‘সুবিচার পেতে’ আইনের আশ্রয় নেবে টিকটক

  • প্রযুক্তি ডেস্ক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2020-08-08 12:11:47 BdST

bdnews24

যুক্তরাষ্ট্রে টিকটক নিষিদ্ধ করতে নির্বাহী আদেশে স্বাক্ষর করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প। মার্কিন প্রেসিডেন্টের এ পদক্ষেপে ‘স্তম্ভিত’ হয়েছে ভিডিও শেয়ারিং অ্যাপটি। এ ব্যাপারে আইনের আশ্রয় নিতে পারে টিকটক।

শনিবার এ ব্যাপারে জানিয়েছে সোশাল ভিডিও অ্যাপটি। রয়টার্স এক প্রতিবেদনে বলেছে, সুবিচার করা হয়েছে কি না তা জানতে যুক্তরাষ্ট্রের আদালত পর্যন্ত যাওয়ার কথা বলেছে টিকটক। 

“আইনের অপব্যবহার হয়েছে কি না এবং আমাদের প্রতিষ্ঠান ও ব্যবহারকারীর সঙ্গে সুবিচার হয়েছে কি না তা নিশ্চিতে আমাদের কাছে যতো উপায় আছে, সেগুলো সব ব্যবহার করব – প্রশাসনে না পারলে, মার্কিন আদালতের মাধ্যমে।” – এক বিবৃতিতে বলেছে টিকটক।

বৃহস্পতিবার রাতে ট্রাম্প স্বাক্ষরিত নির্বাহী আদেশে বলা হয়েছে, “জাতীয় নিরাপত্তার স্বার্থে টিকটকের মালিকদের বিরুদ্ধে আমাদের অবশ্যই কঠোর পদক্ষেপ নেওয়া উচিত।”

ট্রাম্পের ওই নির্বাহী আদেশ কার্যকর হবে ৪৫ দিন পর। অর্থাৎ, তখন বাইটড্যান্স এবং টেনসেন্টের সঙ্গে যে কোনো ধরনের লেনদেন নিষিদ্ধ হয়ে যাবে যুক্তরাষ্ট্রে।

যুক্তরাষ্ট্রে দারুণ জনপ্রিয় হয়ে ওঠা টিকটকের মাধ্যমে আমেরিকানদের ব্যক্তিগত তথ্য হাতিয়ে নেওয়া হতে পারে বলে উদ্বেগ প্রকাশ করেছিলেন মার্কিন বিশেষজ্ঞরা।

তবে, টিকটক বরাবরই অস্বীকার করে আসছে এ অভিযোগ। অ্যাপটি জানিয়েছে, এখন পর্যন্ত চীন সরকার তাদের ডেটা চায়নি এবং চাইলেও তা দেবে না তারা।

গোপনতা শঙ্কায় ভারত এরই মধ্যে অ্যাপটিকে নিষিদ্ধ করেছে। আর অস্ট্রেলিয়া তদন্ত শুরু করে টিকটকের ব্যাপারে ব্যবস্থা নেওয়ার মতো কিছু পায়নি।

গণমাধ্যমে খবর এসেছে টিকটকের পুরো বৈশ্বিক ব্যবসা কেনার লক্ষ্যে আলোচনা চালাচ্ছে মাইক্রোসফট। শুরুতে খবর এসেছিল, টিকটকের উত্তর আমেরিকা, অস্ট্রেলিয়া এবং নিউ জিল্যান্ডের ব্যবসা কেনার লক্ষ্য রয়েছে তাদের।

তবে, আলোচনার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট এক সূত্র জানিয়েছেন, বাইটড্যান্সের সঙ্গে দর কষাকষির সময় টিকটকের পুরো ব্যবসা কেনার কোনো প্রস্তাব দেয়নি মাইক্রোসফট।


ট্যাগ:  ডনাল্ড ট্রাম্প  টিকটক