২১ আগস্ট ২০১৯, ৬ ভাদ্র ১৪২৬

পদ্মা সেতুর সর্বশেষ পাইল বসানোর কাজ শুরু

  • মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2019-07-14 20:24:27 BdST

bdnews24

পদ্মা সেতুর সর্বশেষ পাইল বসানোর কাজ শরু হয়েছে, যা কয়েক ঘণ্টার মধ্যে শেষ হওয়ার কথা রয়েছে।

পদ্মা সেতুর নির্বাহী প্রকৌশলী দেওয়ান আব্দুল কাদের জানান, সেতুর ২৬ নম্বর খুঁটির ৭ নম্বর পাইলের কাজ রোববার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে শুরু হয়েছে।

শনিবার এ কাজ শুরুর কথা থাকলেও বৈরী আবহাওয়ার কারণে তা সম্ভব হয়নি বলে তিনি জানান।

প্রকৌশলী কাদের বলেন, এটি সম্পন্ন হতে ৬ থেকে ১২ ঘণ্টা সময় লাগবে। সাধারণত ৬ থেকে ১০ ঘণ্টার মতো সময় লাগে। তবে এটি করতে একটু বেশি সময় লাগছে।

“সবকিছু ঠিক থাকলে রোববার রাত ১০টা থেকে সাড়ে ১০টার মধ্যে কাজ সম্পন্ন হওয়ার কথা।”

এর মধ্য দিয়ে পদ্মা সেতুর ২৯৪টি পাইলই বসানো সম্পন্ন শেষ হয়।

প্রকৌশলী কাদের আরও বলেন, পদ্মা সেতুর এই বিশাল পাইল স্থাপনের কাজটি ছিল নানা চ্যালেঞ্জে ভরা। উত্তাল পদ্মাকে জয় করার এই প্রচেষ্টা সাফল্যে রূপ নিয়েছে।

“এর আগে ২৬ নম্বর খুঁটির বাকি থাকা ৭ নম্বর পাইলের বটম সেকশন সম্পন্ন হয়ে যায়। বুধবার বিকালে এই পাইলের নিচের অংশ সম্পন্ন করা হয়।”

তিনি বলেন, এরপর মাটি সরিয়ে সব ঠিকঠাক হওয়ার পর বৃহস্পতিবার থেকে টপ সেকশনের টিউবটি ওঠানো হয়। তারপর শুরু হয় ওয়েল্ডিংয়ের কাজ। কিন্তু বৃষ্টির কারণে ওয়েল্ডিংয়ের কাজে বিলম্ব হয়।

ওয়েল্ডিং শেষ হওয়ার পর এনডিটি টেস্ট করেই রোববার পাইল ড্রাইভ শুরু হয় বলে তিনি জানান।

কাদের জানান, ৪২টি খুঁটির উপর ৪১টি স্প্যানে পুরো পদ্মা সেতু গড়ে উঠবে। মূল নদীতে রয়েছে ৪০টি খুঁটি। নির্মাণ কাজের শুরুতে মূল নদীর প্রতিটি খুঁটিতে পাইলের সংখ্যা ছিল ছয়। আর দুই প্রান্তে ১ ও ৪২ নম্বর খুঁটিতে ১২টি করে মোট ২৪টি পাইল ছিল প্রথম নকশায়। সব মিলিয়ে ৪২টি খুঁটিতে পাইল ছিল ২৬৪টি।

কিন্তু নদীর গভীর তলদেশে কাদামাটির স্তর থাকায় নতুন নকশা করতে হয়। নতুন এই নকশায় ১ ও ৪২ নম্বর খুঁটির ১৬টি করে মোট ৩২টি পাইল করা হয়। আর ২২টি খুঁটিতে সাতটি করে মোট ১৫৪টি পাইল এবং ১৮টি খুঁটিতে ছয়টি করে মোট ১০৮টি পাইল রাখা হয় বলে কাদের জানান।

“সব মিলিয়ে ২৯৪টি পাইলে ৪২টি খূঁটি থাকবে পদ্মা সেতুতে। ৪২টি খুঁটির মধ্যে ১৪টি স্প্যান বসানোর পর পদ্মা সেতুর ২ হাজার ১০০ মিটার এখন দৃশ্যমান।”

দায়িত্বশীল প্রকৌশলীরা আরও জানান, পদ্মা সেতুর ৪২টি পিলারের মধ্যে ৩০টি পিলারের কাজ সম্পন্ন হয়েছে। চলতি বছরের মধ্যে বাকি ১২টি খুঁটির কাজ সম্পন্ন করার পরিকল্পনা রয়েছে। তাই আশা করা হচ্ছে ২০২০ সালের ডিসেম্বর মাসের মধ্যে পদ্মা সেতুর উপর দিয়ে যানবাহন চলাচল করতে পারবে।


ট্যাগ:  মুন্সীগঞ্জ জেলা  ঢাকা বিভাগ