করোনাভাইরাস: চীনে ব্যাংক নোটও থাকবে কোয়ারেন্টিনে

  • নিউজ ডেস্ক বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2020-02-17 20:35:21 BdST

bdnews24

নগদ অর্থের মাধ্যমে প্রাণঘাতী নতুন করোনাভাইরাসের দ্রুত ছড়িয়ে পড়া রোধে নতুন উদ্যোগ নিয়েছে চীনের কেন্দ্রীয় ব্যাংক।

এখন থেকে সব চীনা ব্যাংককে আক্ষরিক অর্থে নগদ অর্থ পরিষ্কার রাখতে হবে- আল্ট্রাভায়োলেট রশ্মি ও উচ্চ তাপমাত্রার সাহায্যে জীবাণুমুক্ত করে বাজারে ছাড়ার আগে ১৪ দিন কোয়ারেন্টিন করে রাখতে হবে।

শনিবার চীনের কেন্দ্রীয় সরকারের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ নির্দেশনা দেওয়া হয় বলে সিএনএন জানিয়েছে।

প্রায় আঠারশ’ মানুষের প্রাণ হরণকারী ও ৭১ হাজারের বেশি মানুষকে সংক্রমিত করা এই ভাইরাস নিয়ে এখনও খুব বেশি কিছু জানা যায়নি। তবে কোভিড-১৯ নামে ভাইরাসটি ভাসমান অবস্থায় অন্তত কয়েক ঘণ্টা জীবিত থাকে বলে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) জানিয়েছে।

একারণে সংক্রমিত এলাকার ভবনগুলোর এলিভেটর বাটন ও দরজার হাতলসহ সাধারণত মানুষের সংস্পর্শে আসা সবকিছুকে নিয়মিতভাবে জীবানুমুক্ত করা হচ্ছে। দিনে বহুবার হাতবদল হওয়া নগদ অর্থের নোট নিয়েও তাই মানুষ উদ্বিগ্ন।

এমন প্রেক্ষাপটে নতুন করোভাইরাস ঠেকাতে সরকারের নানা উদ্যোগের মধ্যে পিপলস ব্যাংক অব চায়না শনিবার নগদ অর্থ নিয়ে এমন উদ্যোগের ঘোষণা দেয়।

হাসপাতাল ও কাঁচা বাজারের মতো উচ্চ সংক্রমণের ঝুঁকিপূর্ণ এলাকাগুলো থেকে আসা ব্যাংক নোটগুলোকে ‘বিশেষ বিবেচনায়’ সংগ্রহ করে কেন্দ্রীয় ব্যাংকে পাঠানো হবে।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের গুয়াংঝু শাখায় নিয়ে এসব উচ্চ-ঝুঁকিপূর্ণ ব্যাংক নোটকে নিছক জীবানুমুক্ত করার বদলে ধ্বংস করা হতে পারে বলে রাষ্ট্রায়ত্ত সংবাদ মাধ্যম গ্লোবাল টাইমস জানিয়েছে।

এর মধ্যে নগদ অর্থের সরবরাহ ঠিক রাখতে কেন্দ্রীয় ব্যাংক নতুন ও জীবানুমুক্ত বিপুল পরিমাণ নোট বাজারে ছাড়া হবে বলে সরকারি বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে। ভাইরাস ছড়ানোর কেন্দ্রস্থল চীনের উহানে জানুয়ারিতে ৪০০ কোটি ইউয়ান (প্রায় ৫৭ কোটি ৩৫ লাখ ডলার) সমমূল্যের ব্যাংকনোট ছাড়া হয়েছে। 

এছাড়া নগদ হস্তান্তরের মাধ্যমে ভাইরাস ছড়ানো রোধে বেশি উপদ্রুত এলাকায় নগদ মুদ্রা সরবরাহ বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।