১৮ জুলাই ২০১৯, ৩ শ্রাবণ ১৪২৬

অচলাবস্থা: ট্রাম্প খড়্গে কাটা পড়ল স্পিকারের আফগানিস্তান সফর

  • নিউজ ডেস্ক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2019-01-18 11:09:10 BdST

bdnews24

চার সপ্তাহ ধরে চলা কেন্দ্রীয় সরকারের আংশিক অচলাবস্থার অজুহাতে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রতিনিধি পরিষদের স্পিকার ন্যান্সি পেলোসির আফগানিস্তান সফর বাতিল করে দিয়েছেন।

সংকট নিরসনে মধ্যস্থতায় প্রভাবশালী এ ডেমোক্রেট নেতার দেশে থাকা প্রয়োজন উল্লেখ করে এ পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

মেক্সিকো সীমান্তে দেয়াল নির্মাণে বরাদ্দ নিয়ে ডিসেম্বরের শেষ প্রান্তে শুরু হওয়া এ অচলাবস্থা এরইমধ্যে রেকর্ড ২৭ দিন অতিক্রম করেছে।

বৃহস্পতিবার মার্কিন সামরিক বাহিনীর এয়ারক্রাফটে চেপেই ন্যান্সি ও প্রতিনিধিদলের ব্রাসেলস এবং আফগানিস্তানে যাওয়ার কথা ছিল।

ট্রাম্প ওই এয়ারক্রাফটের যাত্রা আটকে দিয়েই চলতি মাসের শুরুতে স্পিকারের দায়িত্ব নেওয়া পেলোসির সফর বাতিল করেন বলে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

ন্যান্সি এর আগে বুধবার রাজনৈতিক অচলাবস্থার কারণ দেখিয়ে ট্রাম্পকে স্টেট অব দ্য ইউনিয়ন ভাষণ স্থগিতের অনুরোধ জানিয়েছিলেন।

বছরের শুরুতে কংগ্রেসের যৌথ অধিবেশনে প্রেসিডেন্টের ওই স্টেট অব দ্য ইউনিয়নের ভাষণ দেওয়ার রেওয়াজ আছে।

অবৈধ অভিবাসীদের যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশ ঠেকাতে নির্বাচনী প্রচারের শুরু থেকেই মেক্সিকো সীমান্তে দেয়াল নির্মাণের প্রতিশ্রুতি দিয়ে এসেছেন ট্রাম্প।

দেয়াল নির্মাণের ব্যয় মেক্সিকোর কাছ থেকে আদায় করার কথা বললেও দেশটির সরকার তা প্রত্যাখ্যান করলে, পরে ওই বক্তব্য থেকে সরে আসেন রিপাবলিকান প্রেসিডেন্ট।

ট্রাম্প তার প্রতিশ্রুতি পূরণে কংগ্রেসের কাছে ৫৭০ কোটি ডলার চেয়েও সুবিধা করতে পারেননি।

প্রতিনিধি পরিষদে সংখ্যাগরিষ্ঠ ডেমোক্রেটদের সাহায্য ছাড়া নিম্নকক্ষে ট্রাম্পের দেয়ালের বরাদ্দ অনুমোদন পাবে না। উচ্চকক্ষ সিনেট থেকে ছাড়পত্র পেতেও ডেমোক্রেটদের সহায়তা লাগবে।

ডেমোক্রেটরা বলছে, জনগণের করের টাকায় প্রেসিডেন্টের অযৌক্তিক প্রতিশ্রুতির বাস্তবায়ন হতে পারে না।

অন্যদিকে ট্রাম্প বলেছেন, দেয়াল নির্মাণের বরাদ্দ ছাড়া তিনি কোনো বাজেট বিলে স্বাক্ষর করবেন না।

