নদীর ওপার কনের বাড়ি, বর গেলেন হেলিকপ্টারে

  • গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
    Published: 2022-01-18 01:43:55 BdST

bdnews24

বর ও কনের বাড়ির মাঝ দিয়ে বয়ে গেছে মধুমতি নদীর এমবিআর চ্যানেল। দুই বাড়ির দূরত্ব মাত্র তিনশ মিটার। দূরত্ব কম হলেও ‘বাবার ইচ্ছা পূরণে’ হেলিকপ্টার চড়ে বিয়ে করতে গেলেন বর।

রোববার গোপালগঞ্জের মুকসুদপুর উপজেলার গঙ্গারামপুর গ্রামে এ বিয়ে অনুষ্ঠিত হয়। এ দিন দক্ষিণ গঙ্গারামপুর গ্রামের তোয়াজ শেখের ছেলে ব্যবসায়ী মো. মিরাজ শেখের সঙ্গে পার্শ্ববর্তী উত্তর গঙ্গারামপুর গ্রামের আজাদ খোন্দকারের মেয়ে আফরিন আক্তারের বিয়ে হয়। 

বর মিরাজ শেখ বলেন, “বিয়ে জীবনে একবারই হয়। বাবার ইচ্ছা পূরণ করতেই মাত্র তিনশ মিটার দূরে কনের বাড়িতে হেলিকপ্টারে চড়ে গিয়েছি।”

হেলিকপ্টারটি ১ লাখ ২০ হাজার টাকায় ভাড়া করা হয়েছে বলে জানান তিনি।

বরযাত্রীদের একজন সিরাজুল ইসলাম মিনা বলেন, দুপুরের আগেই ঢাকা থেকে একটি ভাড়া করা হেলিকপ্টার বরের গ্রামের জুট মিল সংলগ্ন মাঠে অবতরণ করে। দুপুরে মিরাজ তার ভাইবোন নিয়ে হেলিকপ্টারে চড়ে কনের বাড়ির উদ্দেশে রওনা হন।

“কনের বাড়ি তিনশ মিটার দূরে হলেও ওড়ার সুবিধা ও অন্যান্য কারণে প্রায় ১০ কিলোমিটার ঘুরে হেলিকপ্টারটি কনের বাড়ির পাশে অবতরণ করে। বর দেখতে এলাকার শত শত উৎসুক মানুষ ভিড় করে।”

তিনি আরও বলেন, সড়কপথে বরযাত্রীর বাকি সদস্যরা কনের বাড়ি পৌঁছায়। বিয়ে শেষে বিকালে মিরাজ তার স্ত্রী ও ভাইবোনকে নিয়ে হেলিকপ্টারে চড়ে বাড়ি ফিরে আসেন।

উত্তর গঙ্গারামপুর গ্রামের শাহজাহান মিয়া বলেন, “এটি আমাদের এলাকার ব্যতিক্রমী বিয়ে হিসেবে স্মরণীয় হয়ে থাকবে। বর ও কনেপক্ষের আতিথেয়তায় আমরা খুশি।”

বিয়েতে গোহালা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম, সাবেক চেয়ারম্যান শফিকুল আলম মোল্লা, ব্যবসায়ী রিয়াজ মিনা, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি এম এম মোশারফ হোসেন, সাধারণ সম্পাদক শেখ ইকবালসহ স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিরা উপস্থিত ছিলেন।