কোয়ারেন্টিনে অন্তত ১২ স্পেসএক্স কর্মী, আক্রান্ত ২

  • প্রযুক্তি ডেস্ক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2020-03-25 13:24:25 BdST

bdnews24
ছবি: রয়টার্স

কম করে হলেও ১২ জন কর্মীকে কোয়ারেন্টিনে রেখেছে স্পেসএক্স। প্রতিষ্ঠানটির সাউদার্ন ক্যালিফোর্নিয়া কারখানার একজন কর্মী ও স্বাস্থ্যকর্মী নভেল করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার পর কোয়ারেন্টিন কার্যকর করেছে প্রতিষ্ঠানটি।

সোমবারের দিকে হথর্ন, ক্যালিফোর্নিয়া কারখানার কর্মীদেরকে আক্রান্তের ব্যাপারে জানানো হয়। এক ইমেইলের বরাত দিয়ে খবরটি প্রকাশ করেছে সংবাদমাধ্যম টেলিগ্রাফ। ওই খবরে বলা হয়েছে, বিদেশ ভ্রমণের পর ওই স্পেসএক্স কর্মী নভেল করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হন বলে জানা গেছে। -- খবর প্রযুক্তিবিষয়ক সাইট সিনেটের।

করোনাভাইরাস হুঁশিয়ারিকে পাত্তা না দিয়ে স্পেসএক্স ও টেসলা কারখানা খোলা রেখেছিলেন স্পেসএক্স প্রধান ইলন মাস্ক। বিষয়টি নিয়ে মাস্কের সমালোচনাও করেছেন সরকারি কর্মকর্তা থেকে শুরু করে শিল্প নজরদারী সংস্থাগুলো এবং ভোক্তারা। ‘করোনাভাইরাস আতঙ্ক মূর্খামি’ লিখে টুইটও করেছিলেন মাস্ক।

কয়েক দফা তর্ক-বিতর্কের পর পরে গত সপ্তাহে এসে কারখানা বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত জানিয়েছিল মাস্ক নেতৃত্বাধীন টেসলা। ঘোষণায় জানানো হয়েছিল, এই সপ্তাহ থেকে বন্ধ থাকবে টেসলা কারখানা। সোমবার পর্যন্তও বিদ্যুত চালিত গাড়ি নির্মাতা প্রতিষ্ঠানটি স্বল্প কর্মী ও বাড়তি নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়ে কারখানায় কাজ চালিয়ে গেছে।

এ সপ্তাহের শুরুতে কোভিড ১৯ রোগীদের চিকিৎসার সুবিধার্থে ‘মেডিক্যাল ভেন্টিলেটর’ তৈরি করে দেওয়ার প্রস্তাব দিয়েছিলেন মাস্ক।

সাম্প্রতিক পরিস্থিতি নিয়ে তাৎক্ষণিকভাবে মন্তব্যের অনুরোধে সাড়া দেয়নি স্পেসএক্স।

উল্লেখ্য, মার্চ ১৩, শুক্রবারে স্পেসএক্স কর্মীদের কাছে পাঠানো এক মেইলে মাস্ক লিখেছিলেন, “স্পেসএক্স কর্মীদের কোভিড ১৯-এ ভুগে মারা যাওয়ার চেয়ে গাড়ি দুর্ঘটনায় মারা যাওয়ার শঙ্কা বেশি।”