পছন্দের খবর জেনে নিন সঙ্গে সঙ্গে

উইন্ডোজ ১১’র টাস্কবার ও স্টার্ট মেনু বদলাচ্ছে মাইক্রোসফট

  • প্রযুক্তি ডেস্ক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2021-12-02 18:37:36 BdST

bdnews24
ছবি: মাইক্রোসফট

গ্রাহকদের অনেকে অভিযোগ তুলেছিলেন, ব্যবহার উপযোগিতার বিচারে উইন্ডোজ ১০ থেকে পিছিয়েই আছে উইন্ডোজ ১১’র টাস্কবার। অসন্তোষ ছিল স্টার্ট মেনু নিয়েও। এবার খবর রটেছে, উইন্ডোজ ১১’র টাস্কবার ও স্টার্ট মেনুর প্রয়োজনীয় উন্নয়ন কাজ করছে মাইক্রোসফট।

একাধিক মনিটর ব্যবহারের ক্ষেত্রে উইন্ডোজ ১১’র টাস্কবারে তারিখ ও ঘড়ির অনুপস্থিতি নিয়ে অভিযোগ ছিল ব্যবহারকারীদের। তবে প্রযুক্তিবিষয়ক সাইট ভার্জ জানিয়েছে, উইন্ডোজ ইনসাইডারের হাতে থাকা নতুন একটি আপডেটে একাধিক মনিটরেও সময় ও তারিখ দেখার ফিচার ফিরিয়ে আনছে মাইক্রোসফট। এখনও পরীক্ষামূলক পর্যায়ে আছে আপডেটটি।

টাস্কবারের পাশাপাশি উইন্ডোজ ১১’র স্টার্ট মেনু নিয়েও উন্নয়ন কাজ চালাচ্ছে মাইক্রোসফট। ভার্জ বলছে, নতুন ২২৫০৯ ইনসাইডার বিল্ডে স্টার্ট মেনুতে আরও বেশি সংখ্যক পিন ও ‘রিকমেন্ডেশন’ যোগ করার সক্ষমতা এনেছে মাইক্রোসফট। এই ফিচারটির বদৌলতে ব্যবহারকারীরা আরও বড় পরিসরে নিজের পছন্দমতো স্টার্ট মেনু সাজিয়ে নেওয়ার সুবিধা পাবেন। তবে ভার্জ বলছে, এই কাজটির জন্য ইতোমধ্যেই তৃতীয় পক্ষীয় অ্যাপের দ্বারস্থ হয়েছেন ব্যবহারকারীদের অনেকেই।

২২৫০৯ ইনসাইডার বিল্ডের সেটিংস অ্যাপেও উন্নয়ন কাজ চালাচ্ছে মাইক্রোসফট। মূল সেটিংস অ্যাপে আরও বেশি ‘কন্ট্রোল প্যানেল’ সেটিংস যোগ করার চেষ্টার অংশ হিসেবে ওই পরিবর্তনগুলো আনছে সফটওয়্যার জায়ান্ট প্রতিষ্ঠানটি।

এই প্রসঙ্গে মাইক্রোসফট উইন্ডোজ ইনসাইডার প্রোগ্রামের প্রধান অ্যামান্ডা ল্যাঙ্গোস্কি বলেন, “আমরা অ্যাডভান্সড শেয়ারিং সেটিংসটি (যেমন: নেটওয়ার্ক ডিসকভারি, ফাইল এবং প্রিন্টার শেয়ারিং এবং পাবলিক ফোল্ডার শেয়ারিং) সরিয়ে সেটিংস অ্যাপের অ্যাডভান্সড নেটওয়ার্ক সেটিংসের অধীনে নিয়ে এসেছি।”

ভার্জ বলছে, পরিবর্তন এসেছে সেটিংস পেইজের ‘প্রিন্টার্স অ্যান্ড স্ক্যানার্স’ অংশেও। তবে, কন্ট্রোল প্যানেলের কিছু অংশ ব্যবহারকারীকে সরাসরি নিয়ে যাবে মূল সেটিংস অ্যাপে। এই পরিবর্তনগুলো বিবেচনায় নিলে মাইক্রোসফট ক্রমশ কন্ট্রোল প্যানেল থেকে আরও আধুনিক সেটিংস অ্যাপের দিকে সরছে বলে ইঙ্গিত মিলছে-- মন্তব্য করেছে ভার্জ। 

তবে, এই পরিবর্তনগুলোর সুফল পেতে ব্যবহারকারীদের আরও কয়েক মাস অপেক্ষা করতে হবে। পরিবর্তনগুলো এখন ডেভেলপারদের মধ্যেই সীমাবদ্ধ রাখছে মাইক্রোসফট। কার্যক্ষমতা প্রমাণিত হলে প্রতি মাসে উইন্ডোজের জন্য যে আপডেট উন্মুক্ত করে মাইক্রোসফট, তার অংশ হতে পারে ফিচারগুলো, আর নয়তো চলে যাবে উইন্ডোজ ১১’র বার্ষিক আপডেটে।