পছন্দের খবর জেনে নিন সঙ্গে সঙ্গে

রাশিয়ার নির্বাচনে জয়ের পথে পুতিনপন্থি দল

  • নিউজ ডেস্ক বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2021-09-19 15:21:13 BdST

bdnews24
রাশিয়ার পার্লামেন্ট নির্বাচনে ভোট দিচ্ছেন এক ব্যক্তি। ছবি: রয়টার্স

প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সমালোচক আলেক্সি নাভালনির আন্দোলনকে গুড়িয়ে দেওয়া ও প্রতিপক্ষকে নির্বাচনে নিষিদ্ধ করার পর রাশিয়ার পার্লামেন্ট নির্বাচনে ক্ষমতাসীন দলই জয় পাবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

তিন দিনব্যাপী নির্বাচনের চূড়ান্ত পর্যায়ের ভোট রোববার গ্রহণ করা হচ্ছে, রাশিয়ার ইউরোপীয় ছিটমহল কালিনিনগ্রাদের কেন্দ্রগুলো ১৮০০ জিএমটিতে বন্ধ হবে এবং এর মধ্য দিয়ে ভোট শেষ হবে।

বার্তা সংস্থা রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বছরের পর বছর ধরে জীবনযাত্রার মান নিয়ে অস্থিরতা সত্ত্বেও ক্ষমতাসীন দল ইউনাইটেড রাশিয়ার প্রত্যাশিত জয়কে প্রেসিডেন্ট পুতিনের প্রতি জনসমর্থনের প্রমাণ হিসেবে ব্যবহার করতে পারে ক্রেমলিন।

৬৮ বছর বয়সী প্রেসিডেন্ট পুতিনকে সমর্থন দেওয়া এই দলটির জনসমর্থন হ্রাস পেয়েছে বলে রাষ্ট্রায়ত্ত জরিপ সংস্থাগুলো জানিয়েছে। কিন্তু তারপরও নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী কমিউনিস্ট পার্টি ও জাতীয়তাবাদী এলডিপিআর পার্টির তুলনায় ইউনাইটেড রাশিয়ার জনপ্রিয়তা এখনও বেশি বলে জরিপগুলোর ফলাফলে দেখা গেছে।

রাষ্ট্রীয় দুমার ৪৫০ আসনের মধ্যে প্রায় তিন চতুর্থাংশ ইউনাইটেড রাশিয়ার নিয়ন্ত্রণে। এই সংখ্যাগরিষ্ঠতার জোরেই গত বছর সংবিধান সংস্কার করে নেয় ক্রেমলিন আর তাতে ২০২৪ সালের পর পুতিন আরও দুই মেয়াদে প্রেসিডেন্ট হিসেবে ক্ষমতায় থাকার জন্য নির্বাচনে দাঁড়ানোর অনুমোদন পান। এতে তার সামনে ২০৩৬ সাল পর্যন্ত ক্ষমতায় থাকার সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে। 

“যদি ইউনাইটেড রাশিয়া ব্যবস্থা করে ফেলে (জয়ের) তাহলে আমাদের দেশ আরও পাঁচ বছর দারিদ্রের, পাঁচ বছর দমনের, পাঁচটি হারিয়ে যাওয়া বছরের আশা করতে পারে,” চলতি সপ্তাহে নাভালনির ব্লগে সমর্থকদের উদ্দেশ্যে এমন একটি বার্তা পাঠানো হয়েছে।  

চরমপন্থার অভিযোগ তুলে জুনে নাভালনির আন্দোলনকে নিষিদ্ধ করার পর তার মিত্রদেরও নির্বাচনে প্রার্থী হিসেবে অযোগ্য ঘোষণা করা হয়েছে। অন্যান্য বিরোধীদলীয় প্রার্থীরা জানিয়েছেন, তারা নোংরা নির্বাচনী কৌশলের শিকার হচ্ছেন বা তাদের প্রতিযোগিতা করতে দেওয়া হচ্ছে না।

স্ট্রবেরি ব্যবসায়ী এক কমিউনিস্ট ধনকুবের জানিয়েছেন, তাকে অন্যায়ভাবে নিষিদ্ধ করা হয়েছে। সেইন্ট পিটার্সবাগের বিরোধীদলীয় উদারপন্থি এক রাজনীতিক জানিয়েছেন, ভোটারদের বিভ্রান্ত করতে তার মতো একই নামের আরও দুই প্রার্থীকে দাঁড় করিয়ে দেওয়া হয়েছে।

ক্রেমলিক রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত দমনপীড়নের কথা অস্বীকার করে আইন ভাঙার দায়ে বিভিন্ন ব্যক্তিরা বিচারের মুখোমুখি হয়েছেন বলে জানিয়েছে। প্রার্থীদের রেজিস্ট্রেশন প্রক্রিয়ায় তাদের কোনো ভূমিকা নেই বলে দাবি করেছে ক্রেমলিন ও ইউনাইটেড রাশিয়া উভয়েই।