১৯ নভেম্বর ২০১৯, ৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

জাহাঙ্গীরনগরে রং-তুলিতে প্রতিবাদ

  • জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2019-11-09 00:02:19 BdST

bdnews24

দুর্নীতির অভিযোগে উপাচার্যের অপসারণ দাবি করে আসা আন্দোলনকারীরা চিত্রাঙ্কনের মধ্য দিয়ে কর্মসূচি পালন করেছে।

অনিয়ম-দুর্নীতির অভিযোগ তুলে উপাচার্য অধ্যাপক ফারজানা ইসলামের পদত্যাগের দাবিতে গত কয়েক দিন ধরেই উত্তপ্ত জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়। উদ্ভুত পরিস্থিতিতে বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ ঘোষণা করা হলেও সেখানে আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছেন শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের একটি অংশ।

শুক্রবার বেলা ১২টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের পুরাতন প্রশাসনিক ভবনের সামনে জড়ো হয়ে শিক্ষার্থীরা রং-তুলির আঁচড়ে ফুটিয়ে তোলেন বিভিন্ন চিত্র।  প্রতিবাদী স্লোগান ও চিত্রের মাধ্যমে উপাচার্যের অপসারণ দাবি, শিক্ষাকে ব্যবসায় রূপান্তর করার প্রতিবাদ, শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের ওপর ছাত্রলীগের হামলাসহ বিভিন্ন বিষয় তুলে ধরা হয় ক্যানভাসে। 

বিকাল ৪টার দিকে তারা এই চিত্রকর্ম নিয়ে মিছিল বের করেন।

আন্দোলনে থাকা ছাত্র ইউনিয়ন জাবি সংসদের সভাপতি নজির আমিন চৌধুরী জয় বলেন, “আমরা আগে একটি ৩০ গজ পটচিত্র এঁকেছিলাম। কিন্তু উপাচার্য সমর্থকেরা সেটা ছিঁড়ে ফেলে। এর প্রতিবাদে এবার আমরা দ্বিগুণ অর্থাৎ ৬০ গজ কাপড়ে চিত্র এঁকেছি।"

" এটা অনাচার ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে শৈল্পিক প্রতিবাদ।"

এদিকে শুক্রবার রাতের মধ্যেই সরকারের দপ্তরে অভিযোগ দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন আন্দোলনকারীদের মুখপাত্র দর্শন বিভাগের অধ্যাপক রায়হান রাইন।

তিনি বলেন, “শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিবের সঙ্গে এবং ইউজিসি কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আমাদের যোগাযোগ হয়েছে। শিক্ষা সচিবের কাছে রাতের মধ্যেই এসব ডকুমেন্টসের হার্ডকপি নিয়ে আমাদের প্রতিনিধি যাবেন। আর পরবর্তীতে মহামান্য আচার্যের কার্যালয় এবং ইউজিসিতে এসব উপাত্ত পাঠানো হবে।”

তথ্য-প্রমাণ সম্পর্কে আন্দোলনকারী শিক্ষক ও 'বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী প্রগতিশীল শিক্ষক সমাজের' সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক খবির উদ্দিন বলেন, “ছয় পাতার অভিযোগপত্র এবং সঙ্গে প্রায় ৭০ পাতার নথি সংযুক্ত করা হয়েছে।

“সেগুলো নিয়ে আন্দোলনকারী শিক্ষক আমাদের দুই সহকর্মী অধ্যাপক তারেক রেজা ও সহযোগী অধ্যাপক খন্দকার হাসান মাহমুদ শিক্ষামন্ত্রীর একান্ত সচিব আলিম খানের সঙ্গে সাক্ষাতের উদ্দেশে রওনা দিয়েছেন। তার কাছেই এই নথিগুলো জমা দেওয়া হবে।”