২১ এপ্রিল ২০১৯, ৮ বৈশাখ ১৪২৬

ট্রাম্প কি রাশিয়ার পক্ষে কাজ করছিলেন, তদন্ত করেছিল এফবিআই: নিউ ইয়র্ক টাইমস

  • নিউজ ডেস্ক বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2019-01-12 20:17:35 BdST

bdnews24

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প গোপনে রাশিয়ার পক্ষে কাজ করছেন কি না, তা নিয়ে দেশটির গোয়েন্দা সংস্থা এফবিআই তদন্ত শুরু করেছিল বলে খবর দিয়েছে নিউ ইয়র্ক টাইমস।

২০১৭ সালের মে মাসে ট্রাম্প এফবিআইয়ের পরিচালক জেমস কোমিকে বরখাস্ত করার পর সংস্থাটি এ তদন্ত শুরু করেছিল বলে অজ্ঞাত সূত্রের বরাত দিয়ে জানিয়েছে পত্রিকাটি।

ওই সময় ট্রাম্পের আচরণে মার্কিন আইন প্রয়োগকারী কর্মকর্তারা উদ্বিগ্ন হয়ে উঠেছিলেন বলে নিউ ইয়র্ক টাইমসের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

এতে বলা হয়, ট্রাম্প জেনে অথবা না জেনে মস্কোর পক্ষে কাজ করছেন কি না এবং তিনি যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় নিরাপত্তার জন্য হুমকি কি না, তা নিয়ে তদন্তটি শুরু করা হয়েছিল।

ট্রাম্পের কোমিকে বরখাস্তের ঘটনায় বিচারে বাধা সৃষ্টি হয়েছে কি না এবং এতে ফৌজদারি কোনো অপরাধ হয়েছে কি না, তদন্তে তাও দেখা হচ্ছিল।

এফবিআইয়ের এ তদন্ত দ্রুতই স্পেশাল কাউন্সেল রবার্ট মুলারের তদন্তের অংশীভূত করে নেওয়া হয় বলে নিউ ইয়র্ক টাইমসের ভাষ্য।

কোমিকে বরখাস্তের পরপরই যুক্তরাষ্ট্রের ২০১৬ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রাশিয়ার প্রভাব বিস্তার এবং মস্কোর সঙ্গে ট্রাম্পের প্রচার শিবিরের সম্ভাব্য আঁতাতের বিষয়ে তদন্তের জন্য স্পেশাল কাউন্সেল হিসেবে মুলারকে নিয়োগ দেওয়া হয়।

তবে ‘ট্রাম্প মস্কোর পক্ষে কাজ করছেন কি না এবং তিনি যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় নিরাপত্তার জন্য হুমকি কি না’, তদন্তের এ অংশটি এখনও সচল আছে কি না তা স্পষ্ট নয় বলে জানিয়েছে নিউ ইয়র্ক টাইমস।

অপরদিকে তাদের এই প্রতিবেদনের নিন্দা জানিয়েছে হোয়াইট হাউস। ট্রাম্পের বিরুদ্ধে ওই তদন্তের খবর ‘অবাস্তব’ বলে মন্তব্য করেছেন হোয়াইট হাউসের প্রেস সেক্রেটারি সারাহ হাকবি স্যান্ডার্স।

এক বিবৃতিতে তিনি বলেছেন, “পক্ষভুক্ত নিন্দনীয় ভাড়াটে লোক হওয়ায় জেমস কোমিকে বরখাস্ত করা হয়েছিল, আর তার সহকারী অ্যান্ড্রু ম্যাককেইব, যে ওই সময় দায়িত্বে ছিল, একজন পরিচিত মিথ্যাবাদী যাকে এফবিআইই বরখাস্ত করেছে।

“প্রেসিডেন্ট ওবামা রাশিয়া ও অন্যান্য বিদেশি প্রতিপক্ষগুলোকে আমেরিকাকে ধাক্কা দেওয়ার সুযোগ করে দিয়েছিলেন, প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প তেমন নন, তিনি রাশিয়ার বিষয়ে বেশ কঠোর।”