ফিফা নির্মাতা ইএ’র ৭৮০ গিগাবাইট ডেটা হ্যাকারের হাতে

  • প্রযুক্তি ডেস্ক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2021-06-11 20:28:36 BdST

bdnews24
ছবি: রয়টার্স

“কোনো খেলোয়াড়ের ডেটা খোয়া যায়নি এবং খেলোয়াড়দের গোপনাতায় কোনো ঝুঁকি আছে বলে মনে করার কোনো কারণ নেই।"

হ্যাকিংয়ের শিকার হয়েছে বিশ্বে অন্যতম শীর্ষ গেইম নির্মাতা ইলেকট্রনিক আর্টস। প্রতিষ্ঠানটি জানিয়েছে ফিফা, ২১-এর মতো গেইমের সোর্স কোড হ্যাকাররা নামিয়েছে।

কেবল ফিফা ২১ নয়, প্রতিষ্ঠানটির ফ্রস্টবাইট গেইম ইঞ্জিনও হ্যাকাররা হস্তগত করেছে যেটি প্রতিষ্ঠানটির তৈরি করা বেশ কিছু জনপ্রিয় গেইমের মূল প্রযুক্তি বলে জানিয়েছে বিবিসি।

এই হ্যাকিংয়ের খবর প্রথম জানায় সংবাদ সাইট ভাইস। প্রায় ৭৮০ গিগাবাইট ডেটা এই ঘটনায় বেহাত হয়েছে বলে উঠে এসেছে ওই সাইটটির প্রতিবেদনে।

ইএ বলছে, এর খেলোযাড়দের কোনো তথ্য খোঁয়া যায়নি।

বিশ্বের সবচেয়ে বড় গেইম নির্মাতার অন্যতম এই প্রতিষ্ঠানের তৈরি গেইমের তালিকায় আছে ব্যটলফিল্ড, স্টার ওয়ার্স: জেডাই ফলেন অর্ডার, দ্য সিমস এবং টাইটানফল। এর পাশাপাশি প্রতিষ্ঠানটি বছরভিত্তিক বিভিন্ন ক্রীড়ার গেইম তৈরি করে থাকে, এর মধ্যে অন্যতম ফিফা সিরিজ। 

খেলোয়াড়দের সমস্যা হবে না

"আমরা আমাদের নেটওয়ারর্কে সাম্প্রতিক এক অন্যায় প্রবেশের বিষয়ে তদন্ত করছি যেখানে সামান্য কিছু সোর্স কোড এবং গেইম বিষয়ক তথ্য চুরি হয়েছে। " - ইএ'র এক মুখপাত্র বলেছেন এক বিবৃতিতে।

“কোনো খেলোয়াড়ের ডেটা খোয়া যায়নি এবং খেলোয়াড়দের গোপনাতায় কোনো ঝুঁকি আছে বলে মনে করার কোনো কারণ নেই।"

প্রতিষ্ঠানটি এরইমধ্যে নিরাপত্তা ব্যবস্থা উন্নত করার কথা জানিয়েছে। একইসঙ্গে, "আমাদের গেইম ব্যবসায় এজন্য কোনো প্রভাব পড়বে না" - বলে জানিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি।

আইনশৃঙ্ক্ষলা বিহিনীর সঙ্গে যোগাযোগ করার কথা জানিয়েছে ইএ। সেইসঙ্গে যোগ করেছে, এই হ্যাকিং কোনো র‌্যানসমওয়্যার আক্রমণ নয়।

হ্যাকাররা বিভিন্ন হ্যাকিং ফোরামে চুরি করা তথ্য বিক্রির জন্য বিজ্ঞাপন দিয়েছে বলে উঠে এসেছে ভাইসের প্রতিবেদনে।

কী হয় সোর্স কোড চুরি করে?

যে কোনো সফটওয়্যার বা গেইমের মূল কাঠামো হলো সোর্স কোড। এটি হাতে থাকলে মূল পণ্যের কাঠামো আমুল পাল্টে দেওয়া সম্ভব।

উদাহরণস্বরূপ, ফ্রস্টবাইট গেইম ইঞ্জিনের সোর্স কোড হাতে থাকলে ওই ইঞ্জিন ব্যবহার করে তৈরি করা গেইমের বিষয়াদি বদলে দেওয়া যেতে পারে।

কোনো ডেভেলপার যদি কোনো সফটওয়্যার বা গেইমের চোরাই প্রতিলিপি তৈরি করতে চান তাহলে সোর্স কোড তার জন্য অমূল্য দলিল হতে পারে। যদিও কোনো মূলধারার গেইম ডেভেলাপার প্রতিষ্ঠান সম্ভবত আরেক প্রতিষ্ঠানের সোর্স কোড ব্যবহার করে কিছু তৈরি করবে না।

এটি ব্যবহার করে বরজোর গেইমের চিটকোড তৈরি করা যেতে পারে বলে উঠে এসেছে বিবিসির প্রতিবেদনে।