পছন্দের খবর জেনে নিন সঙ্গে সঙ্গে

সোমালিয়ার সেনাবাহিনীর সঙ্গে সাবেক মিত্রের লড়াই, নিহত ৩০

  • নিউজ ডেস্ক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2021-10-25 12:25:11 BdST

bdnews24

সোমালিয়ার সেনাবাহিনীর সঙ্গে তাদের সাবেক মিত্র আহুল সুন্না ওয়াল জামা’আ-র (এএসডব্লিউজে) তীব্র লড়াইয়ে অন্তত ৩০ জন নিহত এবং শতাধিক আহত হয়েছেন বলে স্থানীয় বাসিন্দা ও হাসপাতাল কর্মকর্তারা জানিয়েছেন। 

দেশটির গালমুদুগ রাজ্যের দ্বিতীয় বৃহত্তম জেলা গুরিসেলে শনিবার সকালে দুই পক্ষের মধ্যে লড়াই শুরু হয়ে রোববার পর্যন্ত অব্যাহত ছিল বলে স্থানীয় বাসিন্দারা বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে জানিয়েছেন।

এই সংঘাত জঙ্গি গোষ্ঠী আল শাবাবের বিরুদ্ধে তাদের লড়াইয়ের ক্ষেত্রে উভয় দলকে বিভ্রান্তিতে ফেলার ঝুঁকি তৈরি করছে বলে মত বিশ্লেষক ও স্থানীয় বাসিন্দাদের।

আইন সভার সদস্য ফারাহ আবদুল্লাহি রয়টার্সকে বলেন, “আমি নিশ্চিত ৩০ জনেরও বেশি নিহত হয়েছে, কারণ আমি তাদের মধ্যে ২৭ জনকে চিনি আর তাদের মধ্যে দুই দলেরই লোক আছে।”

রয়টার্স জানিয়েছে, পৃথকভাবে সাক্ষাৎকার নেওয়া স্থানীয় ১০ বাসিন্দার কথায়ও তার বক্তব্যের অনুরূপ তথ্য পাওয়া গেছে।

তবে ঘটনার বিষয়ে সেনাবাহিনী ও এএসডব্লিউজের কোনো মন্তব্য নিতে পারেনি বার্তা সংস্থাটি। 

রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, এএসডব্লিউজে সোমালিয়ার একটি মধ্যপন্থি সুফি মুসলিম গোষ্ঠী যারা আল কায়েদার সঙ্গে সম্পর্কিত আল শাবাবের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে প্রধান একটি ভূমিকা পালন করছে। 

কিন্তু কয়েক বছর ধরে সশস্ত্র এই গোষ্ঠীটি ও সোমালিয়ার কেন্দ্রীয় সরকারের মধ্যে উত্তেজনা তৈরি হচ্ছিল। আল শাবাবের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে সরকার যথেষ্ট ভূমিকা রাখছে না বলে অভিযোগ এএসডব্লিউজের। অপরদিকে এএসডব্লিউজে তাদের অনুমতি ছাড়াই তৎপরতা চালাচ্ছে বলে অভিযোগ সরকারের।

চলতি মাসের প্রথমদিকে কেন্দ্রীয় বাহিনী এএসডব্লিউজের ওপর আক্রমণ শুরু করলে উত্তেজনা চরমে ওঠে। এএসডব্লিউজের হামলা প্রতিহত করতেই আগাম ওই আক্রমণ চালানো হয় বলে কেন্দ্রীয় বাহিনী জানিয়েছিল। কিন্তু এএসডব্লিউজে তাদের আক্রমণ প্রতিহত করে গুরিসেল দখল করে নেয়, জেলাটির বাসিন্দারাও গোষ্ঠীটিকে স্বাগত জানায়।

ওই লড়াইয়ে যারা নিহত হয়েছেন তাদের মধ্যে সোমালিয়া সেনাবাহিনীর কর্মকর্তা ও যুক্তরাষ্ট্র-প্রশিক্ষিত দানাব বাহিনীর কমান্ডার আবদি লাডিফ ফেফলে রয়েছেন, তার এক আত্মীয় রয়টার্সকে জানিয়েছেন।

লড়াইয়ে আহত ৩০ জনকে গুরিসেল শহরের ফায়ো কেয়ার হাসপাতালে ও ১০ জনকে ইসতারলিন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে বলে হাসপাতাল দুটির কর্মকর্তারা জানিয়েছেন। নিকটবর্তী হানানো হাসপাতালে আরও ৬০ জনকে ভর্তি করা হয়েছে।

গালমুদুগ বিমানবন্দরের এক কর্মী রয়টার্সকে বলেছেন, সোমালিয়ার সেনাবাহিনী এক বিমান ভর্তি আহত সৈন্যকে রাজধানী মোগাদিশুতে নিয়ে গেছে।

গালমুদুগ রাজ্যের নিরাপত্তামন্ত্রী আহমেদ মোয়ালিম ফিকি চলতি মাসের প্রথমদিকে পদত্যাগ করেন। এএসডব্লিউজের ওপর আক্রমণ না করার জন্য আবেদন জানালেও কেন্দ্রীয় কর্মকর্তারা তার অনুরোধে কান দেননি বলে অভিযোগ করেছেন তিনি।

শনিবার তিনি বলেন, “গালমুদুগের অনেক এলাকা এবং পুরো দেশ আল শাবাবের অধীনে। সেনাবাহিনীর কমান্ডার গুরিসেল শহরকে ধ্বংস করে দিচ্ছে এবং যারা আল শাবাবকে নির্মূল করার জন্য বিখ্যাত সেই এএসডব্লিউজের লোকজনকে হত্যা করছে।” 

শনিবার রাতে আল শাবাব জঙ্গিরা গালমুদুগ বিমানবন্দরে মর্টার হামলা চালিয়েছে বলে বিমানবন্দরটির কর্মীরা জানিয়েছেন।

বিশ্লেষক ওমর মাহমুদ জানিয়েছেন, জঙ্গি গোষ্ঠীটি সেনাবাহিনী ও এএসডব্লিউজের আন্তঃকলহের সুযোগ নিতে পারে বলে আশঙ্কা ঘনিভূত হচ্ছে।