মানব পাচারের ৩ আসামি ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত

  • কক্সবাজার প্রতিনিধি, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2019-06-25 10:41:40 BdST

bdnews24

কক্সবাজারের টেকনাফে কথিত বন্দুকযুদ্ধে পুলিশের গুলিতে মানব পাচার মামলার তিন আসামি নিহত হয়েছেন।

মঙ্গলবার ভোর রাতে টেকনাফ সদর ইউনিয়নের মহেশখালিয়া পাড়ায় গোলাগুলির ওই ঘটনা ঘটে বলে টেকনাফ থানার ওসি প্রদীপ কুমার দাশের ভাষ্য।

নিহতরা হলেন- টেকনাফের সাবরাং ইউনিয়নের গোলাপাড়ার আব্দুর শুক্কুরের ছেলে কুরবান আলী (৩০), টেকনাফ পৌরসভার কায়ুকখালী পাড়ার আলী হোসেনের ছেলে আব্দুল কাদের (২৫) এবং একই এলাকার সুলতান আহমদের ছেলে আব্দুর রহমান (৩০)।

পুলিশ বলছে, সাগরপথে মানবপাচারে জড়িত একটি সংঘবদ্ধ চক্রের সদস্য ছিলেন ওই তিনজন। মাস-দেড়েক আগে টেকনাফ থেকে ১৫ জন রোহিঙ্গাকে মালয়েশিয়ায় পাচারের চেষ্টার সময় যে মামলা হয়েছিল, সেখানে তিনজনই আসামি ছিলেন।

ওসি প্রদীপ বলেন, পলাতক তিন আসামি মহেশখালিয়া পাড়ায় অবস্থান করছে খবর পেয়ে তাদের গ্রেপ্তারের জন্য পুলিশের একটি দল ভোর রাতে সেখানে অভিযানে যায়।

“পুলিশ পৌঁছানোর পর মানব পাচারকারী চক্রের সদস্যরা গুলি শুরু করে। আত্মরক্ষার্থে পুলিশও তখন পাল্টা গুলি চালায়। এক পর্যায়ে মানব পাচারকারী চক্রের সদস্যরা গুলি ছুড়তে ছুড়তে পালিয়ে যায়। পরে ঘটনাস্থলে তিনজনকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় পাওয়া যায়।”

ওই তিনজনকে টেকনাফ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদের কক্সবাজার সদর হাসপাতালে পাঠানোর পরামর্শ দেন। তাদের কক্সবাজার সদর হাসপাতালে নেওয়া হলে চিকিৎসক তাদের মৃত ঘোষণা করেন বলে জানান ওসি।

তিনি বলেন, ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ অস্ত্র ও গুলি উদ্ধার করেছে। টেকনাফ থানার এসআই এএসআই মোহাম্মদ সায়েফ, কনস্টেবল মং বাবু ও মোহাম্মদ শুক্কুর এ অভিযানে আহত হয়েছেন।

এর আগে গত রোরবার ভোর রাতে টেকনাফ উপজেলার সাবরাং ইউনিয়নের কাটাবুনিয়া নৌকা ঘাট এলাকায় কথিত বন্দুকযুদ্ধে মানব পাচার মামলার দুই আসামি নিহত হন, যাদের একজন ছিলেন মিয়ানমার থেকে আসা রোহিঙ্গা।


ট্যাগ:  কক্সবাজার জেলা  টেকনাফ উপজেলা