কোভিড-১৯: শেরপুরে নারীর মৃত্যু, আক্রান্ত আরও ৪৯

  • শেরপুর প্রতিনিধি, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2021-06-18 11:55:04 BdST

bdnews24

শেরপুরে একদিনে করোনাভাইরাসে এক নারীর মৃত্যু হয়েছে এবং নতুন করে ৪৯ জনের শরীরে সংক্রমণ ধরা পড়েছে।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে ফারজানা বেগম নামে ৩১ বছর বয়সী ওই নারীর মৃত্যু হয় বলে শেরপুর সদর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মোবারক হোসেন জানান।

ফারজানা শেরপুর শহরের কালিরবাজার এলাকার বাসিন্দা ছিলেন।

এনিয়ে এ জেলায় করোনাভাইরাসে মোট মৃত্যুর সংখ্যা ১৯ জনে দাঁড়াল বলে সিভিল সার্জন ডা. এ কে এম আনওয়ারুর রউফ জানান।

এদিকে শেরপুরে গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আরও ৪৯ জনের শরীরে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ধরা পড়েছে। যা একদিনে সর্বোচ্চ আক্রান্তের রেকর্ড।

সিভিল সার্জন বলেন, এর মধ্যে সদরেই ৪৮ জনের সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে। নমুনা পরীক্ষা বিবেচনায় আক্রান্তের হার ২২.৮৯ শতাংশ।

সিভিল সার্জন অফিস থেকে শুক্রবার সকালে দেওয়া জেলার কোভিড-১৯ সংক্রান্ত স্বাস্থ্য বুলেটিনে বলা হয়েছে, আগের দিন জেলায় ২১৮টি নমুনা পরীক্ষা করে ৪৯ জনের শরীরে সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে। এর মধ্যে শেরপুর সদরে ৪৮ জন এবং নকলা উপজেলায় ১ জন রয়েছেন।

সব মিলিয়ে এ জেলায় মোট শনাক্তের সংখ্যা ১ হাজার ২ জনে দাঁড়াল। এর মধ্যে সুস্থ হয়েছেন ৭৫৭ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ১৯ জনের। বর্তমানে জেলায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ২৩২ জন। নমুনা পরীক্ষা প্রক্রিয়াধীন আছে ২৬২টি।

এদিকে জুন মাসে কোভিড-১৯ এর সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় শেরপুর পৌর এলাকায় গত ১১ জুন শুক্রবার ভোর থেকে ২ সপ্তাহের জন্য ‘বিশেষ বিধিনিষেধ’ জারি করে জেলা প্রশাসন।

তবে বিধিনিষেধ মানতে জেলা প্রশাসনের তৎপরতা থাকলেও উদাসিনতা কাটছে না সাধারণ মানুষের। বাইরে বের হওয়া বেশিরভাগ মানুষ মুখে মাস্ক পড়ছেন না, হাট-বাজারগুলোতেও লোকসমাগম আগের মতই দেখা গেছে।

সিভিল সার্জন বৃহস্পতিবার রাতে এক বিবৃতিতে বলেন, এ পর্যন্ত জেলা সদর হাসপাতালে কোভিড-১৯ এ আক্রান্ত হয়ে এবং উপসর্গ নিয়ে ৪০ জন রোগী ভর্তি রয়েছেন। আক্রান্ত ভর্তি রোগীর সংখ্যা বেড়ে যাওয়ায় এ হাসাপতালের নতুন ভবনের পঞ্চম তলায় আরেকটি কোভিড ইউনিট চালু করা হয়েছে।

এনিয়ে নতুন ও পুরাতন ভবনে চারটি কোভিড ইউনিট চালু করা হল। এছাড়া নতুন ভবনের ৬ষ্ঠ তলায় আরও একটি কোভিড ইউনিট খোলার পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে।

এ ভাইরাস প্রতিরোধে মাস্ক পরতে এবং স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলার আহ্বান জানান ডা. আনওয়ারুর।