পছন্দের খবর জেনে নিন সঙ্গে সঙ্গে

উত্তর কোরিয়ায় অনাহারের ঝুঁকিতে শিশু ও বয়স্করা: জাতিসংঘ বিশেষজ্ঞ

  • নিউজ ডেস্ক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2021-10-14 00:01:39 BdST

bdnews24

উত্তর কোরিয়ার সবচেয়ে দুর্বল শিশু ও বয়স্করা অনাহারের ঝুঁকিতে আছে বলে জানিয়েছেন জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক বিশেষজ্ঞ টমাস ওহেয়া কিন্টনা।

উত্তর কোরিয়ার মানবাধিকার বিষয়ক এই বিশেষ জাতিসংঘ কর্মকর্তা দেশটিতে খাদ্য সংকট সৃষ্টির জন্য আন্তর্জাতিক নিষেধাজ্ঞা এবং কোভিড-১৯ মহামারীর কারণে আরোপিত বিধিনিষেধকে দায়ী করেছেন।

টমাস বলেন, সাধারণ উত্তর কোরীয়রা “মর্যাদাপূর্ণ জীবন যাপনের জন্য দৈনন্দিন সংগ্রাম করছে।” সংকট এড়াতে তিনি উত্তর কোরিয়ার পারমাণবিক কর্মসূচির ওপর আরোপ করা জাতিসংঘ নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়ার আহ্বান জানান।

বিবিসি জানায়, উত্তর কোরিয়ার অর্থনীতি খুবই কঠিন পরিস্থিতির মধ্য দিয়ে যাচ্ছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। দেশটি কোভিড ঠেকাতে ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা আরোপসহ সীমান্তও বন্ধ রাখার মতো কঠোর পদক্ষেপ নিয়েছে।

এতে অনেক উত্তর কোরীয়রই আয় কমে গেছে, বিশেষ করে যারা চীন সংলগ্ন সীমান্তে বাণিজ্যের ওপর নির্ভরশীল তারা সমস্যায় পড়েছে। উত্তর কোরিয়া খাদ্য, সার এবং জ্বালানির জন্য চীনের ওপর নির্ভরশীল।

উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং-উন এ সপ্তাহে স্বীকারও করেছেন যে, দেশ খুবই খারাপ পরিস্থিতির মধ্য দিয়ে যাচ্ছে। দেশটির রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা এ খবর প্রকাশ করেছে।

উত্তর কোরিয়ায় খাবারের দাম বেড়ে যাওয়ার খবরও পাওয়া যাচ্ছে। এনকে নিউজ গত জুনেই ১ কেজি কলার দাম ৪৫ ডলার বলে জানিয়েছিল খবরে।

উত্তর কোরিয়ার মানবাধিকার বিষয়ক জাতিসংঘ বিশেষজ্ঞ টমাস তার সর্বসাম্প্রতিক প্রতিবেদনে বলেছেন, “জাতিসংঘের উচিত আন্তর্জাতিক নিষেধাজ্ঞা শিথিলের বিষয়টিতে নজর দেওয়া এবং মানবিক ও জীবনরক্ষাকারী সহায়তা দেওয়ার ব্যবস্থা করা।”

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন বরাবরই বলে এসেছেন তিনি উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে আলোচনা করতে প্রস্তুত। তবে নিষেধাজ্ঞা শিথিলের আগে উত্তর কোরিয়াকে পারমাণবিক অস্ত্র পরিহার করতে হবে বলে তিনি শর্ত দিয়েছেন। তবে উত্তর কোরিয়া এ পর্যন্ত তা করতে অস্বীকৃতি জানিয়ে এসেছে।

এ সপ্তাহের শুরুতেই কিম ফের উত্তেজনা উস্কে দেওয়ার জন্য যুক্তরাষ্ট্রকে দায়ী করেছেন এবং প্রতিরক্ষার জন্য অস্ত্র উন্নয়ন চালিয়ে যাওার দরকার বলে মন্তব্য করেছেন।

অর্থনৈতিক দুর্দশার মধ্যে থেকেও উত্তর কোরিয়া এখনও তাদের অস্ত্র উন্নয়ন এবং ক্ষেপণাস্ত্রের ভান্ডার সমৃদ্ধ করে চলেছে। সাম্প্রতিক সময়ে দেশটি বেশ কয়েকটি ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালিয়েছে। এগুলো নতুন হাইপারসনিক এবং বিমান-বিধ্বংসী ক্ষেপণাস্ত্র বলে দাবি করেছে তারা।