পছন্দের খবর জেনে নিন সঙ্গে সঙ্গে

বিনাখরচের ‘পাইরেসি’ সাইটে মিলবে লাখ ডলারের এনএফটি

  • প্রযুক্তি ডেস্ক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2021-11-20 18:06:02 BdST

bdnews24
ছবি: এনএফটি বে

আলোচিত-সমালোচিত পাইরেসি সাইট ‘পাইরেট বে’-এর আদলে ‘নন ফাঞ্জিবল টোকেন (এনএফটি)’ ডাইনলোডের এক ওয়েবসাইট খুলে বসেছেন অস্ট্রেলিয়ার এক শিল্পী ও প্রোগ্রামার। তার দাবি, ইথেরিয়াম ব্লকচেইনের সকল এনএফটি তার ওয়েবসাইট থেকে ডাউনলোড করা যাবে বিনা খরচে।

এনএফটি ডিজিটাল টোকেনকে সাধারণত ডিজিটাল শিল্পকর্মের একক মালিকানার প্রমাণ হিসেবে বিবেচনা করা হয়। ডিজিটাল কন্টেন্ট বিভিন্নভাবে কপি করার সুযোগ থাকায়, বাস্তব পৃথিবীর তৈলচিত্র বা ভাস্কর্যের মতো মূল শিল্পকর্ম কোনটি বা তার মালিকানা নির্ধারণ কঠিন কাজ।

এমন পরিস্থিতিতে ডিজিটাল কন্টেন্টের মালিকানা প্রমাণের নির্ভরযোগ্য মাধ্যম হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হতে শুরু করেছিল এনএফটি ডিজিটাল টোকেনগুলো। কয়েক লাখ ডলারের বিনিময়ে একাধিক ডিজিটাল কন্টেন্টের এনএফটি বিক্রিও হয়েছে  সম্প্রতি । কিন্তু নতুন ‘পাইরেসি’ ওয়েবসাইটের আবির্ভাবে পাল্টে যেতে পারে সেই দৃশ্যপট।

বিবিসি জানিয়েছে, এনএফটি ‘পাইরেসি’ ওয়েবসাইট, ‘এনএফটি বে’ চালু করেছেন অস্ট্রেলিয়ার নাগরিক জিওফ্রি হান্টলি। মানুষ আসলে এনএফটি’র নামে কী কিনছে সেটা সবার সামনে উন্মুক্ত করে দিতে চান বলে দাবি করেছেন তিনি।

লক্ষ্যণীয় বিষয় হচ্ছে, হান্টলি’র ওয়েবসাইটটির নকশা করা হয়েছে সফটওয়্যার ও সিনেমা পাইরেসির জন্য বিশ্বব্যাপী প্রযুক্তি খাতের মাথা ব্যথা হয়ে দাঁড়ানো ওয়েবসাইট ‘পাইরেট বে’-এর আদলে।

এনএফটি বে দাবি করছে, ১৭ টেরাবাইটের ফাইলে “ইথেরিয়াম ও সোলানা’র সকল এনএফটি” আছে তাদের কাছে। এনএফটি লেনদেনে ইথেরিয়াম ও সোলানা-- উভয় ক্রিপ্টোকারেন্সি নেটওয়ার্কের বহুল ব্যবহার রয়েছে।

এনএফটির বদৌলতে ডিজিটাল কন্টেন্টের মালিকানা দাবি করার সুযোগ থাকলেও এর সমালোচকদের মতে, এই প্রযুক্তি কতোটা যৌক্তিক সে বিষয়ে প্রশ্ন তোলার সুযোগ আছে; ওই “টোকেন অফ ওনারশিপের” সঙ্গে সংযুক্ত ডিজিটাল কন্টেন্ট ডাউনলোড ও কপি করতে পারেন যে কেউ।

হান্টলি বলছেন, “এনএফটি শিল্পকর্ম এখন একটা ছবি কীভাবে অ্যাক্সেস করে ডাউনলোড করতে হয়, তার থেকে বেশি কিছু নয়। ওই ছবিটি ব্লকচেইনেও সংরক্ষণ করা হয় না।”

তবে, এনএফটি’র সমর্থকরা বলছেন অনলাইনে প্রভাব বিস্তার আর বড়াই করার অধিকার আসে ক্রেতার হাতে, যা কেবল রাইট ক্লিক করে একটি ছবি “সেইভ” করার সমতূল্য নয়।  

বিবিসি জানিয়েছে, উচ্চমূল্যে বিক্রি হওয়া ডিজিটাল শিল্পকর্মের ছবি ডাউনলোড করার সুযোগ থাকলেও ‘মালিকানার প্রমাণ” দিতে পারে এমন কোনো ডিজিটাল টোকেন নেই এনএফটি বে’তে।

তবে সাইটটি পরবর্তী প্রজন্মকে শিক্ষণীয় কিছু দিতে পারবে বলে হান্টলি আশা করছেন-- জানিয়েছে বিবিসি।