নেত্রকোণায় পৌছেছে সিনোফার্মের ৫ হাজার টিকা

  • নেত্রকোণা জেলা, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2021-06-16 17:40:00 BdST

bdnews24
ফাইল ছবি

সিনোফার্মের প্রায় পাঁচ হাজার করোনাভাইরাসের টিকা নেত্রকোণা এসে পৌঁছেছে।

সিভিল সার্জন মো. সেলিম মিয়া জানান, বুধবার দুপুরে সিনোফার্মের চার হাজার ৮০০ ডোজ টিকা এসেছে। এই টিকা কবে থেকে দেওয়া হবে বা কাদেরকে অগ্রাধিকার দেওয়া হবে এসব নিয়ে এখনও নির্দেশনা আসেনি।

ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশনা আসার পর সে মোতাবেক পদক্ষেপ নেওয়া হবে বলে তিনি জানান।

করোনাভাইরাস প্রতিরোধে সারাদেশে গণ টিকাদান কর্মসূচি আগামী ১৯ জুন থেকে আবার শুরু হবে বলে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক সোমবার এক অনুষ্ঠানে বলেছেন।

চীনের উপহার হিসেবে আসা সিনোফার্মের ১১ লাখ ডোজ টিকার মধ্যে প্রথমে ৫ লাখ দেওয়া হবে; বাকি টিকা দ্বিতীয় ডোজের জন্য রেখে দেওয়া হবে। যারা টিকার জন্য আগে নিবন্ধন করেছেন, কিন্তু এখনও পাননি, তাদের ‘অগ্রাধিকার ভিত্তিতে’ এবার টিকা দেওয়া হবে বলে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক জানিয়েছেন।

গত ৭ ফেব্রুয়ারি সারাদেশে ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউটে তৈরি অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার কোভিশিল্ড টিকা দিয়ে দেশে গণটিকাদান শুরু হয়। সেখান থেকে তিন কোটি ডোজ টিকা আসার কথা থাকলেও মার্চ থেকে টিকা রপ্তানি বন্ধ রেখেছে ভারত। ফলে বাংলাদেশ এ পর্যন্ত ১ কোটি ২ লাখ ডোজ টিকা হাতে পেয়েছে।

পর্যাপ্ত টিকা না থাকায় দেশে প্রথম ডোজ দেওয়া বন্ধ রয়েছে। ইতোমধ্যে যারা প্রথম ডোজ পেয়েছেন, তাদের সবাইকে দ্বিতীয় ডোজ দেওয়ার মত অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকাও সরকারের হাতে নেই।

ডা. সেলিম মিয়া জানান, জেলায় মোট ৬৭ হাজার ৩৬৬ জন টিকা গ্রহণের জন্যে নিবন্ধন করেছেন। এদের মধ্যে ৫৮ হাজার ১৮৮ জন প্রথম টিকা নিয়েছেন। সেই হিসেবে জেলায় নিবন্ধনের আরও ৯ হাজার ১৭৮ জন এখনও প্রথম ডোজ নেওয়া বাকি আছে।

তাছাড়া প্রথম ডোজ নেওয়াদের মধ্যে থেকে ৪০ হাজার ৯৬ জনকে দ্বিতীয় ডোজ দেওয়ায় পর টিকা শেষ হয়ে যায়। দ্বিতীয় ডোজ টিকা গ্রহণের জন্যে জেলায় অপক্ষোয় আছেন ১৮ হাজার ৯২ জন।

জেলার করোনা ভাইরাসের পরিস্থিতি নিয়ে স্বাস্থ্য বিভাগের দেওয়া সর্বশেষ তথ্য মতে মঙ্গলবার ২৪ ঘণ্টায় ৬৫ জনের নমুনা পরীক্ষায় শনাক্ত হয়েছেন ১২ জন। মোট ১৭ হাজার ১২১টি নমুনা পরীক্ষায় আক্রান্ত হয়েছেন এক হাজার ২৫০ জন। এদের মধ্যে এক হাজার ১০৩ জন সুস্থ হয়েছেন; আর বর্তমানে ১৪৭ জন বাড়িতে ও হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন। মারা গেছেন ২৩ জন।