ঈদফেরত যাত্রীদের ভরসা বিকল্প বাহন

  • ইসরাইল হোসেন বাবু, সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2021-05-17 20:56:53 BdST

bdnews24

করোনাভাইরাস মহামারীর মধ্যে দূরপাল্লার বাস বন্ধ থাকায় ঈদ শেষে মানুষকে ঢাকা ফিরতে নানা ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে; খুঁজতে হচ্ছে বিকল্প যানবাহন।

সোমবার সকাল থেকে সিরাজগঞ্জের বঙ্গবন্ধু সেতু পশ্চিম সংযোগ মহাসড়কে কড্ডার মোড়, নলকা মোড় ও হাটিকুমরুল গোলচত্বর এলাকায় ঢাকাগামী যাত্রীদের উপচেপড়া ভিড় দেখা গেছে।

বিকল্প বাহন হিসেবে ট্রাক, প্রাইভেটকার, মাইক্রোবাস, পিক-আপ ভ্যান ও মোটরসাইকেলে কর্মস্থলের উদ্দেশে ছুটছেন তারা।

এতে একদিকে যেমন কয়েকগুণ বেশি ভাড়া গুণতে হচ্ছে, তেমনি অন্যদিকে নানা হয়রানির শিকার হতে হচ্ছে। যান না পেয়ে স্বল্প আয়ের অনেক শ্রমজীবীকে ঘণ্টার পর ঘণ্টা রাস্তায় দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা গেছে।

করোনাভাইরাস মহামারীর মধ্যে দূরপাল্লার যানবাহন বন্ধ রয়েছে। সরকারের পক্ষ থেকে দেশের মানুষকে নিজ নিজ কর্মস্থলে ঈদ করার পরামর্শ দেওয়া হলেও ঢাকা মহানগরীর লাখ লাখ মানুষ বাড়ি গেছে স্বাস্থ্যবিধি উপেক্ষা করে।

ঈদযাত্রায় শিমুলিয়া-বাংলাবাজার ফেরিতে ভিড়ের চাপে পাঁচজন নিহত হওয়ার ঘটনাও ঘটেছে।

ঢাকায় ফেরার জন্য গাড়ির অপেক্ষা করছিলেন পাবনার শাহ আলম, নাটোরের আল মামুন, বগুড়ার জসিম উদ্দিন, রংপুরের ইয়াছমিন, গাইবান্ধার ঝর্না খাতুন ও নওগাঁর আশরাফুল ইসলাম জানান, বিভিন্ন জেলা থেকে বিকল্প পরিবহনে একাধিক গাড়ি পরিবর্তনের পর তারা সিরাজগঞ্জ পর্যন্ত এসে পৌছেছেন।

মহাসড়কের কড্ডার মোড়, নলকা মোড় ও হাটিকুমরুল গোলচত্বর এলাকায় এসে যানবাহন না পেয়ে চরম ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন তারা।

বিকল্প পরিবহনগুলো ঢাকা যেতে তাদের কাছে জনপ্রতি সাতশ থেকে এক হাজার টাকা ভাড়া দাবি করছে বলে অভিযোগ তাদের।  

এই পরিস্থিতিতে অতিরিক্ত ভাড়া দিয়েই অনেককে ট্রাক, পিক-আপ ভ্যান, প্রাইভেটকার, মাইক্রোবাস ও মোটরসাইকেলে গন্তব্যের উদ্দেশ্যে রওনা হতে দেখা গেছে।

এক্ষেত্রে স্বল্প আয়ের শ্রমজীবীরা পড়েছেন বিপাকে। অতিরিক্ত ভাড়া দিতে না পারায় তারা মহাসড়কের পাশে দাঁড়িয়ে থেকেছেন সুবিধামতো ভাড়ার গাড়ির জন্য। 

বগুড়ার আসমা খাতুন, রংপুরের সেলিম শিকদার, নওগাঁর আক্তার হোসেন ও পাবনার শরিফ আহম্মেদ জানান, তারা নিম্ম আয়ের মানুষ। ঢাকা থেকে বাড়ি যাওয়ার পথে অনেক টাকা খরচ হয়েছে। ফেরার পথেও অতিরিক্ত ভাড়া গুনতে হচ্ছে।

হাটিকুমরুল হাইওয়ে থানার ওসি শাহজাহান আলী বলেন, মহাসড়কে কর্মস্থলে ফেরা যাত্রীদের চাপ রয়েছে। সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী দূরপাল্লার বাস চলতে দেওয়া হচ্ছে না। বিকল্প বাহনে যাচ্ছে যাত্রীরা।

এদিকে, বিকল্প যানবাহনে যাত্রী পরিবহন করা হলেও সেগুলোতে কোনো প্রকার স্বাস্থ্যবিধি মানা হচ্ছে না। গাদাগাদি করে যাত্রী বহন করছে এসব যানবাহনগুলো।


ট্যাগ:  রাজশাহী বিভাগ  সিরাজগঞ্জ জেলা