পছন্দের খবর জেনে নিন সঙ্গে সঙ্গে

বছরের সেরা অ্যান্টি-ম্যালওয়্যার টুল: খরচ হবে না গাঁটের পয়সা

  • প্রযুক্তি ডেস্ক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2021-07-29 19:18:07 BdST

পিসি, ম্যাক বা স্মার্ট ফোন-- প্ল্যাটফর্ম নির্বিশেষে প্রযুক্তি পণ্য ব্যবহারকারীদের মাথা ব্যথার বড় কারণ সাইবার নিরাপত্তা। সাম্প্রতিক পেগাসাস কেলেঙ্কারির ঘটনায় আবার আলোচনার কেন্দ্রে চলে এসেছে এই বিষয়টি। সাধারণ ব্যবহারকারীদের বেশিরভাগ পেগাসাস ঝুঁকিতে না থাকলেও তার মানে এই নয় যে থেমে আছে অন্য সাইবার অপরাধীরা।

ভার্চুয়াল প্রাইভেট নেটওয়ার্ক বা ভিপিএন ব্যবহার করেও ম্যালওয়্যার সংক্রমণ ঝুঁকি কমানো যায় অনেকাংশে। তারপরও দিন শেষে ডিভাইসের নিরাপত্তা ব্যবহারকারীর হাতেই। তাই অ্যান্টিভাইরাস বা অ্যান্টি-ম্যালওয়্যার টুল ব্যবহার করার পরামর্শই দিয়ে থাকেন বিশেষজ্ঞরা।

বাজারে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের তৈরি অ্যান্টিভাইরাস ও অ্যান্টি-ম্যালওয়্যার টুল থাকলেও এর বেশিরভাগের জন্য খরচ করতে হয় গাঁটের পয়সা। তবে বিনা খরচেও মিলবে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের তৈরি একাধিক নিরাপত্তা সফটওয়্যার। এমন পাঁচটি ফ্রি ‘অ্যান্টিভাইরাস/অ্যান্টি-ম্যালওয়্যার টুল এর তালিকা দিয়েছে প্রযুক্তিবিষয়ক সাইট টেকরেডার।

১. বিটডিফেন্ডার অ্যান্টিভাইরাস ফ্রি এডিশন

বিটডিফেন্ডারকে বলা হচ্ছে ‘শক্তিশালী কিন্তু নিরব’ অ্যান্টিভাইরাস। ইনস্টল করার পর ব্যবহারকারীকে কোনো প্রশ্নও করে না সফটওয়্যার। চুপচাপ ভাইরাস/ম্যালওয়্যারের খোঁজে লেগে পড়ে এটি।

বিভিন্ন অ্যাপের কার্যক্রমের উপর নজর রাখে বিটডিফেন্ডার। বিপজ্জনক লিংক চিহ্নিত করতে সব ওয়েব লিংক স্ক্যান করে এই সফটওয়্যার। আর প্রতিবার পিসি চালু করার সময় বুট স্ক্যান বুস্ট করে এটি। বিজ্ঞাপনের ঝামেলাও নেই এতে।

তবে টেকরেডার বলছে ইউজার ফ্রেন্ডলি আর সহজবোধ্য ইন্টারফেইস থাকলেও, সম্ভবত এর একমাত্র নেতিবাচক দিক হচ্ছে ‘অপশন’ বা ‘সেটিংস’ ফিচার এর অনুপস্থিতি।

ছবি: অ্যাভিরা সিকিউরিটি স্যুট।

ছবি: অ্যাভিরা সিকিউরিটি স্যুট।

২. অ্যাভিরা ফ্রি সিকিউরিটি স্যুট

বিনা খরচের সিকিউরিটি সফটওয়্যারের মধ্যে অ্যাভিরা-কে বলা হচ্ছে ইন্টারনেটের সবচেয়ে সহজবোধ্য সফটওয়্যার। প্রচলিত অ্যান্টি-ভাইরাস সুবিধা ছাড়াও পুরো নেটওয়ার্ক স্ক্যান করে দুর্বলতা খুঁজে বের করে সেটি ঠিক করার ক্ষমতাও আছে এর।

নিরাপদে ব্রাউজিং ও কেনাকাটার সুবিধা পাওয়া যাবে এতে। সিস্টেম অপটিমাইজারের কারণে গতি বাড়বে কম্পিউটারের। এ ছাড়াও আছে প্রতি মাসে পাঁচশ’ মেগাবাইট পর্যন্ত ভিপিএন ব্যবহারের সুবিধা, পাসওয়ার্ড ম্যানেজার এবং প্রাইভেসি সেটিং ম্যানেজার।

