পছন্দের খবর জেনে নিন সঙ্গে সঙ্গে

কোভিড-১৯: দক্ষিণ কোরিয়ায় রেকর্ড শনাক্ত, মৃত্যু

  • নিউজ ডেস্ক বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2021-12-04 20:12:36 BdST

bdnews24
সিউলে করোনাভাইরাসজনিত রোগ কোভিড-১৯ পরীক্ষারত বাবার অপেক্ষায় একটি শিশু। ছবি: রয়টার্স

দক্ষিণ কোরিয়ায় একদিনে সর্বোচ্চ কোভিড-১৯ রোগী শনাক্ত ও মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে এবং মোট ৯ জন ওমিক্রন ভ্যারিয়েন্ট আক্রান্তের সন্ধান পাওয়া গেছে।

শনিবার কোরিয়ার রোগ নিয়ন্ত্রণ ও প্রতিরোধ এজেন্সি (কেডিসিএ) জানিয়েছে, রেকর্ড ৫ হাজার ৩৫২ জন নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছে এবং ৭০ জনের মৃত্যু হয়েছে।

গুরুতর কোভিড-১৯ আক্রান্তদের সংখ্যা বাড়তে থাকায় হাসপাতালে ভর্তি হওয়া রোগীর সংখ্যা দ্রুত বাড়ছে আর শুক্রবার সঙ্কটজনক রোগীর সংখ্যা ৭৫২ জন ছিল বলে কেডিসিএ জানিয়েছে।

আরও ৩ ওমিক্রন আক্রান্ত রোগী শনাক্তের কথা নিশ্চিত করেছে দক্ষিণ কোরিয়া। গত সপ্তাহে নাইজেরিয়া থেকে আসা এক দম্পতির স্বাস্থ্য পরীক্ষায় ওমিক্রন ধরা পড়ে, তাদের টিকার সবগুলো ডোজ নেওয়া ছিল। সব মিলিয়ে দেশটিতে ওমিক্রন ভ্যারিয়েন্টে আক্রান্ত করোনাভাইরাস রোগীর সংখ্যা ৯ জনে দাঁড়িয়েছে।   

শুক্রবার দেশটির সরকার ঘোষণা করেছে, রেস্তরাঁ, সিনেমা ও জনসমাগমের স্থানগুলোতে গমনকারীদের ভ্যাকসিন পাস দেখাতে হবে। বৃহত্তর সিউল এলাকায় ব্যক্তিগত জমায়েতগুলোতে এখন ১০ জন উপস্থিত থাকার অনুমতি থাকলেও তা কমিয়ে ৬ জন করা হয়েছে আর রাজধানীর বাইরের বাসিন্দাদের ক্ষেত্রে ১২ থেকে কমিয়ে ৮ জন করা হয়েছে। সোমবার থেকে এ নিয়ম কার্যকর হবে।

নতুন ভ্যারিয়েন্টটি আটকাতে কর্তৃপক্ষ শুক্রবার আরও কিছু নিয়ম জারি করেছে। আগামী দুই সপ্তাহের মধ্যে দেশটিতে যাওয়া সব ভ্রমণকারীকে বাধ্যতামূলকভাবে ১০ দিন কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে। এর আগে পূর্ণ টিকা নেওয়াদের ক্ষেত্রে এ বিষয়ে ছাড় দেওয়া হলেও এবার তা স্থগিত করা হয়েছে।

দক্ষিণ কোরিয়া জুলাই থেকে শুরু হওয়া সবচেয়ে বাজে সংক্রমণ পরিস্থিতির বিরুদ্ধে লড়াই করছে। ওই সময় দৈনিক শনাক্ত রোগী ২ হাজারের নিচে ছিল। কিন্তু চলতি সপ্তাহে প্রথমবারের মতো রোগীর সংখ্যা ৫ হাজার ছাড়িয়ে যায়। 

দেশটির পূর্ণবয়স্ক জনসংখ্যার ৯১ দশমিক ৭ শতাংশকে টিকার সবগুলো ডোজ দেওয়া হয়েছে।

মহামারী শুরুর পর থেকে এ পর্যন্ত দেশটিতে মোট ৪ লাখ ৬৭ হাজার ৯০৭ জন কোভিড-১৯ রোগী শনাক্ত হয়েছে আর মৃত্যু হয়েছে ৩৮০৯ জনের।