মুন্সীগঞ্জে নিম্ন আয়ের লোকজনকে খাদ্যসহায়তা দেওয়ার উদ্যোগ

  • মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2020-03-26 16:00:33 BdST

bdnews24

মুন্সীগঞ্জে নিম্ন আয়ের লোকজনকে খাদ্যসহায়তা দেওয়াসহ করোনাভাইরাস মোকাবিলায় বিভিন্ন উদ্যোগ নিয়েছে সরকার।

বুধবার সকালে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে করোনাভাইরাস মোকাবিলা বিষয়ে সেনাসদস্যদের সঙ্গে জেলা প্রশাসনের বৈঠক হয়েছে।

জেলা প্রশাসক মো. মনিরুজ্জামান তালুকদার বলেন, করোনাভাইরাস রুখতে জেলাজুড়ে চলছে সতর্কতা। জরুরি প্রয়োজন ছাড়া বাসা থেকে বের হচ্ছে না অনেকেই। এর ফলে বেশি প্রভাব পড়েছে হতদরিদ্রদের জীবনে। এ অবস্থায় প্রাথমিকভাবে তাদের জন্য ১০০ টন চাল ও সাত লাখ টাকা বরাদ্দ এসেছে।

ধারাবাহিকভাবে তাদের জন্য আরও চাল-ডাল, তেলসহ বিভিন্ন খাদ্যদ্রব্য বরাদ্দ হলে সরবরাহ করা হবে বলে তিনি জানান।

জেলা প্রশাসক বলেন, বৈঠকে করোনাভাইরাস মোকাবিলার প্রস্তুতি ও করণীয়সহ সার্বিক বিষয় আলোচনা হয়। পরিস্থিতি মোকাবেলায় হাসপাতালগুলোর অবস্থা, চিকিৎসা পদ্ধতি ও অ্যাম্বুলেন্স নিয়েও আলোচনা হয়। বুধবার থেকে মুন্সীগঞ্জ শহরে আর্মি সদস্যরা টহল দিচ্ছে। সরকারি নির্দেশ পাওয়ার পর তারা পুরোদমে কাজ শুরু করবেন।

মুন্সীগঞ্জে করোনা আক্রান্ত রোগীদের জন্য জেলা প্রশাসন বেসরকারিভাবে একটি অ্যাম্বুলেন্সের ব্যবস্থা করেছে বলে জানান জেলা প্রশাসক।

তিনি বলেন, এই অ্যাম্বুলেন্সে করে রোগীকে দ্রুত ঢাকায় পাঠানো হবে। এছাড়া জেলায় পর্যায়ে সরকারিভাবেও একটি অ্যাম্বুলেন্সের ব্যবস্থা করা হচ্ছে। আর প্রতিটি উপজেলায় যাতে অন্তত একটি করে অ্যাম্বুলেন্স রাখা যায় সে ব্যাপারে চেষ্টা করা হচ্ছে।

জেলা প্রশাসনের বৈঠকে সিভিল সার্জন আবুল কালাম আজাদ জানান, মুন্সীগঞ্জ সদর হাসপাতালে দুটি অ্যাম্বুলেন্স থাকলেও একটি চল। এটি হাসপাতালের কাজেই থাকবে, যাতে স্বাভাবিক চিকিৎসা ব্যবস্থায় প্রভাব না পড়ে।

হোম কোয়ারেন্টিনে থাকা প্রবাসীদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে প্রতিদিন স্বাস্থ্য বিভাগের লোকজন খোঁজখবর নিচ্ছেন বলে জানান সিভিল।

তিনি বলেন, মুন্সীগঞ্জে ৪২৮ জন হোম কোয়ারেন্টিনে আছেন। তাদের বাড়িতে নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত অবস্থান করার জন্য পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে। গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন ৩৩ জন হোম কোয়ারেন্টিনে এসেছেন। আর ছাড়পত্র পেয়েছেন ৩১ জন। এ পর্যন্ত ২০১ জন হোম কোয়ারেন্টিন সম্পন্ন করেছেন।


ট্যাগ:  মুন্সীগঞ্জ জেলা  ঢাকা বিভাগ