তবে এর সবচেয়ে ইতিবাচক ফিচার হয়তো প্রয়োজনের ভিত্তিতে বিভিন্ন ফিচার ইনস্টলের সুযোগ। স্যুটে কোন ফিচারগুলো চালু থাকবে সেই সিদ্ধান্ত পুরোটাই ব্যবহারকারীর হাতে থাকবে। এর অপূর্ণতার জায়গা একটাই, কোনো অ্যান্টি-র‌্যানসমওয়্যার নেই এতে। 

ছবি: এভিজি অ্যান্টিভাইরাস।

ছবি: এভিজি অ্যান্টিভাইরাস।

৩. এভিজি অ্যান্টিভাইরাস ফ্রি

এভিজি অ্যান্টিভাইরাস ফ্রি হলেও ব্যবহারকারীদের কিঞ্চিত মাথা ব্যথার কারণ হতে পারে বলে জানিয়েছে টেকরেডার। নিয়মিত নোটিফিকেশন দেবে সফটওয়্যারটি। মাঝে মাঝে অনলাইন নিরাপত্তা নিয়ে ব্যবহারকারী ইতিবাচক কাজের প্রশংসাও করবে এই সফটওয়্যার।

তবে অ্যান্টি-ম্যালওয়্যার অ্যাপ হিসেবে এটি বেশ কার্যকর বলে জানিয়েছে টেকরেডার। এর ড্যাশবোর্ড বেশ সহজবোধ্য, ডাউনলোড করা ফাইল স্ক্যান করার পাশাপাশি ঝুঁকিপূর্ণ লিংক স্ক্যান করা যাবে এটি দিয়ে। পাশাপাশি মোবাইল ফোন দিয়ে পিসি ‘রিমোট স্ক্যান’ করার ফিচারও আছে এতে।

তবে এর ‘প্রো’ সংস্করণে আরও অনেক ফিচার আছে। তার জন্য খরচ করতে হবে গাঁটের পয়সা। সেটি করতে পারলে ডেটা এনক্রিপশন এবং ফায়ারওয়াল সুবিধা পাবেন এভিজি’র ‘প্রো’ সংষ্করণে।

ছবি: স্পাইবট সার্চ অ্যান্ড ডেস্ট্রয়।

ছবি: স্পাইবট সার্চ অ্যান্ড ডেস্ট্রয়।

৪. স্পাইবট সার্চ অ্যান্ড ডিস্ট্রয়

স্পাইবট সার্চ অ্যান্ড ডিস্ট্রয়-কে বলা হচ্ছে ম্যালওয়্যার যুদ্ধের পুরনো যোদ্ধা। ভাইরাস স্ক্যান করে না এই সফটওয়্যারটি। বরং ডিভাইসে অ্যাডওয়্যার, ম্যালওয়্যার ও স্পাইওয়্যার খোঁজে।

টেকরেডার বলছে এটা যতো না সিস্টেম প্রোটেকশন টুল, তার থেকে বেশি সিস্টেম রিপেয়ার টুল। তবে এটি ডাউনলোড করার সময় সাবধান থাকতে হবে ব্যবহারকারীকে। বিভিন্ন সাইটে আছে এর নকল সংস্করণ।

ছবি: এমসিসফট ইমার্জেন্সি কিট।

ছবি: এমসিসফট ইমার্জেন্সি কিট।

৫. এমসিসফট ইমার্জেন্সি কিট

এমসিসফট ইমার্জেন্সি কিট-কে বলা হচ্ছে ম্যালওয়্যার-রিমুভাল টুল। বেশিরভাগ নিরাপত্তা সফটওয়্যার ডিভাইসে ম্যালওয়্যার বা স্পাইওয়্যার সংক্রমণ ঠেকানোর চেষ্টা করে। কিন্তু এমসিসফট-এর কাজের ধরন খানিকটা ভিন্ন।

এটির ডিজাইন করা হয়েছে পোর্টেবল বা পরিবহনযোগ্য অ্যাপ হিসেবে। ইউএসবি স্টিকে রাখা যায় এই অ্যাপটি। এর সিস্টেম চাহিদাও কম; কেবল দুইশ’ মেগাবাইট র‌্যাম, ১ গিগাবাইট বা এর চেয়ে বেশি মেমোরি আছে এমন যে কোনো পিসিতে চলবে এটি। টেকরেডার বলছে বাজারের প্রায় যে কোনো পিসিকে ম্যালওয়্যার মুক্ত করার ক্ষমতা রয়েছে এর।