১৮ জুন ২০১৯, ৪ আষাঢ় ১৪২৬

‘স্পিড ব্রেকার দিদি’র জবাবে ‘এক্সপায়ারি বাবু’

  • নিউজ ডেস্ক বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2019-04-03 19:58:34 BdST

bdnews24

ভারতের পশ্চিমবঙ্গে শুরু হয়েছে লোকসভা নির্বাচনী প্রচার। শুরুর দিনেই জমে উঠেছে বাকযুদ্ধ। মুখ্যমন্ত্রী মমতাকে উন্নয়নের পথে ‘স্পিড ব্রেকার দিদি’ বলে কটাক্ষ করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। জবাবে মোদীকেও ‘এক্সপায়ারি বাবু’ বলে একহাত নিয়েছেন রণমুখী মমতা।

বুধবার দুপুরেই শিলিগুড়িতে এক বিশাল জনসভায় যোগ দিয়ে মমতা বন্দোপাধ্যায়কে ‘স্পিড ব্রেকার’ আখ্যা দিয়ে মোদী বলেন, “তিনি কেন্দ্রীয় সব উন্নয়ন প্রকল্প আটকে দিচ্ছেন। গোটা দেশে যে গতিতে উন্নয়ন হয়েছে, বাংলায় তা হয়নি। কারণ পশ্চিমবঙ্গে উন্নয়নের পথে একটি স্পিড ব্রেকার আছে। যাকে আপনারা দিদি বলে ডাকেন। এই দিদি আপনাদের উন্নয়নের স্পিড ব্রেকার।”

এ বাধা সরাতে না পারলে রাজ্যের উন্নয়ন হবে না জানিয়ে মোদী বলেন, “আমি এই স্পিড ব্রেকার সরে যাওয়ার অপেক্ষায় আছি, যেন উন্নয়নের গতি দ্রুততর হয়।” আর সেজন্য বাংলার মানুষকে ভারতীয় জনতা পার্টিকে (বিজেপি) ভোট দেওয়ার আহ্বান জানান মোদী।

সারদা চিটফান্ড কাণ্ডে মমতা সরকারের প্রভাবশালী মন্ত্রী ও বিধায়কদের নাম জড়িয়ে যাওয়া প্রসঙ্গে মোদী বলেন, “দিদি গরিবের কথা ভাবেন না, তিনি রাজনীতি করেন। গরিবকে গরিব রাখাই ওদের লক্ষ্য। গরিবের ভালো তিনি হতে দেবেন না। গরিবের ভাল হলে ওদের রাজনীতি শেষ। নিজের সঙ্গীদের নিয়ে তিনি গরিবকে সর্বশান্ত করেছেন।”

দেশজুড়ে মোদীর স্বাস্থ্য প্রকল্প ‘আয়ুষ্মান স্কিম’ পশ্চিম বঙ্গে আটকে দিয়েছেন মমতা। এ প্রসঙ্গে মোদী বলেন, “আমরা গরিব জনগণকে বলেছি, অসুস্থ হলে তারা হাসপাতালে পাঁচ লাখ রুপি পর্যন্ত বিনামূল্যে চিকিৎসা পাবে এবং এজন্য তাদের এক পয়সা খরচ করতে হবে না। কিন্তু স্পিড ব্রেকার দিদি কী করলেন? তিনি এই স্কিমে ব্রেক দিয়ে দিলেন, যেটা থেকে গরিব মানুষ সুবিধা পেত।”

মোদীর এ আক্রণের জবাবে বুধবার পশ্চিমবঙ্গের দিনহাটায় নির্বাচনী প্রচারের শুরেুতেই মমতা বলেছেন, “তাকে আর প্রধানমন্ত্রী বলব না, এক্সপায়ারি বাবু বলব।” রণমুখী মেজাজে মমতা বলেন, “বাংলাকে চেনেন না আপনি। মানুষ আপনাকে জেলে ভরবে।”

এদিন মোদীকে একের পর এক চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দেন মমতা। তাতে তাকে সরাসরি বিতর্কে নামার আহ্বান যেমন জানিয়েছেন মমতা তেমনি উত্তরবঙ্গের চা বাগান, ছিট মহল, স্বাস্থ্য-শিক্ষা পরিষেবা সব কিছু নিয়েই প্রধানমন্ত্রীকে আক্রমণ করেছেন।

বাংলায় উন্নয়নের জন্য সরকার কি কি করেছে তার ফিরিস্তিও মমতা তুলে ধরেছেন। তৃণমূল কংগ্রেস সরকারের কাজে অগ্রগতি হয়নি বলে মোদীর দাবি মিথ্যা বলে অভিযোগ করেছেন মমতা। তার সরকারের আমলে রাজ্যে কৃষকদের আয় তিনগুণ বেড়েছে বলেও মমতা দাবি করেছেন।