দুই পক্ষের অনড় অবস্থানে বাজেট অনুমোদিত না হওয়ায় ডিসেম্বরের ২২ তারিখ থেকে মার্কিন কেন্দ্রীয় সরকারের এক চতুর্থাংশ বিভাগ ও সংস্থার কার্যক্রম বন্ধ হয়ে যায়। যার কারণে প্রায় ৮ লাখ সরকারি কর্মী যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসের সবচেয়ে দীর্ঘ এ অচলাবস্থায় বেতনহীন অবস্থায় দিন কাটাতে বাধ্য হচ্ছেন।

মার্কিন গণমাধ্যমগুলো জানিয়েছে, পেলোসির ও প্রতিনিধি দলের অন্য সদস্যদের আফগানিস্তান যাত্রার কয়েকঘণ্টা আগে বৃহস্পতিবার ট্রাম্প নির্ধারিত ওই সফর বাতিল করেন।

হোয়াইট হাউসের প্রেস সেক্রেটারি সারাহ স্যান্ডার্স পরে টুইটারে এ সংক্রান্ত প্রেসিডেন্টের চিঠিও তুলে দেন। এতে ট্রাম্প সীমান্ত সুরক্ষা নিয়ে আলোচনা ও অচলাবস্থা নিরসনে প্রতিনিধি পরিষদের স্পিকারের দেশে থাকাই ভালো হবে বলে মন্তব্য করেন।

ট্রাম্প বলেন, তিনি কেবল সামরিক এয়ারক্রাফটের উড্ডয়ন বাতিল করেছেন, পেলোসির সফর নয়। ডেমোক্রেট এ নেত্রী চাইলে বেসরকারি বিমানে চেপে নির্ধারিত সফরে অংশ নিতে পারেন বলেও চিঠিতে বলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট।

অচলাবস্থার কারণে যুক্তরাষ্ট্র জানুয়ারির শেষে সুইজারল্যান্ডের দাভোসে হতে যাওয়া ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক ফোরামের সম্মেলনেও প্রতিনিধি পাঠাচ্ছে না, বৃহস্পতিবার পরে দেওয়া এক বিবৃতিতে জানিয়েছে হোয়াইট হাউস।

দাভোস সম্মেলনে যাচ্ছেন না বলে আগেই জানিয়েছিলেন ট্রাম্প; তার বদলে মার্কিন অর্থমন্ত্রী স্টিভেন ম্নুচিনের নেতৃত্বে ছোট একটি দল অংশ নেবে বলে মঙ্গলবার জানিয়েছিল মার্কিন প্রশাসন। বৃহস্পতিবার ওই দলেরই যাত্রা বাতিল হল।

ট্রাম্পের খড়্গের আগে পেলোসির আফগানিস্তান সফরের কথাও আনুষ্ঠানিকভাবে জানানো হয়নি। সফরের মাঝপথে চালককে বিশ্রাম দিতে এবং মার্কিন প্রতিনিধি পরিষদের স্পিকারের সঙ্গে শীর্ষ নেটো কমাণ্ডারদের সাক্ষাৎপর্বের জন্য ব্রাসেলসে যাত্রাবিরতির পরিকল্পনা ছিল।

মার্কিন নেতৃত্বাধীন এ সামরিক জোটের প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের ‘ইস্পাতদৃঢ় সমর্থনের’ কথা পুনর্ব্যক্ত করতেই ন্যান্সির নেটো সদরদপ্তরে যাওয়ার পরিকল্পনা ছিল বলে তার ডেপুটি চিফ অব স্টাফ ড্রিউ হ্যামিল পরে সাংবাদিকদের জানান।

সফরে পেলোসির মিশরে নামার কোনো পরিকল্পনা ছিল না বলেও নিশ্চিত করেছেন তিনি।

অচলাবস্থার কারণ দেখিয়ে প্রতিনিধি পরিষদের স্পিকারের যাত্রা বাতিল করলেও একই সময়ে ট্রাম্প ও রিপাবলিকানদের নির্ধারিত সফরগুলো সময়সূচি মেনেই হচ্ছে বলেও অভিযোগ করেছেন তিনি।