ইইউ'র আইনে আইফোনের নিরাপত্তা ধ্বংস হবে: টিম কুক

  • প্রযুক্তি ডেস্ক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2021-06-17 01:54:03 BdST

bdnews24
ছবি: রয়টার্স

প্রযুক্তি জায়ান্টদের ক্ষমতা কমিয়ে আনার লক্ষ্যে প্রস্তাবিত ইউরোপীয় নীতিমালা, আইফোনের জন্য নিরাপত্তা এবং গোপনতা প্রশ্নে ঝুঁকি তৈরি করতে পারে বলে যুক্তি দিয়েছেন অ্যাপল প্রধান টিম কুক।

ইইউ-এর অ্যান্টিট্রাস্ট প্রধান মার্গ্রেথ ভেস্টাগারের প্রস্তাবিত “ডিজিটাল মার্কেটস অ্যাক্ট” (ডিএমএ) সম্পর্কে প্রথম প্রকাশ্য মন্তব্যে টিম কুক বলেন, “এর কিছু অংশ ভাল তবে অন্য অংশ নয়”। তিনি আশঙ্কা প্রকাশ করে বলেন, এই খসড়া বিধি আইফোনে অ্যাপ স্টোর এড়িয়ে আসা অ্যাপও ইনস্টল করতে দেবে, যাকে বলা হয় "সাইড-লোডিং"।

ফ্রান্সের সবচেয়ে বড় প্রযুক্তি সম্মেলন ভিভাটেক-এ অ্যাপল সিইও দূর থেকে অংশ নিয়ে বলেন, “আপনি এখানে এমন একটি উদাহরণ তৈরি করেছেন যেখানে আমি মনে করি না, এটি ব্যবহারকারীদের স্বার্থে যাবে। বর্তমান ডিএমএ নিয়ে যে আলোচনা হচ্ছে তা আইফোনে সাইড-লোডিং করতে বাধ্য করবে।”

“এবং এর ফলে এটি আইফোনে অ্যাপ ইনস্টল করার চূড়ান্ত উপায় হবে,” কুক উল্লেখ করেছেন বলে প্রতিবেদনে জানিয়েছে রয়টার্স।

“এটি আইফোনে, অ্যাপ স্টোরে গোপনতা বজায় রাখার যে উদ্যোগ আমরা নিয়েছি তার অনেকগুলোরই নিরাপত্তা ধ্বংস করবে। এর মধ্যে রয়েছে অ্যাপে গোপনতা, অনুপ্রবেশের পর্যায় এবং অ্যাপ-ট্র্যাকিং স্বচ্ছতা।”

ইইউ আইনপ্রণেতা আন্দ্রেয়াস শোয়াব ইউরোপীয় পার্লামেন্টে খসড়া বিধিমালা যাচাইয়ে নেতৃত্ব দিচ্ছেন। তিনি বলেছেন, আইনটি তৈরি প্রক্রিয়া তিনি আরও এগিয়ে নিতে চান এবং গুগল, অ্যামাজন, অ্যাপল এবং ফেসবুকের মতো বড় প্রতিষ্ঠানগুলির জন্য সুযোগ কমিয়ে আনতে চান।

সাইড-লোডিং কী এবং প্রস্তাবিত আইনের ফল কী হতে পারে

অ্যান্ড্রয়েড ফোন এবং আইফোনে অ্যাপ ইনস্টল করার বেলায় সবচেয়ে বড় যে উৎসগত পার্থক্য সেটি হলো অ্যান্ড্রয়েড ফোনে যে কোনো জায়গা থেকে অ্যাপ নামিয়ে ইনস্টল করা যায়, আইফোনে এই 'স্বাধীনতা' নেই।

আইফোনে কেবল একটি উৎস থেকেই অ্যাপ ইনস্টল করা যায়-- সেটি অ্যাপলের অ্যাপ স্টোর। অ্যান্ড্রয়েডের জন্য গুগল প্লে স্টোর আছে। কিন্তু আপনি চাইলেই গুগল প্লে ছাড়াও অন্য কোনা ওয়েবসাইট থেকে অ্যাপ ডাউনলোড করে ইনস্টল করতে পারবেন। এজন্য সেটিংসে গিয়ে ‘আননৌন সোর্সেস’ থেকে অ্যাপ ইনস্টল করার অপশনটি ‘অন’ করে নিলেই হয়।

এই অন্য উৎস থেকে অ্যাপ ইনস্টলই সাইড-লোডিং। প্রশ্ন হচ্ছে সাইড-লোডিং কেন টিম কুক চান না এবং ইইউ চায়?

অ্যাপলের দিক থেকে সাইডলোডিং না চাওয়ার দুটি প্রধান কারণ আছে। প্রথমত টিম কুক যে নিরাপত্তা ঝুঁকির কথা বললেন সেটি মিথ্যা নয়। শুরু থেকেই অ্যাপল কড়া নজর রাখে অ্যাপ স্টোরে কোন কোন অ্যাপ যোগ হচ্ছে, সেগুলি অ্যাপলের নীতিমালা মানছে কি না সেই বিষয়গুলো।

অ্যাপল পরিষ্কার ঘোষণা দিয়ে রেখেছে, কোনো অ্যাপ যদি তার বর্ণনায় উল্লেখ করা বিষয়গুলো বাদে গোপনে অন্য কিছু করে তবে সেই অ্যাপকে অ্যাপে স্টোর থেকে ফেলে দেওয়া হবে। এই গোপনে অন্য কিছু করার মধ্যে রয়েছে বিনা অনুমতিতে বাড়তি তথ্য যোগার করা,  সেই তথ্য অনুমোদনহীন কোথাও পাঠানো বা গুপ্তচরবৃত্তির মতো কাজ। গুগল যেহেতু ‘গুগল প্লে’ ছাড়াও অন্য উৎস থেকে অ্যাপ ইনস্টল করতে দেয়, ফলে গুগলের পক্ষে এই নজরদারী সম্ভব হয় না।

দ্বিতীয় যে কারণটি রয়েছে সেটি হচ্ছে সাইডলোডিং না থাকার কারণে গোটা আইফোন ও আইপ্যাডের অ্যাপ জগতে অ্যাপলের পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ থাকে, যেটি অ্যাপলের আয়ে প্রভাব রাখে। এই দ্বিতীয় কারণটি ইইউ পছন্দ করছে না। ইইউ বলছে, এতে অ্যাপল অ্যাপ বাজারে একচেটিয়া প্রভাব ভোগ করছে। আর বিভিন্ন সরকার এবং ইইউ এই "একচেটিয়া" বিষয়টিকে একেবারেই মানতে নারাজ।

এখন দেখার বিষয় টিম কুক তার নিরাপত্তা যুক্তি ইইউকে বোঝাতে পারেন কি না।