আম্পানে পল্লী বিদ্যুতের সরবরাহ ব্যবস্থা ভেঙে পড়েছে

  • বিমল সাহা, ঝিনাইদহ প্রতিনিধি, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2020-05-22 23:14:20 BdST

bdnews24

ঘূর্ণিঝড় আম্পানের তাণ্ডবের পল্লী বিদ্যুতের সরবরাহ ব্যবস্থা ভেঙে পড়ায় দু’দিন পর শুক্রবারও ঝিনাইদহের বেশিরভাগ এলাকায় বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন রয়েছে।

জেলা শহরে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় বিদ্যুৎ সরবরাহ ফের শুরু হলেও উপজেলা ও গ্রামাঞ্চল অন্ধকারে রয়েছে।

শৈলকুপার উপজেলার ভাটই এলাকায় ঘুরে দেখা যায় বিভিন্ন জায়গায় বৈদ্যুতিক তারের উপর গাছ ভেঙে পড়েছে।

ঝুঁকিপূর্ণভাবে গাছগাছালির ভেতর দিয়ে খুঁটিতে টানা এসব বৈদ্যুতিক তার ঘূর্ণিঝড় ছাড়াও নানা সময়ে দুর্ঘটনার কারণ হয়ে থাকে।

ঝড়ের তাণ্ডবে এ জেলার পল্লী বিদ্যুতের প্রায় দুশ’ পোল ভেঙে পড়েছে।  বিদ্যুৎ সঞ্চালন লাইনের ওপর গাছ পড়ে লাইন লন্ডভন্ড হয়ে গেছে বলে জানান পল্লী বিদ্যুতের জি এম মো. ইমাহক আলি।

ঝিনাইদহ জেলায় পল্লী বিদ্যুতের ৩ লাখ ৭০ হাজার গ্রাহকের মধ্যে শুক্রবার বিকাল পর্যন্ত ৩০ ভাগ এলাকায় বিদ্যুৎ সরকরাহ গেছে বলছেন ইমাহক আলি।

বুধবারের ঘূর্ণিঝড়ে ৩০টি পোল ভাঙায় গ্রামাঞ্চলে বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন রয়েছে বলে জানান ওয়েস্ট জোন পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশান কোম্পানী লিমিটেডের নির্বাহী প্রকৌশলী পরিতোষ চন্দ্র সরকার।

আম্পানের তাণ্ডবে ট্রান্সফরমার পুনরায় স্থাপন করতে না পারায় কুষ্টিয়া, মেহেরপুর, চুয়াডাঙ্গা, ঝিনাইহদহ ও রাজবাড়ীর আংশিক মিলে প্রায় ছয় লাখ গ্রাহক এখনও বিদুৎহীন অবস্থায় রয়েছেন বলে ওয়েস্ট জোন পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেডের কুষ্টিয়া অঞ্চলের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী আরিফুর রহমান জানিয়েছেন।

এমন কি ঝড়ের দুইদিন পরও বাড়িঘরের পাশেই ছেঁড়া তার পড়ে থাকতে দেখা গেছে।


ট্যাগ:  ঝিনাইদহ জেলা  খুলনা বিভাগ