পছন্দের খবর জেনে নিন সঙ্গে সঙ্গে

প্রমাণ পেলেই ফেইসবুকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবে ব্রিটিশ কর্তৃপক্ষ

  • প্রযুক্তি ডেস্ক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2021-10-14 16:50:10 BdST

bdnews24
ছবি: ইনফর্মেশন কমিশনার্স অফিস (আইসিও)। 

মুনাফা ধরে রাখতে শিশু ও কিশোর বয়সীদের মানসিক স্বাস্থ্যকে উপেক্ষা করার প্রমাণ পেলে শীর্ষ সামাজিক মাধ্যম ফেইসবুকের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নেবেন বলে জানিয়েছেন যুক্তরাজ্যের তথ্য কমিশনার এলিজাবেথ ডেনহ্যাম।

ফেইসবুক ব্রিটিশ আইন লঙ্ঘন করছে কি না, সেটি যাচাই করতে প্রতিষ্ঠানটির আলোচিত সাবেক কর্মী ও তথ্য ফাঁসকারী ফ্রান্সেস হাউগেনের কাছে তথ্য-উপাত্ত চেয়ে চিঠিও লিখেছেন তিনি।

ফ্রান্সেস হাউগেনের হাতে থাকা ফেইসবুকের অভ্যন্তরীণ নথিপত্র ও গবেষণা প্রতিবেদন যুক্তরাজ্যের দৃষ্টিকোণ থেকে এলিজাবেথ ডেনহ্যাম বিশ্লেষণ করে দেখতে চান বলে প্রতিবেদনে উল্লেখ করেছে বিবিসি।

ফ্রান্সেস হাউগেন অভিযোগ তুলেছেন, মুনাফা নিশ্চিত করতে শিশু-কিশোরদের মানসিক স্বাস্থ্যের ধার ধারে না ফেইসবুক নেতৃত্ব; সামাজিক বিভক্তি সৃষ্টি করে সহিংসতা উস্কে দেয় এমন কন্টেন্ট ও ভুয়া খবরের প্রচারণা বন্ধেও আন্তরিক নয় প্রতিষ্ঠানটি।

অভিযোগগুলো পুরোপুরি অস্বীকার করেছেন ফেইসবুক কাণ্ডারী মার্ক জাকারবার্গ। “প্রতিষ্ঠানটির যে মিথ্যা চিত্রায়ন করা হচ্ছে তার সঙ্গে আমাদের বেশিরভাগ পরিচিত নয়”-- দাবি করেছেন তিনি।

তবে, বিবিসিকে ডেনহ্যাম বলেছেন, “ফ্রান্সেসের সাক্ষ্য থেকে জনসাধারণের জন্য উন্মুক্ত তথ্যের উপর আমরা ঘনিষ্ট নজর রাখছি-- অভিযোগগুলোর সম্পূর্ণ প্রতিবেদনে প্রবেশাধিকার চেয়ে তার কাছে চিঠি লিখেছি আমি।”

“যুক্তরাজ্যের দৃষ্টিকোণ থেকে তার তথ্য-উপাত্ত বিশ্লেষণ করে দেখতে চাই আমি-- ওই ক্ষতিকর প্রভাবগুলো কী যুক্তরাজ্যের উপরও পড়ছে, বিশেষ করে শিশুদের উপর?”

“আমরা নতুন নীতিমালা তৈরি করেছি যেটি অনলাইনে শিশুদের নিরাপদ রাখতে নির্মাণ প্রক্রিয়ার কিছু বিষয় পূর্বনির্ধারণ করে দেয়। আমি এটা যাচাই করে দেখতে চাই যে উত্থাপিত অভিযোগগুলো যুক্তরাজ্যের আইর লঙ্ঘন করছে কি না, করলে অবশ্যই পদক্ষেপ নেব আমি”-- যোগ করেন ডেনহ্যাম।

ফ্রান্সেস হাউগেন যে অভিযোগগুলো তুলেছেন তার মধ্যে যে দুটি অভিযোগ রাজনীতিবিদদের কাছে বেশি গুরুত্ব পাচ্ছে। ফেইসবুকের মালিকানাধীন ইনস্টাগ্রাম সেবা শিশুদের মানসিক স্বাস্থ্যের মারাত্মক ক্ষতি করে এবং সামাজিক বিভক্তি বাড়িয়ে গণতন্ত্রকে দুর্বল করে ফেইসবুকের অ্যালগরিদম।

“ফেইসবুকের ক্লোজড ডিজাইনের মানে হচ্ছে এর উপর নজর রাখার কেউ নেই। কেবল ফেইসবুকই জানে আপনার ফিড আপনার জন্য কীভাবে ব্যক্তিগতকরণ করা হচ্ছে।”-- মার্কিন সিনেটের এক সাবকমিটিতে এই মন্তব্য করেন ফ্রান্সেস হাউগেন।

“গবেষক ও নিয়ন্ত্রকরা যেন ফেইসবুকের নিজস্ব কার্যপ্রণালী ব্যবস্থা বুঝতে না পারে”, সেজন্য প্রতিষ্ঠানটি নিজেদের লুকিয়ে রাখে বলেও মন্তব্য করেছেন হাউগেন।

যুক্তরাজ্য পার্লামেন্টের অনলাইন সেইফটি বিল কমিটিতে এ মাসের ২৫ তারিখ সাক্ষ্য দেওয়ার কথা রয়েছে হাউগেনের।

বিবিসি’র প্রতিবেদন বলছে, শীর্ষ প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানগুলোর নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠায় বড় ভূমিকা রেখেছেন এলিজাবেথ ডেনহ্যাম। গণতান্ত্রিক আর সিলিকন ভ্যালির মধ্যে ক্ষমতার অসামঞ্জস্য নিয়ে তিনিও শঙ্কিত।