২৫ মার্চ ২০১৯, ১১ চৈত্র ১৪২৫

জাপানে দাবদাহে ১০ জনের মৃত্যু

  • নাদিম মাহমুদ, জাপান থেকে, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2018-07-20 16:27:11 BdST

bdnews24

জাপানে ভূমিকম্প আর টানা বৃষ্টিপাতে ২১৫ জনের মৃত্যুর পর এবার দাবদাহে ১০ জন মারা যাওয়ার খবর পাওয়া গেছে। হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়েছে আরো ১০ হাজার মানুষকে।

জাপানের অগ্নিনির্বাপন ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিভাগ এ তথ্য জানিয়েছে।

গত শুক্রবার  থেকে জাপান জুড়ে  গড় তাপমাত্রা ৩৬ ডিগ্রি সেলসিয়াসের ওপর থাকায় জনজীবনে স্থবিরতা নেমে এসেছে। প্রয়োজন ছাড়া রাস্তাঘাটে লোকজন বের হচ্ছে না।

বুধবার দেশটির সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৪০ দশমিক ৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস। গিফু প্রদেশের তাজিমি শহরের রেকর্ড তাপমাত্রা ধরা পড়ে। অন্যান্য প্রদেশে তাপমাত্রা ৩৬ থেকে ৩৮ ডিগ্রির মধ্যে ছিল।

বাণিজ্যিক নগরী ওসাকাতে ৩৮ দশমিক ৫, ইবারাকিতে ৩৮ ডিগ্রি, ওজু ও ইমিতে ৩৫ ডিগ্রি, অচিতে ৩৮, নিশোতোশিতে ৩৭ এবং  গুনমাতে ৩৮ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে।

দূর্যোগ ও ব্যবস্থাপনা দফতর জানিয়েছে, তাপমাত্রা অস্বাভাবিকরকম বেড়ে যাওয়ায় হাসপাতালগুলোতে রোগীর সংখ্যা বাড়ছে। গত কয়েকদিনে ৯ হাজার ৯৫৬ জন কে হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়েছে। এ সংখ্যা আরো বাড়তে পারে।

স্থানীয় সংবাদ মাধ্যমগুলো বলছে, তীব্র তাপমাত্রায় হৃদআক্রান্ত হওয়ার সম্ভবনা বেশি। এ সমস্যা এড়ানোর জন্য অনেকেই হাসপাতালগুলোতে ভিড় জমাচ্ছে। জাপানের রাজধানী টোকিওতে হিটস্ট্রোকে আক্রান্ত হয়েছে ১ হাজার ৯৫ জন, অচি প্রদেশে ৯৮৯ জন।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তর জানিয়েছে, জরুরি প্রয়োজন ছাড়া কেউ যেন ঘরের বাইরে বের না হয়। বয়স্কদের শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত ঘরে থাকার জন্য অনুরোধ জানানো হয়েছে।

আবাহাওয়া অধিদপ্তর বলছে, তাপদাহ আরো এক সপ্তাহ স্থায়ী হতে পারে।

গত ১৮ জুন ওসাকায় ৬ দশমিক ১ মাত্রার ভূমিকম্পে ৫ জন নিহত হয়েছিল। এরপর চলতি মাসের গোড়ার দিকে সমগ্র দেশজুড়ে অতিবৃষ্টিতে ভূমিধস ও বন্যায় ২১০ জন নিহত হয়েছে বলে সরকার জানিয়েছেন।