পছন্দের খবর জেনে নিন সঙ্গে সঙ্গে

মাস্কের ইমেজের আঁচড় লাগছে টেসলার গায়ে

  • প্রযুক্তি ডেস্ক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2022-05-21 16:09:54 BdST

bdnews24
ছবি: রয়টার্স

প্রচলিত নিয়মনীতির বাইরে গিয়ে সাহসী আর উচ্চাভিলাসী সিদ্ধান্ত সাফল্য এনে দিয়েছে টেসলা আর এর প্রতিষ্ঠাতা ইলন মাস্কের জন্য। কিন্তু মার্কিন রাজনীতি নিয়ে ‘অনাকাঙ্ক্ষিত’ মন্তব্য আর যৌন হয়রানির সাম্প্রাতিক অভিযোগ আঁচড় কাটছে এই প্রযুক্তি উদ্যোক্তা আর তার বৈদ্যুতিক গাড়ির মোমপালিশ ইমেজে।

২০১৬ সালে এক প্রাইভেট ফ্লাইটের বিমানবালাকে যৌন হয়রানি করেছেন বলে মাস্কের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে। বিসনেস ইনসাইডারে প্রাকাশিত ওই অভিযোগ মাস্ক অস্বীকার করেছেন বৃহস্পতিবার। রয়টার্সের প্রতিবেদন বলছে, ওই বিমানবালাকে মিথ্যাবাদীও বলেছেন তিনি, যদিও বিষয়টি অর্থের বিনিময়ে ধামাচাপার প্রমাণ মেলার কথা উঠে এসেছে ইনসাইডারের প্রতিবেদনেই।

এরইমধ্যে যখন প্রায় সাড়ে চার হাজার কোটি ডলারে প্রভাবশালী সামাজিক মাধ্যম টুইটার কেনা নিয়ে আলাপ আর দরকষাকষি চলছে, সে সময় মাস্ক ঘোষণা দিয়েছেন, এখন থেকে তিনি ডেমোক্রেটিক দলের বদলে রিপাবলিকানদেরই সমর্থন দেবেন। তার ভাষায়, ডেমোক্রেটিক দলটি আদতে “বিভাজন আর ঘৃণা”র চর্চা করছে।

ধাক্কা এসেছে পুঁজিবাজার থেকেও। ডাও জোন্স পুঁজিবাজারের প্রভাবশালী ‘এসঅ্যান্ডপি ৫০০ ইএসজি’ তালিকা থেকে বাদ গেছে টেসলার নাম। এর ফলে মার্কিন অর্থনীতিতে সবচেয়ে প্রভাবশালী কোম্পানিগুলোর তালিকা থেকে ছিটকে পড়ল বৈদ্যুতিক গাড়ির এই শীর্ষ নির্মাতা।

মাস্কের বাক্যবাণ ছুটে এসেছে এই ঘটনাতেও। তিনি বলছেন, এই ইএসজি বা এনভায়রনমেন্টাল সোশাল অ্যান্ড গভর্ন্যন্স ইসডেস্ক হলো আসলে ‘বুজরুকি’। তিনি প্রশ্ন তুলেছেন, যেখানে তেল-গ্যাস উৎপাদক কোম্পানির নাম এই তালিকায় রয়েছে, সেখানে কী করে বৈদ্যুতিক গাড়ি নির্মাতার নাম তারা বাদ দিতে পারলো!

এ বিষয়ে মন্তব্যের জন্য যোগাযোগ করেও টেসলার বক্তব্য জানতে পারেনি রয়টার্স।

এর আগেও চাঁছাছোলা এবং অভব্য মন্তব্যের জন্য খবরের শিরোনাম হয়েছেন মাস্ক। এক সমালোচককে ‘শিশু নিপীড়ক’ বলে পরে সেজন্য ক্ষমা চাওয়া মাস্ক এখন নতুন প্রশ্নের মুখোমুখি।

