ভূমিকম্পে ইন্দোনেশিয়ায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৮১

  • নিউজ ডেস্ক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2021-01-17 09:43:58 BdST

ইন্দোনেশিয়ার সুলাওয়েসি দ্বীপে গত সপ্তাহের শক্তিশালী ভূমিকম্পে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৮১ জনে দাঁড়িয়েছে।

শুক্রবারের ৬ দশমিক ২ মাত্রার ওই ভূমিকম্পের কারণে পশ্চিম সুলাওয়েসি প্রদেশের ১৯ হাজারেরও বেশি মানুষ বাস্তুচ্যুত হয়েছেন বলে সোমবার দেশটির দুর্যোগ মোকাবেলা সংস্থা জানিয়েছে।

বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, অনুসন্ধান ও উদ্ধার অভিযান চলছে, ধসে পড়া ভবনগুলোর ধ্বংসস্তূপের ভেতর জীবিতদের খোঁজে উদ্ধারকর্মীরা নিবিড় তল্লাশি চালিয়ে যাচ্ছেন। 

এক বিবৃতিতে দুর্যোগ মোকাবেলা সংস্থার মুখপাত্র রাদিত্য জাতি জানিয়েছেন, ৮১ জন মারা গেছেন এবং আড়াইশ জনেরও বেশি গুরুতর আহত হয়েছেন। 

ভূমিকম্পে শত শত ঘরবাড়ি, একটি মল, একটি হাসপাতাল ও বেশ কয়েকটি হোটেল ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

হাজার হাজার বাস্তুচ্যুত লোকজনের মধ্যে যেন করোনাভাইরাস ছড়িয়ে না পড়ে তা নিশ্চিত করতেও কর্তৃপক্ষ কাজ করে যাচ্ছে।

সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণের জন্য ‘র‌্যাপিড এন্টিজেন’ পরীক্ষা করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন তিনি। 

এ ভূমিকম্পের পাশাপাশি বিশ্বের চতুর্থ সর্বোচ্চ জনবহুল দেশটিতে ৯ জানুয়ারি একটি যাত্রীবাহী উড়োজাহাজ জাভা সাগরে বিধ্বস্ত হয়ে ৬২ জন নিহত হয়, জাভাতে প্রাণঘাতী ভূমিধসেরও ঘটনা ঘটে এবং মেরাপি ও সেমেরু আগ্নেয়গিরিতে উদ্গিরণের ঘটনা ঘটেছে।

এদিকে বোর্নিও দ্বীপের দক্ষিণ কালিমান্তান প্রদেশে কয়েক সপ্তাহের টানা বৃষ্টিপাতে দেখা দেওয়া বন্যায় ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতির পাশাপাশি অন্তত ১৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। পরিস্থিতি দেখতে সোমবার ইন্দোনেশিয়ার প্রেসিডেন্ট জোকো উয়িদোদো দক্ষিণ কালিমান্তান যাচ্ছেন। 

প্রশান্ত মহাসাগরের কথিত ‘রিং অব ফায়ার’ (প্রশান্ত মহাসাগরীয় আগ্নেয় মেখলা) এর ‍উপর ছড়িয়ে থাকা ইন্দোনেশিয়ায় প্রায়ই ভূমিকম্প হয়। ২০১৮ সালে সুলাওয়েসির পালু শহরে ৭ দশমিক ৫ মাত্রার ভূমিকম্পের পর সুনামি সৃষ্টি হয়েছিল। ওই ঘটনায় কয়েক হাজার মানুষের মৃত্যু হয়েছিল।

ইন্দোনেশিয়ার আবহাওয়া সংস্থার প্রধান দ্বিকোরিতা কার্নাওয়াতি শনিবার স্থানীয় টেলিভিশনকে বলেছেন, আরেকটি পরাঘাত হতে পারে এবং সেটি ৭ মাত্রা পর্যন্ত পৌঁছে যেতে পারে। সুনামি ঝুঁকির কারণে স্থানীয় বাসিন্দাদের সাগর থেকে দূরে থাকার আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

সামনের সপ্তাহগুলোতে বিরূপ আবহাওয়া ও সাগরকেন্দ্রিক ‘বিভিন্ন বিপদ’ দেখা দিতে পারে বলেও পূর্বাভাস দিয়েছে দেশটির আবহাওয়া সংস্থা।