পছন্দের খবর জেনে নিন সঙ্গে সঙ্গে

যুব কর্মসংস্থান: হাই-টেক পার্কে হচ্ছে ইএটিএল ইনোভেশন হাব

  • আবদুল্লাহ জায়েদ, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2021-11-24 18:21:26 BdST

দেশের তথ্য-প্রযুক্তি খাতের তরুণ উদ্যোক্তাদের জন্য প্রশিক্ষণ, পেশাদারী সহায়তা ও কর্মসংস্থানের লক্ষ্য নিয়ে বঙ্গবন্ধু হাই-টেক পার্কে আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু করেছে ইএটিল ইনোভেশন হাব লিমিটেড। তরুণদের জন্য কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা, বিগ ডেটা ও এআর/ভিআর প্রযুক্তি নিয়ে প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা থাকবে এই হাবে;  অফিস স্পেস, অবকাঠামোগত সমর্থন এবং অন্যান্য প্রয়োজনীয় সুযোগ-সুবিধা পাবে স্টার্টআপ প্রতিষ্ঠানগুলো।

বুধবার গাজীপুরের কালিয়াকৈরে অবস্থিত বঙ্গবন্ধু হাই টেক পার্কে ইএটিল ইনোভেশন হাব লিমিটেডের নতুন ভবনের ভিত্তিপ্রস্তর উন্মোচন করেন বাংলাদেশ সরকারের পররাষ্ট্র মন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন।

এই উদ্যোগে ইনকিউবেশন সেন্টার, বিদেশি প্রশিক্ষণ ও লিঙ্কেজ, ভার্চুয়াল অফশোর অফিস, প্রযুক্তি সক্ষমতা উন্নয়ন এবং চাকরি ও অংশীদারিত্ব-- ইনোভেশন হাবে এই পাঁচটি বিভাগ থাকবে বলে জানিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। এর মধ্যে বাছাইকৃত স্টার্টআপ প্রতিষ্ঠানকে প্রশিক্ষণ, অবকাঠামোগত সহায়তা এবং অফিস স্পেস দিয়ে সহায়তা করবে ইনকিউবেশন সেন্টার।

বিদেশি প্রশিক্ষণ আর লিঙ্কেজ বিভাগটি স্নাতকদের প্রশিক্ষণের জন্য আন্তর্জাতিক প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে যোগাযোগ করিয়ে দেবে বলে জানিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি।

ইএটিএল-এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক এম এ মুবিন খান বলেন, “বিদেশি কর্মীদের নিজ দেশের ভাষায় প্রশিক্ষণ দিয়ে প্রতিশ্রুতিশীল আবেদনকারীদের নিয়োগ দিতে আগ্রহী জাপান ও দক্ষিণ কোরিয়ার মতো দেশের প্রতিষ্ঠান।”

বিদেশি প্রতিষ্ঠানের জন্য কাজ করবে ভার্চুয়াল অফশোর বিভাগের কর্মীরা; এতে ওই প্রতিষ্ঠানগুলোর খরচ কমে আসবে বলে জানিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি।

ইনোভেশন হাবের প্রস্তাবিত পাঁচটি বিভাগের মধ্যে তরুণ প্রযুক্তি উদ্যোক্তাদের দৃষ্টি কাড়তে পারে এর প্রযুক্তি সক্ষমতা উন্নয়ন বিভাগ। ইএটিএল বলছে, বিগ ডেটা, কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা বা এআই এবং এআর/ভিআর প্রযুক্তি নিয়ে তরুণ উদ্যোক্তাদের প্রশিক্ষণ দেবে এই বিভাগটি।

এ ছাড়াও দেশি-বিদেশি প্রতিষ্ঠান ও বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর মধ্যে অংশীদারিত্ব গড়ে তুলবে ইনোভেশন হাবের চাকরি ও অংশীদারিত্ব বিভাগটি।  শিক্ষার্থীদের জন্য ইন্টার্নশিপ ও পরবর্তী কর্মসংস্থান নিয়ে কাজ করবে ইনোভেশন হাবের পঞ্চম বিভাগটি। 

ইনোভেশন হাবের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন অনুষ্ঠানে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন বলেন, “ডিজিটাল বাংলাদেশ গঠনের লক্ষ্যে বাংলাদেশ সরকারের চেষ্টার ফলে সরকারি কাজ, শিক্ষা ও স্বাস্থ্যখাতে বড় কোনো বিঘ্ন ঘটেনি।”

“কোভিড পরবর্তী বিশ্বে তথ্য-প্রযুক্তির অগ্রগতি ও বিকাশের গুরুত্ব আরও ব্যাপকভাবে অনুভূত হচ্ছে।”

“ইটিএল ইনোভেশন হাব কোনো বাণিজ্যিক উদ্যোগ নয়, এটি বরং একটি দীর্ঘমেয়াদি টেকসই আর্থ-সামাজিক উদ্যোগ যা সঠিক প্রযুক্তিতে তরুণ প্রতিভাদের দক্ষতা বাড়ানো এবং দেশের উন্নয়নের জন্য” বলে জানান অনুষ্ঠানের সভাপতি ও ইএটিল ইনোভেশন হাব চেয়ারম্যান মো. আবদুল করিম।

হাবের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে  সভাপতিত্ব করেন ইএটিল ইনোভেশন হাবের চেয়ারম্যান মো. আবদুল করিম। আরও উপস্থিত ছিলেন প্রতিষ্ঠানটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক এম এ মুবিন খান, হাই-টেক পার্কের ব্যবস্থাপনা পরিচালক বিক্রম কুমার ঘোষসহ বাংলাদেশ সরকার ও হাইটেক পার্কের শীর্ষ কর্মকর্তারা। নতুন ইনোভেশন হাব নির্মানে হাই-টেক পার্ক কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে ১.৭ একর জামি বরাদ্দ পেয়েছে ইএটিল ইনোভেশন হাব লিমিটেড।