টেসলা আর মাস্ক এতোটাই ঘনিষ্ট যে টেসলাই মাস্ক, আর মাস্কই টেসলা। চোখা মন্তব্যের ধারে তিনি টেসলার ক্ষতি করছেন কি না, সেই প্রশ্ন উঠছে এখন, বিশেষ করে ক্যালিফোর্নিয়ায়।

বামঘেঁষা এই অঙ্গরাজ্যটিতেই গোটা মার্কিন বাজারে টেসলার গাড়ি নিবন্ধনের শতকরা ৪০ ভাগ হয়েছে গত বছর। ‘ক্যালিফোর্নিয়া নিউ কার ডিলার্স অ্যাসোসিয়েশনে’র দেওয়া তথ্য বলছে, গেল বছরে সেখানে টেসলার বিক্রি বেড়েছে শতকরা ৭০ ভাগ। এটি গোটা মার্কিন বাজারের সাড়ে ছয় শতাংশ।

আর এখন টেসলা বয়কটের হ্যাশট্যাগ চলে এসেছে টুইটারে টেন্ডিং অংশে।

“অতীতে পরিবেশবান্ধব ব্যবসার জন্য আমি তার প্রশংসা করেছি, বিশেষ করে জ্বালানী সেক্টরে বৈপ্লবিক পরিবর্তনের আশা দেখিয়েছেন তিনি। কিন্তু দুঃখজনকভাবে তিনি দিনদিন ‘ট্রল’ হয়ে উঠছেন।” - বলেন জে ইয়েহ নামে  একজন টুইটার ব্যবহারকারী, যিনি নিজেকে একজন আইনজীবী হিসাবে বর্ণনা করেছেন। লস অ্যাঞ্জেলেসসহ বেশ কয়েকটি মার্কিন শহরে বসবাস করা জে বলছেন, তিনি তার টেসলা অর্ডার বাতিল করবেন।

“আমি আর বিশ্বাস করি না যে, তিনি পণ্যমানের জন্য আর আগের মতো নিবেদিত।”

“আপনি একজন সম্ভাব্য গ্রাহক হারালেন।” - জার্মানি থেকে লিখেছেন উটে বাউয়ার নামে একজন টুইটার ব্যবহারকারী। জার্মান ভাষায় তিনি লিখেছেন, “আপনি যদি এটি পড়ে থাকেন তবে আপনার অর্ডার বাতিল করুন।‎”

‎তবে টেসলার কোনো অর্ডার আসলেই বাতিল হয়েছে কিনা তা নিশ্চিত হতে পারেনি রয়টার্স।‎

বিনিয়োগকারীরা হয়তো বাজারে টেসলার শক্ত অবস্থানের কারণে এখনই টেসলার সঙ্গে সম্পর্ক ত্যাগ করবেন না। “তবে তার মানে এই নয় যে লোকজন হতাশ হচ্ছেন না।” - উঠে এসেছে রয়টার্সের প্রতিবেদনে।

“তাদের অনেক ভালো কাজ রয়েছে।” - বলেন, স্নোবুল ক্যাপিটালের প্রধান নির্বাহী টেইলার ওগান, যার কোম্পানিটিও টেসলায় বিনিয়োগ করেছে। “দুঃখজনক হয়ে ওঠে যখন ওইসব ভালো কাজ ইলন মাস্কের খামখেয়ালীপনায় চাপা পড়ে যায়।”

“টেসলার জন্য সবচয়ে ভালো বিষয় ইলন মাস্ক, সবচয়ে খারাপ বিষয়ও ইলন মাস্ক।”

টেসলার এক কর্মীও রয়টার্সের কাছে তার হতাশা প্রকাশ করেছেন পরিচয় গোপন রাখার শর্তে। টেসলার বাইরে করা মাস্কের কর্মকাণ্ড, তার মতে, টেসলার শেয়ারে থাবা বসাচ্ছে।

“এ বিষয়ে টেসলার কিছু একটা করা উচিৎ।”

