হাতিয়ায় চুরির অভিযোগে ৫ কিশোরকে বেঁধে লাঠিপেটা

  • নোয়াখালী প্রতিনিধি, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2021-05-17 00:15:11 BdST

bdnews24

জাল চুরির অভিযোগে নোয়াখালীর হাতিয়ায় পাঁচ কিশোর জেলেকে বেঁধে লাঠিপেটা করা হয়েছে গ্রাম্য সালিশে।

রোববার চরকিং ইউনিয়নের দক্ষিণ শুল্লকিয়া গ্রামের জেলেপাড়ায় এই ঘটনা ঘটে।

লাঠিপেটার পাশাপাশি ওই পাঁচ কিশোররের ১০ হাজার টাকা জরিমানাও করে স্থানীয় মাতব্বররা। 

লাঠিপেটার এই ঘটনার মোবাইল ফোনে ধারণকৃত একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে।

এক মিনিট ১১ সেকেন্ডের ওই ভিডিওতে দেখা যায়, স্থানীয় কিছু নারী-পুরুষের সামনে কিশোরদেরকে লাঠিপেটা করা হচ্ছে। এই সময় ওই পাঁচ কিশোর এবং তাদের পরিবারের নারী সদস্যদের আর্তচিৎসার করতে দেখা যায়।

ভুক্তভোগী এক কিশোরের বাবা বলেন, তার ছেলেসহ পাঁচ কিশোর জেলে গত শুক্রবার [১৪ মে] রাতে ১০-১১ হাতের একটি ‘বিন্দি’ জাল নিয়ে যায়। পরে ওই জাল উদ্ধার করে মালিককে ফিরিয়ে দেওয়া হয়।

“সকালে স্থানীয় পঞ্চায়েতের কয়েকজন ও এক চৌকিদার মিলে কিশোর জেলেদের ডেকে পাঠায়। এক পর্যায়ে তাদের বেঁধে প্রকাশ্যে লাঠিপেটা এবং প্রত্যেকের ২ হাজার টাকা করে মোট ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।”

এই বিষয়ে সালিশকারী এবং গ্রাম চৌকিদারের সঙ্গে মোবাইল ফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করে কাউকে পাওয়া যায়নি।

হাতিয়া থানার ওসি আবুল খায়ের বলেন, জাল চুরির অভিযোগে পাঁচ কিশোর জেলেকে রশিতে বেঁধে প্রকাশ্যে লাঠিপেটা করার খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে।

“মূল ঘটনা হচ্ছে-গত ১৪ মে রাতে জেলেপাড়ায় এই পাঁচটা ছেলে অন্য জেলের জাল চুরি করে। এরপর জেলেরা তাদের আইডেন্টিফাই করে জাল উদ্ধার করে। আজ সকালে এ বিষয়ে সালিশ হয়।”

ওসি বলেন, “সালিশে চৌকিদার আমির হোসেনকে খবর দিয়ে নিয়ে তাকে এক হাজার টাকা দিয়ে পঞ্চায়েতরা পাঁচজনকে ১০ বেত করে মারার আদেশ দেয়।”

“স্থানীয় লোকজন ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের নাম পরিচয় দিলেও তাদের কাউকে এলাকায় পাওয়া যায়নি।”

নির্যাতনের শিকার কিশোরদের এই ঘটনায় থানায় লিখিত অভিযোগ দিতে বলা হয়েছে বলে জানান ওসি।