প্রজনন মৌসুম শেষে ভারতে আবার ইলিশ রপ্তানি শুরু

  • বেনাপোল প্রতিনিধি, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2021-10-28 12:56:13 BdST

bdnews24
ঢাকার কারওয়ান বাজারে আড়তে ইলিশ। ফাইল ছবি: আসিফ মাহমুদ অভি

প্রজনন মৌসুমে ভারতে ইলিশ রপ্তানি বন্ধ থাকার পর আবারও তা শুরু হয়েছে।

ইলিশ রপ্তানি বন্ধ থাকলেও দুর্গোৎসবে ভারতের বাঙালিদের এই মাছের স্বাদ দিতে বিশেষ বিবেচনায় ১১৫ প্রতিষ্ঠানকে ৪ হাজার ৬শ’ মেট্রিকটন ইলিশ ভারতে রপ্তানির অনুমোদন দেয় সরকার। তবে প্রজনন মৌসুমে ইলিশ রপ্তানি বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত হওয়ায় রপ্তানির সময়সীমা কমিয়ে আনা হয়েছিল।

বেনাপোল মৎস্য পরিদর্শন ও মান নিয়ন্ত্রণ অফিসের পরিদর্শক আসওয়াদুল ইসলাম জানান, ইলিশ রপ্তানির নির্দেশনাপত্র হাতে পাওয়ার পর বুধবার ‘সততা ফিস ফিড লিমিটেড’  ৪ মেট্রিকটন ইলিশ ভারতে পাঠিয়েছে।

“গত ৩ অক্টোবর পর্যন্ত ১ হাজার ১০৮ মোট্রিকটন ইলিশ ভারতে রপ্তানি হয়েছে। এখনও ৩ হাজার ৫৪২ মেট্রিকটন রপ্তানি বাকি রয়েছে। আগামী ৫ নভেম্বর পর্যন্ত অবশিষ্ট ইলিশ ব্যবসায়ীরা ভারতে রপ্তানি করতে পারবেন।“

মঙ্গলবার বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের উপসচিব তানিয়া ইসলাম সাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়- ইতোপূর্বে ১১৫ প্রতিষ্ঠানকে ৪০ টন করে ইলিশ রপ্তানির অনুমোদন দেওয়া হয়। কিন্তু গত ৪ থেকে ২৫ অক্টোবর ইলিশের প্রধান প্রজনন মৌসুম হওয়ায় সারা দেশে ইলিশ মাছ আহরণ,পরিবহন, বাজারজাতকরণ ও বিক্রয় নিষিদ্ধ ছিল।

যে কারণে অনুমোদন পাওয়া রপ্তানিকারক প্রতিষ্ঠানগুলো ইলিশ রপ্তানি করতে পারেনি। এজন্য অবশিষ্ট ইলিশ রপ্তানির সময় আগামী ৫ নভেম্বর পর্যন্ত বৃদ্ধি করা হল।

বেনাপোল ফিশারিজ কোয়ারেন্টাইন অফিসার মাহবুবুর রহমান বলেন, সরকারের নির্দেশনায় বুধবার থেকে আবার ইলিশ রপ্তানি শুরু হয়েছে। সরকারের বিশেষ অনুমতিতে ১১৫ প্রতিষ্ঠানকে ৪ হাজার ৬শ’ মেট্রিকটন ইলিশ রপ্তানির অনুমোদন দেওয়া হয়; প্রতি কেজি ইলিশের দাম ধরা হয়েছিল ১০ মার্কিন ডলার।

গত ২২ সেপ্টেম্বর বেনাপোল দিয়ে প্রথম চালানের ৪ ট্রাকে ২৩ মেট্রিকটন ইলিশ ভারতে রপ্তানি হয়েছিল। গত ৩ অক্টোবর পর্যন্ত ৫১ প্রতিষ্ঠান মাত্র এক হাজার ১০৮ মেট্রিকটন ইলিশ মাছ রপ্তানি করেছিল।

রফপ্তানিকারক নুরুল আমিন বিশ্বাস জানান, দেশে ইলিশের উৎপাদন ঘাটতি থাকায় ২০১২ সাল থেকে দেশের বাইরে ইলিশ রপ্তানি বন্ধ করেছিল সরকার। পরবর্তীতে বন্ধুত্ব ও সৌহার্দ্যের সম্পর্কের সূত্র ধরে সরকার ২০১৯ সাল থেকে প্রতিবছর দুর্গাপূজার আগে ভারতে ইলিশ রপ্তানির অনুমতি দিয়ে আসছে।

“এ বছর অনুমোদনের চার ভাগের এক ভাগ রপ্তানি করা গেছে। ”

তিনি বলেন, পদ্মার ইলিশ পশ্চিমবঙ্গের বাঙালিদের কাছে প্রিয় হলেও উৎপাদন কমে যাওয়ায় দেশের চাহিদা বিবেচনায় ২০১২ সালের পর ইলিশ রপ্তানি বন্ধ করে দেয় সরকার। গত বছর দুর্গাপূজা উপলক্ষে এক হাজার ৪৫০ টন এবং ২০১৯ সালে ৫০০টন ইলিশ রপ্তানির অনুমোদন দিয়েছিল সরকার।