পটুয়াখালীতে পাওয়া নবজাতকের জন্য আবেদন রোববার

  • পটুয়াখালী প্রতিনিধি, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2020-02-22 19:22:14 BdST

bdnews24

একুশে ফেব্রুয়ারি প্রথম প্রহরে ফেলে যাওয়া অজ্ঞাত নবজাতকের অভিভাবকত্বের জন্য রোববার আবেদন করা হবে।

শনিবার গলাচিপা থানার ওসি আখতার মোর্শেদ জানান, গলাচিপা উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ওয়ানা মার্জিয়া নিতু কুড়িয়ে পাওয়া মেয়েটির  অভিভাবকত্বের জন্য পারিবারিক আদালতে রোববার আবেদন করবেন বলে জানিয়েছেন।

একুশের ভোররাতে কান্না শুনে আওয়ামী লীগ নেত্রী ওয়ানা মার্জিয়া নিতু পৌরসভার এক নম্বর ওয়ার্ডে তার বাড়ির দরজার সামনে থেকে প্লাস্টিকের ঝুড়িতে ফেলে যাওয়া এ শিশুকে উদ্ধার করেন।

উদ্ধারের পর শিশুটির বিষয়ে থানায় ওয়ানা মার্জিয়ার সাধারণ ডায়েরি করার কথা উল্লেখ করে এই পুলিশ কর্মকর্তা জানান, আপাতত মহিলা ভাইস চেয়ারম্যানের দায়িত্বে শিশুটি রাখা হয়েছে।

এছাড়া, শিশুটির বাবা-মাকে খুঁজে বের করার চেষ্টাও চলছে বলেও জানান তিনি।

একুশের ভোররাতে পটুয়াখালীর গলাচিপা পৌরসভার তিনবারের নির্বাচিত মেয়র প্রয়াত আবদুল ওহাব খলিফার মেয়ে ওয়ানা মার্জিয়া শিশুর কান্নার শব্দ শুনে বাড়ির দরজা খুলে প্লাস্টিকের ঝুড়িতে শিশুটিকে দেখতে পান।

শুক্রবার ভোরে সদ্যজাত শিশুটিকে নিয়ে গলাচিপা হাসপাতালে নিয়ে যান এবং পুলিশ ও প্রশাসনকে বিষয়টি জানান।

ওয়ানা মার্জিয়া নিতু বলেন, ধারণা করা হচ্ছে শিশুটি এক-দু’দিন আগে জন্ম নিয়েছে।

“শনিবার বিকাল পর্যন্ত শিশুটির মা-বাবাকে শনাক্ত করা সম্ভব হয়নি বা কেউ তার দাবিও করেনি। আমি সিদ্ধান্ত নিয়েছি শিশুটিকে নিজের মেয়ে হিসেবে গড়ে তুলব।”

এজন্য পটুয়াখালী পারিবারিক আদালতে শিশুটির অভিভাবত্বের জন্য আবেদন করবেন বলে জানান তিনি।

“আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের প্রাক্কালে শিশুটিকে কোলে তুলে নিয়েছি, সেহেতু ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে শিশুটির নাম ‘একুশ’ রেখেছি।”

তিনি জানান, সদ্য প্রসূতি তার এক স্বজন বুকের দুধে খাইয়ে শিশুটির দেকভাল করছেন। চিকিৎসকের মাধ্যমে শিশুটির নিয়মিত স্বাস্থ্য পরিচর্যা করা হচ্ছে।

এদিকে কুড়িয়ে পাওয়া শিশুটিকে এক নজর দেখতে শত শত মানুষ তার বাড়িতে ভিড় জমাচ্ছে। অনেকে উপহার সামগ্রী নিয়েও যাচ্ছেন।


ট্যাগ:  বরিশাল বিভাগ  পটুয়াখালী জেলা