শুক্রবারই এক ধাক্কায় কোম্পানির শেয়ার মূল্য পড়ে গেছে শতকরা প্রায় নয় ভাগ। বাজারে টেসলার মূল্য থেকে গায়েব হয়ে গেছে প্রায় ছয় হাজার ছয়শ’ কোটি ডলার। গত বছরের অগাস্টের পর টেসলা শেয়ারের মূল্য এতোটা কমার নজির নেই। টুইটার কেনার ডামাডোলে বিশ্লেষকরা একে বলছেন, “বিভ্রান্তির ঝুঁকি”। যদিও মাস্ক নিশ্চয়তা দিয়ে বলেছেন, তার মনোযোগের কেন্দ্র টেসলাই।

ছবি: রয়টার্স

ছবি: রয়টার্স

“কাজের পরিবেশে যেখানে কর্মীদের মধ্যে আলোচনা হওয়ার কথা ওয়াটার কুলার বা অন্য কোনো কারিগরি বিষয়ে, সেখানে যদি আলোচনার জায়গা দখল করে মাস্কের যৌন হয়রানির কেচ্ছা, তাহলে এর ফলাফল টেসলা ব্র্যান্ডের জন্য ক্ষতিকর হতে বাধ্য।” - বলেন জেনারেল মোটর্সের সাবেক গ্রুপ ভাইস প্রেসিডেন্ট জন স্মিথ। বৈশ্বিক পণ্য পরিকল্পনার দায়িত্বে ছিলেন তিনি।

‎টেসলা এবং স্পেসএক্স কর্মীরাও মাস্কের ডেমোক্রেটিক পার্টিবিরোধী মন্তব্যের কারণে “খানিকটা বিচলিত এবং হতাশ” হয়ে উঠতে পারেন, কারণ ক্যালিফোর্নিয়ায় প্রযুক্তি কর্মীরা সাধারণত রাজনীতির প্রশ্নে উদারপন্থী। - বলেন প্রযুক্তি প্রতিভা খোঁজার এজেন্সি ক্যাডারের প্রতিষ্ঠাতা জেসন স্টোমেল‎।

তবে, ‎নাসা প্রধান বিল নেলসনের ভরসা মাস্কের ওপরই আছে। মাস্কের মহাকাশযান কোম্পানি স্পেসএক্সে কর্মীদের একটি নির্ভরযোগ্য ও একটি শক্তিশালী দল রয়েছে এবং নাসার সঙ্গে তাদের কাজ ঝামেলাহীনভাবেই চলছে বলে রয়টার্সকে জানিয়েছেন তিনি। মহাকাশে নভোচারীদের আনানেওয়ার কাজে এখন স্পেসএক্সের ওপরই নির্ভর করছে নাসা।

অনলাইনে মাস্কের এখনও অসংখ্য ভক্ত রয়েছে। জেভেগা১০৩ নামে এক টুইটার ব্যবহারকারী বলেন, তিনি রিপাবলিকান দলের সমর্থক, টেসলা গাড়ির মালিক এবং মাত্রই টেসলা সোলার প্যানেল কেনার জন্যও নাম লিখিয়েছেন। টুইটে তিনি মাস্ককে যাবতীয় কর্মকাণ্ডের জন্য ধন্যবাদ দিয়েছেন।‎

এসব কিছুর ফলেই কিছু শিল্প পর্যবেক্ষক বিস্ময় নিয়ে অপেক্ষায় আছেন যে, মাস্ক এবং টেসলা সর্বশেষ এই বিতর্কিত বিষয়গুলো অতীতের মতো ঝেড়ে ফেলতে পারবে কিনা।‎

ইলন মাস্ক কি উন্মাদ না কি শিয়ালের মতো ধূর্ত? - প্রশ্ন তুলেছেন নর্থওয়েস্টার্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক এরিক কোয়ালম্যান।

তবে, এ প্রশ্নের যুতসই জবাব সম্ভবত মাস্ক নিজেই দিয়েছিলেন টিভির কাল্ট কমেডি শো ‘স্যাটারডে নাইট লাইভ’ উপস্থাপনায়।

“আপনারা কী ভেবেছিলেন, আমি স্বাভাবিক একজন মানুষ হবো?”