পছন্দের খবর জেনে নিন সঙ্গে সঙ্গে

তালেবান লক্ষ্যে যুক্তরাষ্ট্রের বিমান হামলা

  • নিউজ ডেস্ক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2021-07-24 10:21:56 BdST

যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক বিমান এ সপ্তাহে আফগানিস্তানে বেশ কয়েকটি তালেবান লক্ষ্যে হামলা চালিয়েছে।

নিউ ইয়র্ক টাইমস জানিয়েছে, যুক্তরাষ্ট্রের সেনা প্রত্যাহারের পর আফগানিস্তানে সরকারি বাহিনী তালেবানের অগ্রযাত্রার মুখে দুর্বল হয়ে পড়ায় তাদের সহায়তা করতে এবং শক্তি প্রদর্শনের জন্যই এই হামলা চালানো হয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের পরিচালিত হামলাগুলোর মধ্যে অন্তত একটি তাৎপর্যপূর্ণ হামলা ছিল দক্ষিণের গুরুত্বপূর্ণ শহর কান্দাহারে। সেখানে তালেবান বাহিনী শহরের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে নিতে যাচ্ছিল, এমন সময়ে এই বিমান হামলা তালেবানের হাতে শহরের পতন ঠেকিয়ে দেয়।

অন্যান্য হামলা চালানো হয় প্রতিবেশি হেলমান্দ প্রদেশে, এমন তথ্য জানা গেছে তালেবানের বিবৃতি থেকে।

বিবৃতিতে এসব বিমান হামলার কড়া নিন্দা জানিয়ে তালেবানের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, গতবছর সেনা প্রত্যাহার নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে তাদের যে চুক্তি হয়েছিল তার অবমাননা করা হয়েছে এই হামলার মাধ্যমে এবং এজন্য ‘পরিণতি’ ভোগ করার হুমকিও দেওয়া হয়েছে।

তালেবানের এই বিবৃতি থেকে ধারণা করা হচ্ছে, বিমান হামলার প্রভাব পড়েছে তাদের ওপর।

তালেবান যোদ্ধাদের সাম্প্রতিক অগ্রযাত্রা যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক বাহিনী ও প্রশাসনের শীর্ষ কর্মকর্তাদের দুশ্চিন্তায় ফেলে দিয়েছে। তালেবান যোদ্ধারা আফগানিস্তানের ৩৪টি প্রাদেশিক রাজধানীর সবগুলোর নিরাপত্তাই হুমকির মুখে ফেলেছে, এমনকি রাজধানী কাবুলের নিয়ন্ত্রণ গ্রহণেরও ঝুঁকি তির হয়েছে।

গত বুধ ও বৃহস্পতিবার চালানো বিমান হামলা থেকে একটি ইঙ্গিত মিলেছে, তালেবানের অগ্রযাত্রায় যুক্তরাষ্ট্র কতটা উদ্বিগ্ন।

তালেবান যোদ্ধাদের প্রতিরোধ করতে বিভিন্ন স্থানে অবস্থান নিয়ে আছে আফগান সেনারা। ছবি: নিউ ইয়র্ক টাইমস

তালেবান যোদ্ধাদের প্রতিরোধ করতে বিভিন্ন স্থানে অবস্থান নিয়ে আছে আফগান সেনারা। ছবি: নিউ ইয়র্ক টাইমস

যুক্তরাষ্ট্র ও অন্য প্রভাবশালী দেশগুলো আফগান সরকার ও তালেবানের মধ্যে একটি শান্তি চুক্তি করতে চাপ সৃষ্টি করেছে, কিন্তু তালেবানদের ধারণা তারা এই যুদ্ধে জিততে চলেছে, তাই মধ্যস্ততার সময় তারা খুব কম বিষয়ে ছাড় দিচ্ছে।

বুধবার যুক্তরাষ্ট্রের জয়েন্ট চিফস অব স্টাফের চেয়ার জেনারেল মার্ক এ মাইলি সতর্ক করেছেন, তালেবান আফগানিস্তান পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণ নিয়ে নিতে পারে।

পেন্টাগনের কর্মকর্তারা এ সপ্তাহে বিমান হামলা চালানোর বিষয়টি নিশ্চিত করলেও এ বিষয়ে বিস্তারিত তথ্য জানাতে রাজি হননি।

এ সপ্তাহে যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষামন্ত্রী লয়েড জে অস্টিন থ্রি জানান, তাদের সামরিক বাহিনী কাতারের ঘাঁটিতে যুদ্ধ সরঞ্জামের মজুদ বাড়িয়েছে, যাতে আফগানিস্তানে পরিচালনা করতে পারে।

কান্দাহারে আফগানিস্তানের একজন জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের বিমান হামলার পর আফগান সেনাদের মনোবল চাঙা হয়ে উঠেছে।

“আমরা আশা করছি, এ ধরনের বিমান হামলা কান্দাহার শহর থেকে তালেবানদের দূরে সরিয়ে রাখবে,” বলেন এই কর্মকর্তা। 

এদিকে কাবুলে মঙ্গলবার ঈদের নামাজের জন্য জমায়েত হওয়া লোকজনের রকেট হামলা চালানো হয়। পরে এই হামলার দায় স্বীকার করে ইসলামিক স্টেটের একটি শাখা।