এবার স্ট্রিমিং মান কমানোর দলে ইউটিউব, অ্যামাজন, অ্যাপল

  • প্রযুক্তি ডেস্ক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2020-03-21 20:34:04 BdST

bdnews24

ইন্টারনেটের ওপর চাপ কমিয়ে আনতে ইউরোপে স্ট্রিমিংয়ের মান কমিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত জানিয়েছে ইউটিউব, অ্যামাজন প্রাইমের মতো স্ট্রিমিং সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানগুলো। একই কাজ করবে অ্যাপল টিভি প্লাসও।

এর আগে ইউরোপে ৩০ দিনের জন্য ভিডিওর মান কমানোর সিদ্ধান্ত নেয় স্ট্রিমিং সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান নেটফ্লিক্স। সে সময় কারণ হিসেবে প্রতিষ্ঠানটি বলেছিল- করোনাভাইরাসের কারণে ইউরোপের বড় অংশের বাসিন্দারা নিজ নিজ বাড়িতে আইসোলেশনে রয়েছেন। এতে বেড়েছে স্ট্রিমিংয়ের চাহিদা, এর ফলে গোটা ইস্টারনেট ডেটা ট্রান্সমিশনে চাপ বাড়ছিল।

মূলত ইউরোপীয় ইউনিয়নের অনুরোধ মেনেই নিজ নিজ প্ল্যাটফর্মের ভিডিওকে  ‘হাই ডেফিনেশন’ থেকে ‘স্ট্যান্ডার্ডে’ নিয়ে আসার কথা জানিয়েছে নেটফ্লিক্স ও অ্যামাজন প্রাইম। করোনাভাইরাস বাস্তবতায় বাসা থেকে কাজ করতে হচ্ছে বহু মানুষকে। এরকম অবস্থায় ইন্টারনেটের ওপর চাপ সৃষ্টি হলে বিপাকে পড়ে যাবেন বহু কর্মজীবি।  -- খবর প্রযুক্তিবিষয়ক সাইট সিনেটের।

বিষয়টি নিয়ে সরাসরি নেটফ্লিক্স প্রধান রিড হেস্টিংসের সঙ্গে কথা বলেছিলেন ইউরোপীয় কমিশনার থিয়েরি ব্রেটন। পরে বৃহস্পতিবারের এক টুইট বার্তায় ব্রেটন লিখেছেন, “নিরাপদ ইন্টারনেট প্রবেশাধিকার সবার জন্য নিশ্চিত করতে, চলুন সবাই হ্যাশট্যাগ সুইচটুস্ট্যান্ডার্ড ডেফিনেশন ব্যবহার করি যখন এইচডি দরকার নেই।” পরে ইউরোপ জুড়ে ৩০ দিনের জন্য স্ট্রিমিং মান কমিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত জানায় নেটফ্লিক্স।

সিদ্ধান্তটিকে সাধুবাদ জানিয়ে ব্রেটন লিখেছেন, “আমাদের অনুমান বলছে এটি ইউরোপীয় নেওয়ার্কে প্রায় ২৫ শতাংশ ট্রাফিক কমাবে।” এদিকে, একই কাজ করার বিষয় নিশ্চিত করেছেন একজন প্রাইম ভিডিও মুখপাত্র-ও। তিনি বলেছেন, “নেটওয়ার্কের উপর থেকে চাপ কমিয়ে এনে সহায়তা করতে স্থানীয় কর্তৃপক্ষ ও ইন্টারনেট সেবাদাতাদের সঙ্গে কাজ করছে প্রাইম। ইউরোপে আমরা এরই মধ্যে স্ট্রিমিং বিটরেট কমিয়ে দেওয়ার প্রচেষ্টা শুরু করেছি।” –এক ইমেইল বিবৃতিতে জানিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি।

অ্যাপল টিভি প্লাস সেবার স্ট্রিমিং মান কমানোর বিষয়টি নিশ্চিত করেছে মার্কিন টেক জায়ান্ট অ্যাপল-ও।