আপাতত ভাঙা হচ্ছে না রাজবাড়ীর সেই স্কুল ভবন

  • রাজবাড়ী প্রতিনিধি, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2019-05-26 14:36:37 BdST

bdnews24

সাংসদের নির্দেশে রাজবাড়ী সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রাচীন লাল ভবনটি ভেঙে ফেলার সিন্ধান্ত আপাতত স্থগিত করেছে কর্তৃপক্ষ।

রাজবাড়ী-১ আসনের সংসদ সদস্য কাজী কেরামত আলী শনিবার এক সভায় এ নির্দেশনা দেন বলে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা মাহাবুবা নাসরিন জানান।

রাজার বাড়ি থেকে জেলা রাজবাড়ীর নাম এলেও সেই স্মৃতি চিহ্ন এখন আর নেই। জেলার অন্য পুরাকীর্তিগুলোও যথাযথভাবে সংরক্ষণ করা হয়নি।

ফলে রাজবাড়ী সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ে কালের সাক্ষী হয়ে দাঁড়িয়ে থাকা প্রাচীন লাল ভবনটি ভেঙে নতুন দশতলা ভবন তৈরির সিদ্ধান্ত হলে বিষয়টি আলোচনার জন্ম দেয়। সংবাদমাধ্যমে এ নিয়ে খবর প্রকাশের পর অনেকেই প্রাচীন ওই ভবনটি রক্ষার দাবি নিয়ে সামনে আসেন।   

প্রধান শিক্ষিকা মাহাবুবা নাসরিন বলেন, “নতুন ভবন নির্মাণের জন্য পুরনো ভবনটি নিলামে বিক্রি করে ভেঙে ফেলার সিদ্ধান্ত হয়েছিল। সাংসদের নির্দেশে আপাতত তা স্থগিত রাখা হয়েছে। ঈদের পর জেলা প্রশাসকের সঙ্গে আলোচনা করে বিষয়টির চূড়ান্ত ফয়সালা করা হবে।”  

সভায় বিদ্যালয়ের প্রাক্তন ছাত্র রাজবাড়ী জেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি গণেশ নারায়ণ চৌধুরী বলেন, “রাজবাড়ীতে ঐতিহ্য বলে এখন কিছুই অবশিষ্ট নেই। ১৯৯২ সালে বিদ্যালয়ের শতবর্ষ পূর্তি অনুষ্ঠানে দেড়শ বছরের পুরনো ভবনটি রক্ষার সিদ্ধান্ত হয়েছিল। অবশ্যই এ সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন করতে হবে।”

সাংসদ কাজী কেরামত আলী বলেন, “বিদ্যালয়ের নতুন দশ তলা ভবন করার জন্য যথেষ্ঠ জায়গা না থাকায় এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল। তবে বিদ্যালয়ের প্রাক্তন ছাত্র ও রাজবাড়ীবাসীর দাবির প্রেক্ষিতে আপাতত  নিলাম স্থগিত করা হল।”

ঐতিহ্য সংরক্ষণ আন্দোলন রাজবাড়ীর আহ্বায়ক একুশে পদকপ্রাপ্ত চিত্রশিল্পী অধ্যাপক মনসুর উল করিম, বিজ্ঞান চেতনার আহ্বয়ক মহিতুজ্জামান বেলাল, আওয়ামী লীগ নেতা শফিকুল আযম মামুনসহ স্থানীয় প্রশাসনের কর্মকর্তারা সভায় উপস্থিত ছিলেন।