পছন্দের খবর জেনে নিন সঙ্গে সঙ্গে

ইউক্রেইনে আগ্রাসন চালালে রাশিয়া ‘বিপর্যয়’ দেখবে: বাইডেন

  • নিউজ ডেস্ক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2022-01-20 18:56:32 BdST

bdnews24
ছবি: রয়টার্স

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন বলেছেন, রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন ইউক্রেনে আগ্রাসন চালানোর নির্দেশ দেবেন বলেই তিনি মনে করেন। তবে তা যদি ঘটে তাহলে রাশিয়াকে বিপর্যয় দেখতে হবে বলেও তিনি হুঁশিয়ার করেছেন।

মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থাগুলো ইউক্রেইনে রাশিয়ার হামলা এক মাসের মধ্যেই ঘটতে পারে বলে সতর্ক করার পর বাইডেন এমন মন্তব্য করলেন।

তিনি বলেন, “আমার ধারণা তিনি (পুতিন) আগ্রাসন চালাবেন। তার কিছু একটা করার আছে।” ইউক্রেইন সীমান্ত বরাবর রাশিয়ার এক লাখেরও বেশি সেনা উপস্থিতি নিয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে বাইডেন একথা বলেন।

ক্ষমতা নেওয়ার একবছর পূর্তির প্রথম দিন বুধবার নিজ কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত দুই ঘণ্টার সংবাদ সম্মেলনে বাইডেন বলেন, “ইউক্রেইনে ফের হামলা চালালে রাশিয়ার জন্য বিপর্যয় ঘনিয়ে আসবে। আমাদের মিত্রদেশ এবং অংশীদারেরা রাশিয়া এবং রাশিয়ার অর্থনীতিকে চরম মূল্য দেওয়াতে প্রস্তত হয়ে আছে। আগ্রাসন চালিয়ে পুতিন পরে পস্তাবেন বলেই আমি মনে করি।

বাইডেনের এই বক্তব্য পরে সাংবাদিকদের আরও সবিস্তারে বুঝিয়ে বলেছেন হোয়াইট হাউজের প্রেস সেক্রেটারি জেন সাকি।

 তিনি বলেন, “রাশিয়ার প্রেসিডেন্টের কাছে প্রেসিডেন্ট বাইডেন এটি পরিষ্কার করে দিয়েছেন যে: যদি ইউক্রেইন সীমান্তে নতুন হামলার জন্য রাশিয়ার কোনও সামরিক বাহিনী অগ্রসর হয়, তাহলে এটা আগ্রাসন বলে গণ্য হবে এবং দ্রুতই এর জবাব দেওয়া হবে।”

 “যুক্তরাষ্ট্র ও এর মিত্রদেশগুলো মিলে এর মারাত্মক জবাব দেবে। সাইবার হামলা বা সামরিক কোনও কৌশল খাটালেও রাশিয়াকে একইভাবে চরম এবং সমন্বিত জবাব দেওয়া হবে।”

পশ্চিমা বিশ্ব কয়েকমাস ধরেই ইউক্রেইনের পূর্ব সীমান্তে রাশিয়ার অস্বাভাবিক সেনা উপস্থিতি প্রত্যক্ষ করে আসছে। ইউক্রেইন সীমান্তের কাছে রাশিয়ার একলাখ সেনা উপস্থিতি থাকার পরও মস্কো বলছে, তাদের আগ্রাসন চালানোর কোনও পরিকল্পনা নেই।

ওদিকে বাইডেনও অবশ্য বলেছেন, তিনি বিশ্বাস করেন না যে রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন পুরোদস্তুর যুদ্ধ চান। তাই ইউক্রেইনে রাশিয়ার ছোটখাট কোনও হস্তক্ষেপের ঘটনা ঘটলে তা ভিন্নভাবে সামাল দেওয়া হতে পারে বলেও উল্লেখ করেছেন বাইডেন।

বিবিসি জানায়, বুধবারের সংবাদ সম্মেলনে বাইডেন বলেছেন, “নেটো জোটের দেশগুলোর মধ্যে করণীয় নিয়ে মতবিভেদ আছে। কি ঘটে তার ওপর নির্ভর করবে দেশগুলো কী করতে চায় সেটি। রাশিয়ার সেনারা সীমান্ত অতিক্রম করে গেলে… আমি মনে করি পরিস্থিতি বদলে যাবে।”

“রাশিয়া আগ্রাসন চালালে তাদেরকে জবাবদিহির মুখে পড়তে দেখবেন আপনারা। তারা কি করে তার ওপর এটি নির্ভর করছে। ছোটখাট হস্তক্ষেপ হলে সেটা আলাদা ব্যাপার। তখন আমরা দেখব কি করা যায় না যায়।”

ইউক্রেইনবাসীরা সেদেশের রুশ-পন্থি প্রেসিডেন্টকে উৎখাত করার পর রাশিয়া ২০১৪ সালে ইউক্রেইনের ক্রিমিয়া উপদ্বীপ দখল করে নিয়েছে। তখন থেকেই রাশিয়া সীমান্তে পূর্বের এলাকাগুলোর কাছে ইউক্রেইন সেনাবাহিনীর সঙ্গে রাশিয়া-সমর্থিত বিদ্রোহীদের যুদ্ধ চলে আসছে। এই সংঘাত আবারও উস্কে উঠে রাশিয়ার সেনাবাহিনী সীমান্ত পেরিয়ে যেতে পারে বলে শঙ্কা আছে।

তাছাড়া, যুক্তরাষ্ট্রকে পরীক্ষার জন্যও রাশিয়া ইউক্রেইনে হামলা করতে পারে বলে মনে করেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট বাইডেন। রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট পুতিনের অভিপ্রায় নিয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে বাইডেন এই ধারণা প্রকাশ করেন। তবে তিনি বলেন, “আমি মনে করি, এমনটি করলে রাশিয়াকে মারাত্মক এবং চরম মূল্য দিতে হবে।”