পছন্দের খবর জেনে নিন সঙ্গে সঙ্গে

নতুন টেনসর চিপের বিস্তারিত যা জানালো গুগল

  • প্রযুক্তি ডেস্ক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2021-10-20 17:55:16 BdST

bdnews24

অগাস্টে নিজেদের প্রথম ‘সিস্টেম-অন-এ-চিপ’ বা এসওসি’র ব্যাপারে জানিয়েছিল গুগল। সে সময়েই প্রতিষ্ঠানটি জানায়, টেনসর নামের চিপটির দেখা মিলবে পিক্সেল ৬ এবং পিক্সেল ৬ প্রো-এ। কিন্তু অল্প কিছু তথ্য বাদে সে সময় আর বাড়তি কিছু জানায়নি প্রতিষ্ঠানটি। 

এতোদিন সবাই শুধু জানতেন যে, টেনসরকে অনেকটা এআই শক্তি কেন্দ্র হিসেবে তৈরি করেছে গুগল। ফলে, নতুন ফোনগুলোতে থাকবে আরও উন্নত হার্ডওয়্যার যা ছবি প্রক্রিয়াজাতকরণ ও ভয়েস রিকগনিশনের মতো কাজে সহায়তা করতে পারবে।  

গোটা বিষয়টিই আসলে গুগলের সফটওয়্যার ও বিশেষভাবে তৈরি হার্ডওয়্যারকে জুড়ে দেওয়ার একটি চেষ্টা। কিন্তু কী রয়েছে টেনসরে, কীভাবে কাজ করবে এটি – সে প্রশ্নগুলোর উত্তর আড়ালেই ছিল এতোদিন।

গুগলের এসওসিতে ব্যবহৃত ট্রনজিস্টরের আকার হবে পাঁচ ন্যানোমিটার। সবমিলিয়ে আট কোরের নকশাকে সাজানো হয়েছে বড়, ছোট এবং মাঝারিতে। এর মধ্যে নেতৃস্থানীয় ভূমিকা পালন করছে দুটি ২.৮ গিগাহার্টজ ক্ষমতার এআরএম কর্টেক্স-এক্স১ কোর।

স্যামসাং গ্যালাক্সি এস২১ সহ অন্যান্য অনেক ‘হাই-এন্ড ফোনে’ ব্যবহৃত কোয়ালকমের ফ্ল্যাগশিপ স্ন্যাপডাগন ৮৮৮ চিপটি একক এক্স১ কোরের। ফলে, অনুমান বলছে, তুলনামূলকভাবে গুগলের টেনসরের গতি অনেক দ্রুত হবে।

এটি বাদেও এসওসি চিপের মাঝারি অংশে থাকবে ২.২৫ গিগাহার্টজ সক্ষমতার দুটি কর্টেক্স এ৭৬, ছোট অংশে দেখা মিলবে ১.৮ গিগাহার্টজের চারটি এ৫৫ কোরের। গুগল গ্রাফিক্সের দিক থেকেও কোন ছাড় দেয়নি: টেনসরে দেখা মিলবে মালি-জি৭৮ গ্রাফিক্স কোরের। অন্যান্য ফ্ল্যাগশিপ অ্যান্ড্রয়েড ফোনেও রয়েছে চিপটি।

বিশেষভাবে তৈরি হার্ডওয়্যারের এই আলাপ থেকে মটো এক্স -এর ঘটনা মনে পড়ে যাওয়া খুবই স্বাভাবিক। ২০১৩-তে গুগল চেষ্টা করেছিল আরও ‘করিৎকর্মা’ স্মার্টফোন তৈরি করতে। কিন্তু সবচেয়ে শক্তিশালী মোবাইল আর তৈরি করতে পারেনি প্রতিষ্ঠানটি।

অনেকের মতেই ডিভাইসটির ‘অলওয়েজ-অন ভয়েস কমান্ড’ পরিবেষ্টিত কম্পিউটিংয়ের দিকে সুন্দর একটি পদক্ষেপ ছিলো। গুগল এবারও টেনসর চিপ নিয়ে সেদিকে এগোতে চাইছে।

গুগলের টেনসর চিপ পিক্সেল ৬-কে ‘লাইভ ট্রান্সলেট’ ফিচারের মাধ্যমে ভিডিও ও মেসেজ দ্রুত অনুবাদ করতে দেবে। এমনকি কণ্ঠস্বরও আরও ভালোভাবে চিনতে সহায়তা করবে। এনগ্যাজেটে প্রকাশিত এক প্রতিবেদন বলছে, এ বিষয়টি কণ্ঠ ব্যবহার করে লেখা, সম্পাদনা এবং বার্তা পাঠানোর ক্ষেত্রে খুব কাজে আসবে।

অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ আরেকটি বিষয় হলো - গুগলের টেনসর চিপ বাড়তি সুবিধাগুলো দেবে বেশি ব্যাটারি লাইফ খরচ না করেই। গুগলের তথ্য অনুসারে, সবমিলিয়ে পিক্সেল ৫-এর তুলনায় প্রায় ৮০ শতাংশ বেশি গতিতে কাজ করবে টেনসর চিপ।

এ ছাড়াও পিক্সেল ৬ এ বাড়তি স্তরের সুরক্ষা মিলবে বলেও জানিয়ে রেখেছে গুগল। এটি ফোনে থাকা টাইটান এম২ চিপের সঙ্গে মিলে ম্যালওয়্যার ও অন্যান্য সম্ভাব্য আক্রমণের বিরুদ্ধে লড়বে।

ক্রেতাদের প্রযুক্তিবোদ্ধা অংশ নতুন মোবাইল চিপে যা যা দেখতে চান, টেনসরে তার প্রত্যেকটিই রয়েছে। এটি দ্রুতগতির এবং বহু এআই ফিচারের সহায়ক। ভবিষ্যতে হয়তো এ চিপটিই পিক্সেল ফোনকে করে তুলবে পরিপূর্ণ আইফোন সমতুল্য: যেখানে ফ্ল্যাগশিপ হার্ডওয়্যার ছন্দ মেলাবে বিশেষভাবে তৈরি মোবাইল চিপের সঙ্গে। গুগল সফল হলে হয়তো ভবিষ্যতে টেনসরের দেখা মিলবে অন্য প্রতিষ্ঠানের স্মার্টফোনেও।