পছন্দের খবর জেনে নিন সঙ্গে সঙ্গে

পাকিস্তানের জয়ে উল্লাস, উত্তরপ্রদেশে তিন কাশ্মীরি শিক্ষার্থী গ্রেপ্তার

  • নিউজ ডেস্ক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2021-10-28 18:22:29 BdST

bdnews24
গ্রেপ্তার ৩ শিক্ষার্থী। ছবি টুইটার/আনন্দবাজার থেকে নেওয়া

টি২০ ক্রিকেট বিশ্বকাপের সুপার টুয়েলভ পর্বের খেলায় ভারতের বিপক্ষে পাকিস্তানের জয়ে উল্লাস করার অভিযোগে উত্তরপ্রদেশের পুলিশ তিন কাশ্মীরি শিক্ষার্থীকে গ্রেপ্তার করেছে।

রোববারের ওই খেলায় পাকিস্তান ভারতকে ১০ উইকেটে হারিয়েছিল।

উত্তরপ্রদেশের পুলিশ জানিয়েছে, তারা যে তিন শিক্ষার্থীকে গ্রেপ্তার করেছে, তারা ভারত-পাকিস্তান খেলার সময় ‘ভারতবিরোধী ও পাকিস্তানপন্থি’ স্লোগান দিয়েছিল। গ্রেপ্তারকৃতদের বিরুদ্ধে সাইবার সন্ত্রাসবাদ ও বিদ্বেষ প্রচারের অভিযোগ আনা হয়েছে।

পাকিস্তানি ক্রিকেট দলের জয় উদ্‌যাপন করায় ভারতের অনেক জায়গায় মুসলমানদের ওপর যে ব্যাপক দমনপীড়ন নেমে এসেছে আগ্রার একটি কলেজের এই তিন শিক্ষার্থীকে গ্রেপ্তার তার সর্বশেষ নজির বলে এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে বিবিসি। 

আনন্দবাজার জানিয়েছে, পাকিস্তানের জয়ে উল্লাস করায় আগ্রার রাজা বলবৎ সিং কলেজের প্রকৌশলবিদ্যার তিন শিক্ষার্থীকে সোমবার কর্তৃপক্ষ বহিষ্কার করে। এরা হলেন- চতুর্থ বর্ষের শওকত আহমেদ গানাই এবং তৃতীয় বর্ষের আরশাদ ইউসুফ ও ইনায়েত আলতাফ শেখ। বুধবার পুলিশ তাদের গ্রেপ্তার করে।

উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ বলেছেন, পাকিস্তানের জয়ে যারা উল্লাস প্রকাশ করেছে, তাদের বিরুদ্ধে ‘দেশদ্রোহিতার’ অভিযোগ আনা হবে।

সমালোচকরা বলছেন, রোববারের ওই খেলায় হেরে যাওয়ার পর অনেক ভারতীয়ই তাদের ‘খেলোয়াড়সুলভ মনোভাব’ জলাঞ্জলি দিয়ে দোষ চাপানোর জন্য ‘বলির পাঁঠা’ খুঁজছেন্।

পাকিস্তানের কাছে পরাজয়ের পর ভারতীয় দলের একমাত্র মুসলিম খেলোয়াড় মোহাম্মদ শামিকে অনলাইনে ভয়াবহ আক্রমণ ও গালিগালাজের শিকার হতে হয়েছে। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ব্যবহারকারী অনেক ভারতীয়র ভাষ্য, শামি ইচ্ছা করেই পাকিস্তানকে বেশি রান দিয়েছেন। অনেকে তাকে ‘বিশ্বাসঘাতক’ বলেও অভিহিত করেছে।  

তিন কাশ্মীরি শিক্ষার্থীকে পাকিস্তানি ক্রিকেটারদের প্রশংসা করে হোয়াটসঅ্যাপে পোস্ট দেওয়ার অভিযোগে কলেজ কর্তৃপক্ষ বহিষ্কার করে বলে জানিয়েছে বিবিসি।

পুলিশ বলছে, ক্ষমতাসীন ভারতীয় জনতা পার্টির (বিজেপি) কয়েক সদস্য ওই শিক্ষার্থীদের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করার পর বুধবার তাদের গ্রেপ্তার করা হয়।

রোববার থেকে ভারতের বিভিন্ন অঞ্চলে পাকিস্তান ক্রিকেট দলের জয়ে উল্লাস করার কারণে আরও অনেক মুসলিমকেই বিপাকে পড়তে হয়েছে। 

মরুরাজ্য রাজস্থানে পাকিস্তানের জয় উদ্‌যাপন সংক্রান্ত একটি হোয়াটসঅ্যাপ পোস্ট শেয়ার করায় এক স্কুলশিক্ষিকা চাকরি হারিয়েছেন; বুধবার তাকেও গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা পিটিআই। 

পাঞ্জাবে পাকিস্তানের জয় উদ্‌যাপন করা কাশ্মীরি শিক্ষার্থীদের ওপর হামলা হয়েছে বলে খবর দিয়েছে স্থানীয় গণমাধ্যমগুলো।

রোববারের খেলার সময় পাকিস্তানের পক্ষে স্লোগান দেওয়ায় ভারত নিয়ন্ত্রিত কাশ্মীরের দুটি মেডিকেল কলেজের কয়েক কর্মী ও শিক্ষার্থীর বিরুদ্ধে সন্ত্রাসবিরোধী আইনে মামলা দিয়েছে পুলিশ।

যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক এক বার্তা সংস্থা জানায়, বিশ্বকাপের সুপার টুয়েলভ পর্বে ভারতের বিপক্ষে পাকিস্তানের জয়ের পর কাশ্মীরের শত শত বাসিন্দা রাস্তায় নেমে ‘পাকিস্তান জিন্দাবাদ’ স্লোগান দিয়েছিল।

ভারত ও পাকিস্তান উভয় দেশই সমগ্র কাশ্মীরকে তাদের নিজেদের ভূখণ্ড বলে দাবি করে এলেও দেশ দুটি কাশ্মীরের আলাদা আলাদা অংশের নিয়ন্ত্রক।

কাশ্মীরকে কেন্দ্র করে পারমাণবিক শক্তিধর প্রতিবেশী দুই দেশ দুই দফা যুদ্ধেও জড়িয়েছিল।