পছন্দের খবর জেনে নিন সঙ্গে সঙ্গে

প্ল্যাটফর্মে ফের ভ্যাকসিনবিরোধী বিজ্ঞাপনের অভিযোগে ফেইসবুক

  • প্রযুক্তি ডেস্ক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2021-12-03 16:36:38 BdST

bdnews24
ছবি: রয়টার্স

ফেইসবুক তার প্ল্যাটফর্মে ভ্যাকসিন বিরোধী বিজ্ঞাপন চলতে দিয়েছে, কোভিড-১৯ বিষয়ে মার্কিন সরকারের অবস্থানকে নাৎসি জার্মানির সঙ্গে তুলনা করেছে, ২০২০ সালের নির্বাচনের ফলাফল নিয়ে বিভ্রান্তি ছড়িয়েছে, এমনকি উসকে দিয়েছে রাজনৈতিক সহিংসতা। আর এই সবগুলো ঘটনা ঘটেছে কয়েক মাসের ব্যবধানে।

সিএনএন-এর প্রতিবেদন বলছে, পণ্য বিক্রেতা বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ফেইসবুকে এসব বিজ্ঞাপনের পেছনে গত কয়েক বছরে লাখ লাখ ডলার খরচ করেছে।

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় এক নাৎসি চিকিৎসক পরিচিত ছিলেন ‘এঞ্জেল অফ ডেথ’ নামে। সোমবার ফক্স নিউজের আলোচক লারা লোগান ড. অ্যান্টনি ফাউচিকে ওই নাৎসি ডাক্তারের সঙ্গে তুলনা করেন। এ নিয়ে অনলাইনে যখন ক্ষোভের সৃষ্টি হয়- প্রায় একই সময়ে ফেইসবুকে চালানো হয় বিজ্ঞাপনগুলো। বিজ্ঞাপনের বক্তব্য ছিল- “আমি মূলত আমেরিকার বাসিন্দা কিন্তু এখন ১৯৪১ সালে জার্মানিতে বাস করছি।”

আরেকটি বিজ্ঞাপন ভ্যাকসিন কার্যক্রম চালুর সঙ্গে হলোকস্টের তুলনা করেছে। ওই বিজ্ঞাপনের বক্তব্য ছিল, এই কার্যক্রম গণহত্যা প্রচেষ্টার অংশ।

‘রাইড দ্য রেড ওয়েভ’ নামে একটি ফেইসবুক পেইজ থেকে বিজ্ঞাপনগুলো চালানোর বিষয়টি উল্লেখ করেছে সিএনএন। বছরের শুরুতে এই পেইজটিই একটি টি-শার্টের বিজ্ঞাপন চালায়, যেখানে লেখা ছিল, “বিশ্বাসঘাতকদের ফাঁসি দেওয়ার বিষয়টি ফের মহান করে তুলুন।”

মে মাস থেকে শুরু করে ‘রাইড দ্য রেড ওয়েভ’ পরিচালিত বিজ্ঞাপন থেকে ফেইসবুকের আয় হয়েছে দুই লাখ ৮০ হাজার ডলারেরও বেশি। সিএনএন বলছে, এর মাধ্যমে ১০ হাজারেরও কম অনুসারী আছে এমন একটি পেইজ এই অর্থ খরচ করে কোটি কোটি আমেরিকানের কাছে পৌঁছেছে।

‘নেক্সট লেভেল গুডস’ আরেকটি পেইজ যারা ২০১৯ সাল থেকে ফেইসবুক বিজ্ঞাপনে পাঁচ লাখ ডলারেরও বেশি খরচ করেছে। একাধিক প্রতিষ্ঠানের চালানো ওই পেইজটি নিয়মিত ভাবে ফেইসবুক ব্যবহার করে ভ্যাকসিন বিরোধী টি-শার্টের বিজ্ঞাপন চালায়।

আগস্টের শেষের দিকে একটি বিজ্ঞাপনে টি-শার্টের প্রচারণা ছিল যেখানে একটি সিরিঞ্জের ছবির পাশে “বিষ গ্রহন না করে গর্বিত” কথাটি লেখা ছিল। ভ্যাকসিন বিরোধী ওই বিজ্ঞাপনটি প্রায় সাড়ে চার লাখ ফেইসবুক ব্যবহারকারীর কাছে পৌঁছানোর জন্য প্রতিষ্ঠানটি গুণেছে আড়াই হাজার ডলার। ফেইসবুকের দেওয়া তথ্য অনুসারে, বিজ্ঞাপনগুলো সবচেয়ে বেশি দেখেছেন টেক্সাস, ফ্লোরিডা এবং ক্যালিফোর্নিয়ার ব্যবহারকারীরা।

ফেইসবুকের মূল সংস্থা মেটার একজন মুখপাত্র স্বীকার করেছেন, নাৎসি জার্মানির সঙ্গে মার্কিন কোভিড-১৯ কার্যক্রমের তুলনা, ভ্যাকসিন কার্যক্রমকে হলোকস্টের সঙ্গে তুলনা এবং ভ্যাকসিনকে বিষ বলে যে বিজ্ঞাপন দেওয়া হয়েছে এর সবগুলোই ফেইসবুকের নীতির লঙ্ঘন করে।

নীতি লঙ্ঘন করার পরও বিজ্ঞাপনগুলি প্ল্যাটফর্মে চলার মানে হচ্ছে, ফেইসবুকের শনাক্তকরণ পদ্ধতি কোনোভাবে এড়িয়ে গেছে বিজ্ঞাপনগুলো - বলেছে সিএনএন।

সিএনএন “বিশ্বাসঘাতকদের ফাঁসি দেওয়া” সম্পর্কিত বিজ্ঞাপনটি সম্পর্কেও জিজ্ঞাসা করলে ফেইসবুক নীতি ভঙ্গ বিষয়ে কোনো মন্তব্য করেনি।

এর বিপরীতে ফেইসবুক আমেরিকানদের টিকা নিতে উৎসাহিত করার ক্ষেত্রে যে ইতিবাচক ভূমিকা পালন করছে তা তুলে ধরেছে। কোম্পানির ভাইস প্রেসিডেন্ট গাই রোজেন জুলাই মাসে এক ব্লগ পোস্ট প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনকে তিরস্কার করেন। ভ্যাকসিন নিয়ে বিভ্রান্তিকর পোস্ট শেয়ার প্রসঙ্গে মার্কিন প্রেসিডেন্ট বলেছিলেন, “ফেইসবুকের মতো প্ল্যাটফর্ম মানুষকে হত্যা করছে”। বাইডেন পরে ওই দাবি থেকে সরে আসেন।

ফেইসবুকে বিজ্ঞাপন ট্র্যাক করেন লরা এডেলসন। নিউ ইয়র্ক ইউনিভার্সিটির এই গবেষক সিএনএনকে বলেন, ফেইসবুক তার প্ল্যাটফর্মে চালানো সব বিজ্ঞাপন মানব কর্মী দিয়ে পর্যালোচনা করে না। এর ফলে, বিজ্ঞাপনগুলি নিয়ম ভাঙলেও প্ল্যাটফর্মে চালানোর অনুমতি পায়।

তিনি বলেন, রাজনৈতিক প্রচারণামূলক পেইজের তুলনায় ফেইসবুক টি-শার্ট বিক্রির মতো আপাতদৃষ্টিতে বাণিজ্যিক পেইজ নিয়ে ফেইসবুকের মডারেশন পদ্ধতি হালকা বলেই মনে হচ্ছে।

তিনি সিএনএনকে বলেন, “আপনি একটি টি-শার্টে ছা