পছন্দের খবর জেনে নিন সঙ্গে সঙ্গে

আফগান সীমান্তের কাছে তাজিক বাহিনীর জন্য ঘাঁটি বানাবে চীন

  • নিউজ ডেস্ক বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2021-10-28 18:30:22 BdST

bdnews24
তাজিকিস্তানের গরনো-বাদাখশান স্বায়ত্তশাসিত প্রদেশের রাজধানী খোরোগ। ছবি : রয়টার্স

তাজিকিস্তান-আফগানিস্তান সীমান্তের কাছে তাজিকিস্তান পুলিশের একটি বিশেষ বাহিনীর ঘাঁটি নির্মাণে অর্থায়ন করবে চীন।

মধ্য এশিয়ার দেশ তাজিকিস্তানের পার্লামেন্ট বৃহস্পতিবার একথা জানিয়েছে।

ঘাঁটিটির অবস্থান হবে তাজিকিস্তানের পূর্বাঞ্চলীয় গরনো-বাদাখশান স্বায়ত্তশাসিত প্রদেশের পামির পবর্তমালা এলাকায়, জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

তাজিকিস্তানের এই প্রদেশটির সঙ্গে চীনের শিনজিয়াং ও আফগানিস্তানের উত্তরপূর্বাঞ্চলীয় বাদাখশান প্রদেশের সীমান্ত আছে। 

তাজিকিস্তান পার্লামেন্টের মুখপাত্র জানিয়েছেন,  ঘাঁটিটিতে চীনের কোনো সেনা অবস্থান করবে না। 

তাজিকিস্তান সরকার ও আফগানিস্তানের তালেবান শাসকদের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে, তার মধ্যেই  এই ঘাঁটিটি তৈরির পরিকল্পনা নেওয়া হল। 

তাজিকিস্তানের প্রেসিডেন্ট ইমোমালি রাখমোন তালেবান সরকারকে স্বীকৃতি দেননি।  বরং আফগানিস্তানের সবগুলো সম্প্রদায়ের প্রতিনিধিদের সমন্বয়ে সরকার গঠনের ডাক দিয়েছেন তিনি। আফগানিস্তানের দ্বিতীয় সংখ্যাগরিষ্ঠ সম্প্রদায় তাজিকরা।

এর প্রতিক্রিয়ায় প্রেসিডেন্ট রাখমোনের সরকারকে ক্ষমতাচ্যুত করতে চাওয়া আফগানিস্তানের উত্তরাঞ্চলভিত্তিক একটি জঙ্গি গোষ্ঠীর সঙ্গে মিত্রতার বন্ধনে আবদ্ধ তালেবান আফগানিস্তানের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে অনধিকারচর্চার বিরুদ্ধে তাজিকিস্তানকে সতর্ক করেছে। 

গত সপ্তাহে রাশিয়ার নেতৃত্বাধীন একটি আঞ্চলিক নিরাপত্তা সংস্থা তাজিক-আফগান সীমান্তে সামরিক মহড়া করেছে। দক্ষিণে আফগানিস্তানের দিক থেকে কোনো অনুপ্রবেশের ঘটনা ঘটলে মস্কো তাজিকিস্তানকে রক্ষার জন্য প্রস্তুত, এমন বার্তা দেওয়ার জন্যই মহড়াটি করা হয়েছে বলে ধারণা পর্যবেক্ষকদের।

তাজিকিস্তানে চীন একজন বড় বিনিয়োগকারী। দেশটির অনেকগুলো উপলক্ষ্যে দাতা হিসেবেও ভূমিকা রেখেছে বেইজিং।  সম্প্রতি তাজিকিস্তানের  একটি নতুন পার্লামেন্ট ভবন নিজ খরচে তৈরি করে দিয়েছে তারা।