‘সুতোয় ঝুলছে নাভালনির জীবন’

  • নিউজ ডেস্ক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2021-04-19 17:56:35 BdST

bdnews24

কারাগারে অনশনে থাকা রাশিয়ার বিরোধী নেতা অ্যালেক্সি নাভালনির শারীরিক অবস্থা নিয়ে শঙ্কা জানিয়েছেন তার মিত্ররা। তার জীবন সুতোয় ঝুলছে বলে মন্তব্য করেছেন এক মিত্র।

বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানায়, নাভালিনের মিত্র লিউবভ সোবোল বলেছেন, “এক সপ্তাহ ধরে আমরা জানি না তার কি হয়েছে, কারণ আইনজীবীদের তার সঙ্গে দেখা করার অনুমোদন নেই। আশা করছি তার কোনও খবর আমরা পাব কিন্তু সেটা হয়তে ভাল কিছু নয়।”

পায়ে এবং পিঠে প্রচণ্ড ব্যথা হলেও কারা কর্তৃপক্ষ পর্যাপ্ত চিকিৎসা দিচ্ছে না জানিয়ে, গত ৩১ মার্চ থেকে অনশন শুরু করেন রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের কট্টর সমালোচক অ্যালেক্সি নাভালনি।

লিউবভ সোবোল বলেন, “আমার মনে হয় তার শারীরিক অবস্থার বিষয়ে ভাল খবর পাওয়ার কোনও আশা নেই। তার অবস্থা খুব জটিল হয়ে উঠছে, খুবই ভয়ঙ্কর পরিণতির দিকে এগুচ্ছে। ২০ দিন অনশন ধর্মঘট- খুবই আতঙ্কের বিষয়।”

“তার জীবন সুতোয় ঝুলে আছে” উল্লেখ করে আগামী বুধবার বিক্ষোভের পরিকল্পনা করা হয়েছে বলেও জানান তিনি। আশা প্রকাশ করেন, আধুনিক রাশিয়ার ইতিহাসে এটিই হবে সবচেয়ে বড় প্রতিবাদ কর্মসূচি।

এর আগে কিডনি বিকল হয়ে নাভালনি হার্ট অ্যাটাকের ঝুঁকিতে আছেন বলে জানিয়েছিল একটি মেডিকেল ট্রেড ইউনিয়ন।

গত বছরের অগাস্টে নার্ভ এজেন্ট ‘নোভিচক দিয়ে হত্যাচেষ্টা’ থেকে বেঁচে যাওয়ার পর জার্মানিতে কয়েক মাসের চিকিৎসা শেষে ১৭ জানুয়ারি দেশে ফেরেন নাভালনি; সেদিনই গ্রেপ্তার হন তিনি।

রাশিয়ার কারাবন্দি নেতা নাভালনি ‘কিডনি বিকলের ঝুঁকিতে’  

অর্থ আত্মসাতের মামলায় স্থগিত দণ্ড চলাকালে নাভালনির নিয়মিত পুলিশের কাছে হাজিরা দেওয়ার কথা ছিল, যা তিনি লংঘন করেছেন বলে অভিযোগ। শর্ত লংঘনের অভিযোগে এখন স্থগিত ওই দণ্ডই কারাদণ্ডে রূপান্তরিত হয়েছে।

এ মামলাটিকে ‘সাজানো’ দাবি করা নাভালনি তাকে ‘নোভিচক’ দিয়ে হত্যাচেষ্টার দায়ও পুতিনকে দিয়েছেন। রুশ প্রেসিডেন্টকে ‘বিষ প্রয়োগকারী’ বলে অভিহিত করেছেন তিনি।

গত বছর অগাস্টে একটি অভ্যন্তরীন ফ্লাইটে সার্বিয়া থেকে মস্কো ফেরার সময় এককাপ চা পানের পরই অসুস্থ হয়ে কোমায় চলে গিয়েছিলেন ৪৪ বছর বয়সী নাভলনি। বিমানবন্দর থেকে তাকে স্থানীয় একটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল।

অবস্থার পরিবর্তন না হলে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে জার্মানি নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানেই পরীক্ষায় জানায় যায়, সোভিয়েত আমলে তৈরি বিষাক্ত নার্ভ এজন্টে নোভিচক দিয়ে তাকে হত্যার চেষ্টা করা হয়েছিল।

নাভালনিকে নিয়ে পশ্চিমা দেশগুলোর সঙ্গে চাপের সম্পর্ক তৈরি হয়েছে রাশিয়ার। যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের জাতীয় নিরাপত্তা পরামর্শক জ্যাক সুলিভান রোববার জানিয়েছেন, নাভালনি কারাগারে মারা গেলে “পরিণতি” ভাল হবে না।

ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) শীর্ষ কূটনীতিক জোসেপ বোরেল নাভালনির অবস্থা “খুবই উদ্বেগজনক” জানিয়ে রাশিয়াকে অবশ্যই তার চিকিৎসা করতে হবে বলে মন্তব্য করেছেন।

এক ভিডিও বার্তায় তিনি বলেন, “নাভালনির শারীরিক অবস্থার জন্য আমরা রুশ কর্তৃপক্ষকে দায়ী মনে করি।”