বিশ্বের অন্যান্য বাজারে আসবে।


ট্যাগ:  এইচটিসি  ক্রিপ্টোকারেন্সি  ব্লকচেইন